gramerkagoj
সোমবার ● ২৭ মে ২০২৪ ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
gramerkagoj
গোপালগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৫
প্রকাশ : বুধবার, ১৫ মে , ২০২৪, ১১:০৯:০০ এ এম , আপডেট : রবিবার, ২৬ মে , ২০২৪, ১২:১৮:৫৯ পিএম
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি:
GK_2024-05-15_664443ac19c6f.jpg

গোপালগঞ্জের সদর উপজেলা নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন মারা গেছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও ৫ জন। মঙ্গলবার (১৪ মে) রাতে সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলিয়া ভূঁইয়াপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত ওসিকুর ভূঁইয়া (২৭) গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা চন্দ্রদিঘলিয়া গ্রামের জলিল ভূঁইয়ার ছেলে। তিনি চন্দ্রদিঘলিয়া বাজারে চা বিক্রেতা ছিলেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সদ্য সমাপ্ত গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বিএম লিয়াকত আলীর সমর্থক ছিলেন ওসিকুর। হামলাকারীরা বিজয়ী প্রার্থী কামরুজ্জামান ভূঁইয়ার সমর্থক ছিলেন।
গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আনিচুর রহমান বলেন, বিএম লিয়াকত আলীর সমর্থক ওই গ্রামের জাকির বিশ্বাসের ছেলে পরশ বিশ্বাস সন্ধ্যার পর চন্দ্রদিঘলিয়া ভূঁইয়াপাড়া এলাকার একটি চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে ধূমপান করছিলেন। এ সময় কামরুজ্জামান ভূঁইয়ার সমর্থক ওই গ্রামের কালু ভূঁইয়ার ছেলে দ্বীপ ভূঁইয়া ও হিদু ভূঁইয়ার ছেলে সিমন ভূঁইয়া তার বাবার সামনে ধূমপান করায় পরশ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে পরশ বিশ্বাসকে চড়-থাপ্পড় মারে। এ ঘটনা পরশ বিশ্বাস তার বাবাকে জানালে বিএম লিয়াকত আলীর সমর্থকরা সংগঠিত হয়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে কামরুজ্জামান ভূঁইয়ার সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। এতে সংঘর্ষ বেধে গেলে কামরুজ্জামান ভূঁইয়ার সর্মথকরা গুলি ছোঁড়ে। এতে বিএম লিয়াকত আলীর সমর্থক মো. ওসিকুর ভূঁইয়া, হাকিম খন্দকার, মেহেদি বিশ্বাস ও লিমন ভূঁইয়াসহ ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গিলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ওসিকুর ভূঁইয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

আরও খবর

🔝