শিরোনাম: 'শিগগির আবরার হত্যার বিচার হবে'       জাবি ভিসি একজন নির্লজ্জ মহিলা : আব্দুর রব       খালেদা জিয়ার মুক্তি না পাওয়ার কারণ জানালেন মান্না       তীব্র খরায় জিম্বাবুয়েতে ২০০ হাতির মৃত্যু       আ.লীগ থেকে বিএনপিতে আসার অবস্থা তৈরী হয়েছে : ফখরুল       বীতশ্রদ্ধ হয়ে বিএনপি ছেড়ে যাচ্ছেন নেতারা : হানিফ       ১৯৬ যাত্রীবাহী বিমানে আগুন       রাঙ্গার বক্তব্যের জবাব জনগণ দেবে : ড. কামাল       'জামিন পেলে চিকিৎসা নিতে বিদেশ যাবেন খালেদা জিয়া'       দুই অধ্যাপককে ফিরে পেতে ৩ তালেবানকে মুক্তি!      
যশোর শহরে ভারী যানবাহনের অবাধ প্রবেশ : উদ্বিগ্ন নাগরিকরা
শিমুল ভূইয়া :
Published : Friday, 18 October, 2019 at 6:46 AM
যশোর শহরে ভারী যানবাহনের অবাধ প্রবেশ : উদ্বিগ্ন নাগরিকরাদীর্ঘ প্রতীক্ষার ফসল যশোর শহরের রেলরোড এখন হুমকির মুখে পড়েছে। ইতোমধ্যে এ রাস্তার  বিভিন্ন জায়গায় খানাখন্দক হতে শুরু হয়েছে। পৌরসভা থেকে মেরামতের কাজ করা হচ্ছে।  শুধু রেলরোডই না, শহরের অন্যান্য রাস্তাও হুমকির মুখে পড়েছে। বহু প্রত্যাশিত এসব রাস্তা ভারী যানবহনের চাপে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। নাগরিকরা বলছেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যথাযথ নজরদারি না থাকার কারণে পণ্য বোঝাই বাহনগুলো শহরের মধ্যে যখন তখন ঢুকে পড়ছে। যানবাহনগুলোর ধারণক্ষমতার চেয়ে দ্বিগুণ মালামাল নিয়ে দিনরাত চলাচল করছে। ভারী যানবাহন শহরে যাতে প্রবেশ করতে না পারে সেই বিষয়ে কর্তৃপক্ষের জোরালো নজরদারির দাবি উঠেছে।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, সকাল আটটা থেকে রাত ১০ পর্যন্ত শহরে ভারি যানবাহন প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। শহরে প্রবেশমুখে পৌরসভা থেকে লোহার ব্যারিকেট দেয়া হয়েছে। সরেজমিনে যশোরের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনে দেখা যায় প্রবেশপথের একটি ব্যারিকেট রয়েছে শংকরপুর মুরগির ফার্মের সামনে। কিন্তু সেটা ভাঙা। আর এ সুযোগে ভারী যানবাহন প্রবেশ করছে শহরে।  বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের রেলরোড দিয়ে বিশাল গতিতে একটি কাভার্ডভ্যান চালিয়ে আসতে দেখা যায় (ঢাকা মেট্রো-ট ২৫৭১১৩)। পরে সেটি প্রবেশ করে একই রোডের আফজাল পার্সেল এন্ড কুরিয়ার সার্ভিসে।  এরপর ওই একই রাস্তা দিয়ে  একের পর এক ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও পিকআপ কোনো বাধা ছাড়াই শহরে ঢুকে যেতে দেখা যায়। এ সময় ফুড গোডাউনের সামনে রাস্তার অর্ধেক আটকে রেখে ফাল্গুনী অয়েল মিলের পণ্য একটি বড় ট্রাকে ওঠাতে দেখা যায়। আশ্রম রোডে ঢুকতেই একাধিক ট্রাক সারিবদ্ধ দাঁড়িয়ে ছিল। একটু পরপর কোনোটি শহরে প্রবেশ করে। আবার কোনো কোনোটি মালামাল লোড অথবা আনলোড করে। শংকরপুর মুরগির ফার্মের সামনে দিয়ে ইসহক সড়কের বিভিন্ন ভাংড়ির দোকানের সামনে ট্রাক লোড আনলোড করতে দেখা যায়। যেসব ট্রাকে ভাংড়ি লোড-আনলোড হচ্ছিল সেগুলো হচ্ছে, ঢাকা মেট্রো ট-১৪৭৪০০, ঢাকা মেট্রো ট-২৬৫০, খুলনা মেট্রো প-১১-০৮৩৯, ঢাকা মেট্রো ট -১৪৪৪৮৯ ও ঢাকা মেট্রো ট ১৬-৫২৪২।
এসব বিষয়ে কথা হয়  রেলরোডের স্থায়ী বাসিন্দা মনিরুল ইসলাম, করিম হোসেন, মামুনুর রহমান শক্তি, মিরাজ হোসেন, বিল্লাল মাহমুদসহ বেশ কয়েকজনের সাথে। তারা জানান, শহরে ভারী যানবাহনে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মানছে না কুরিয়ার সার্ভিসগুলো। এর বাইরে রয়েছে এই এলাকার ভাংড়ি মালামাল বোঝায় যানবাহনগুলো। এগুলো যত্রতত্র শহরে ঢুকছে আর রাস্তা নষ্ট করছে। এছাড়া দিনে দুপুরে প্রবেশ করে ব্যাপক যানজট সৃষ্টি করছে।
এছাড়া দুপুর তিনটায় শহরের প্রাণ কেন্দ্র চিত্রামোড় দিয়ে একটি যাত্রীবাহী বাস চলতে দেখা যায়। শংকরপুর রেলরোড হয়ে কয়েকটি ট্রাক বড়বাজার এলাকায় প্রবেশ করতে দেখা যায়।   
এ বিষয়ে  যশোর সদর ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (প্রশাসন) সাখাওয়াত হোসেন বলেন, যশোর শহরে ভারী যানবাহন যাতে প্রবেশ করতে না পারে এ নিয়ে তাদের কড়া নজরদারি রয়েছে। প্রতিদিন অন্তত পাঁচটি ট্রাকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। একইসাথে আটকও করা হয়। তবে অতিরিক্ত পণ্যবোঝাই সম্পর্কে পরীক্ষার  পর্যাপ্ত সরঞ্জাম নেই বলে তিনি জানান।  




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft