gramerkagoj
বুধবার ● ২৪ জুলাই ২০২৪ ৮ শ্রাবণ ১৪৩১
gramerkagoj

❒ পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ

যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে নির্যাতন এক পাষন্ডের
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৯ জুলাই , ২০২৪, ০৯:০৫:০০ পিএম , আপডেট : বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০২৪, ০৭:৪৩:১৮ পিএম
কাগজ সংবাদ:
GK_2024-07-09_668d542048b8e.jpg

যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় মারপিট ও জখমের শিকার হয়ে বাড়ি ছাড়া হয়েছেন যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের ফারজানা ইয়াসমিন। এক সময়ে সরকারি চাকরি করলেও স্বামীর পরামর্শে চাকরি ছেড়েছেন তিনি। এরপরই সুখের বদলে তার জীবনে নেমে আসে অত্যাচার ও নির্যাতন। দীর্ঘ ১০/১২ বছর ধরে চলছে এই নির্যাতন। ফারজানা তার একমাত্র শিশু সন্তান নিয়ে বিচারের আশায় ঘুরছেন দারে দারে।
ভরণপোষণ দূরের কথা ন্যূনতম খোঁজখবরও নেন না স্বামী। বাধ্য হয়ে তিনি স্বামী ষষ্টিতলা বুনোপাড়ার হোমিও ডাক্তার রেজভী কোরেশীর বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও করেছেন। রোববার মামলা করলে বিচারক বিষয়টির তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন পিবিআইকে।
মামলায় বাদী ফারজানা ইয়াসমিন উল্লেখ করেছেন, এগারো বছর আগে রেজভী কোরেশীর সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর সুখের আশায় স্বামীর পরামর্শে সরকারি চাকরি থেকে অব্যাহতি নেন। কয়েকদিন যেতে না যেতেই তার স্বামী যৌতুক হিসেবে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন। তাদের একটা দশ বছরের কন্যা সন্তান রয়েছে।
স্বামী রেজভী কোরেশী পরকীয়ায় আসক্ত হওয়ার কারণে যৌতুকের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে অত্যাচার নির্যাতন চালাচ্ছেন ফারজানা ইয়াসমিনকে। মেয়েকে ঘরে তালাবদ্ধ রেখে তার ওপর নির্যাতন করেন রেজভী। সর্বশেষ, কোরবানী ঈদের কথা বলে গত ১৫ জুন স্ত্রী ফারজানার কাছে দু’লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন রেজভী। টাকা দিতে অস্বীকার করায় ডিভোর্সের হুমকি দেন তিনি। একপর্যায়ে ঈদের আগেই ফারজানা ও তার শিশু মেয়েকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন রেজভী। ফারজানা উপায় না পেয়ে মেয়েকে নিয়ে বোনের বাসায় ওঠেন। ফারজানার পরিবার গত ৩ জুলাই রেজভীকে তার বোনের বাড়িতে ডেকে মীমাংসার চেষ্টা করেন। কিন্তু রেজভী দু’লাখ টাকা ছাড়া ফারজানা ও তার শিশু মেয়েকে নিয়ে সংসার করবেন না বলে জানিয়ে দেন। এর প্রতিবাদ করলে রেজভী লোহার পাইপ দিয়ে ফারজানাকে মারপিট করে জখম করে চলে যান। পরে পরিবারের লোকজন ফারজানাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসা শেষে ফারজানা আদালতে মামলা করেন।

আরও খবর

🔝