শিরোনাম: ইলিয়াস কাঞ্চনের ‘মুখোশ উন্মোচনের’ হুংকার শাজাহান খানের       দুর্নীতি প্রতিরোধে রাজনৈতিক অঙ্গীকার পেয়েছি : টিআইবি       খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ বন্ধ করে দিয়েছে সরকার : রিজভী       পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ইস্যুতে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই : উ. কোরিয়া       হট্টগোলে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইনি নোটিশ       আমরা চমক সৃষ্টি করতে পেরেছি : এলজিআরডি মন্ত্রী       তাপস বলার কে, প্রশ্ন দুদক চেয়ারম্যানের       মামলা লড়তে হেগের উদ্দেশে সু চি       ‘রিটার্ন দাখিলে বাধ্য করা হবে’       দিল্লিতে কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ৪৩       
নওগাঁয় আমন ধানের দাম নিয়ে শঙ্কায় চাষিরা
মোফাজ্জল হোসেন, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি :
Published : Thursday, 14 November, 2019 at 8:01 PM
নওগাঁয় আমন ধানের দাম নিয়ে শঙ্কায় চাষিরানওগাঁয় শুরু হয়েছে আমন ধান কাটা-মাড়াই। সোনালি ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত চাষিরা। আবহাওয়া অনুক’লে থাকায় গত বছরের মতো এবারও আমনের ফলন ভালো হয়েছে। এদিকে সরকার ২৬ টাকা কেজি দরে আগাম ধান কেনার ঘোষণা দিলেও বাজারে দাম নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে চাষিরা।
চাষিরা জানান, বাজারে কৃষি উপকরণের দাম বেশি হওয়ায় ফসল উৎপাদন করতে খরচ কিছুটা বেশি পড়েছে। উপকরণের দাম কম হলে উৎপাদনে খরচ কমবে। ধানের ন্যায্য দাম পেলে খরচ মিটিয়ে লাভবান হবেন তারা।
জানা যায়, গত সপ্তাহ থেকে আমন ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। আবহাওয়া ভালো থাকায় মাড়াইয়ের আগে কাটা ধান জমিতে শুকানো হচ্ছে। ধান গোলায় তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। গত বছরের ন্যায় এ বছরও ফলন ভালো হয়েছে। বিঘা প্রতি প্রায় ১৮-২০ মণ হারে ফলন হচ্ছে। তবে ফলন ভালো হলেও চাষিরা বাজারে ভালো দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন।
কৃষকেরা জানায়, জমিতে রোপণ থেকে শুরু করে সার, ওষুধ ও কাটা-মাড়াই করে ধান ঘরে তুলতে প্রায় ৮-৯ হাজার টাকা খরচ হয়। এবছর বিঘাপ্রতি প্রায় ১৮-২০ মণ হারে ফলন হয়েছে। বাজারে নতুন ধান ৫৫০-৬০০ টাকা মণ দরে বিক্রি হচ্ছে। দাম ৮০০ টাকা মণের নিচে হলে তেমন কিছুই থাকবে না।
কৃষক সাইদুর রহমান ও উৎপল কুমার জানান, প্রথমে কারেন্ট পোকার আক্রমণ হলেও কীটনাশক প্রয়োগে রক্ষা পাওয়া গেছে। তবে উৎপাদন খরচ বেশি পড়েছে। সরকার ২৬ টাকা কেজি দরে আগাম ধান কেনার ঘোষণায় তারা খুশি। তবে খোলা বাজারে দাম নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন তারা।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘চলতি রোপা-আমন মৌসুমে জেলায় প্রায় ১ লাখ ৯৭ হাজার হেক্টর জমিতে আবাদ করা হয়েছিল। সেখানে প্রতি হেক্টরে ৩ মেট্রিন টন হিসেবে প্রায় ৬ লাখ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ হবে।’




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft