gramerkagoj
রবিবার ● ২১ জুলাই ২০২৪ ৬ শ্রাবণ ১৪৩১
gramerkagoj
যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের জরাজীর্ণ ছবিটি এডিট করা
প্রকাশ : বুধবার, ৩ এপ্রিল , ২০২৪, ০১:২৫:০০ পিএম , আপডেট : বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০২৪, ০৭:৪৩:১৮ পিএম
গ্রামের কাগজ ফ্যাক্টচেক ডেস্ক:
GK_2024-04-03_660d09f0055e7.jpg

গত তিন দিন ধরে যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের একটি ভবনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বেশ ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ঐ ছবিতে দেখা গেছে ভবনটির অবস্থা জরাজীর্ণ জনমানবহীন পরিত্যাক্ত অবস্থা। ছবির সাথে যা লেখা হয়েছে তা হচ্ছে ‘ভুবনটি দেখে প্রথমে মনে হবে; ইহা যুদ্ধাক্রান্ত সিরিয়ার কোনো স্থাপনা বিশেষ। আপনাদের ধারণা সূম্পর্ণ ভুল, একদম ভুল। ইহা যশোরের বিখ্যাত ‘শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলোজী পার্ক’! প্রায় তিনশো কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ভুবনটি ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর উদ্বোধনের পর মাত্র ৭ বছরেরও কম সময়ের ব্যবধানে এমতাবস্থায় পৌঁছেছে।’
গত তিনদিনে ফেসবুকের ব্যক্তিগত বিভিন্ন অ্যাকাউন্ট ও পেজ থেকে ছবিটি শেয়ার হয়েছে। অনেকে এতে কমেন্টও করেছেন।
প্রকৃত অবস্থা :
গ্রামের কাগজের ফ্যাক্টচেক টিম ছবিটির সত্যতা যাচাই করেছে। যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের দাবিতে প্রচারিত ছবিটি মূলত এডিট করা। কারণ ছবিটিতে
টেকনোলজি পার্কের যে অবস্থা দেখানো হয়েছে তার কোনো ভিত্তি নেই। বরং প্রতিদিন সেখানো হাজারো মানুষের যাতায়াত রয়েছে।
কিওয়ার্ড অনুসন্ধানে সংবাদ মাধ্যম এখন টিভির ইউটিউব চ্যানেলে ২০২৩ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ‘ যশোর আইটি পার্কে পুরোদমে চলছে প্রযুক্তি সেবা’ শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও প্রতিবেদন পাওয়া যায়। প্রতিবেদনটি থেকে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক ভবনটির ভেতরের ও বাইরের দৃশ্য পাওয়া যায়। যেখানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা কাজ করছেন এবং উন্নয়ন সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছে।
এছাড়াও পার্কের সভাকক্ষে গত ২ মার্চ শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক ইনভেস্টরস এসোসিয়েশনের সভাপতি আহসান কবীরের সভাপতিত্বে ‘শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক: চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভা হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং যশোর-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। ৩ মার্চ দৈনিক গ্রামের কাগজে এ অনুষ্ঠানের ছবি ও প্রতিবেদন ছিল। এ থেকেও পার্কটি সচল থাকার ব্যাপারে তথ্য পাওয়া যায়। এছাড়াও ‘শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক ইনভেস্টরস এসোসিয়েশন’- এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজের তথ্য থেকেও পার্কটি সচল থাকার বিষয়ে তথ্য মিলেছে।

ভাইরাল ছবিটির নেপথ্যে
ছবিটি ভাইরাল হওয়ার পরই শুধু গ্রামের কাগন নয় বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান এর সত্যতা ও প্রকৃত ঘটনা উপস্থাপনে কাজ করেছে। শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের জরাজীর্ণ অবস্থা দাবিতে প্রচারিত ছবিটির উৎস খোঁজার চেষ্টা করেছে দেশের অন্যতম পরিচিত আরেক সংবাদ মাধ্যম আজকের পত্রিকার ফ্যাক্ট চেক বিভাগ। তারা ছবিটির উৎস খুজে বের করে যা জানিয়েছে তা হুবহু তুলে ধরা হলো
‘ ফেসবুকে কিওয়ার্ড অনুসন্ধানে ‘রসিক হাকিম’ নামের একটি ফেসবুক পেজে ছবিটি নিয়ে সম্ভাব্য প্রথম পোস্টটি পাওয়া যায়। গত রোববার (৩১ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় পেজটিতে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের জরাজীর্ণ অবস্থা দাবিতে প্রচারিত ছবিটি পোস্ট করা হয়। পোস্টটির এডিট হিস্ট্রি যাচাই করে দেখা যায়, এটি পোস্ট করার পর তিনবার ক্যাপশন এডিট করা হয়েছে। প্রথমবার ক্যাপশন দেওয়া হয়েছিল, ‘শত শত বছর পুরানো আমাদের আইটি পার্ক।’ এই ক্যাপশনের সঙ্গেই প্রথমে ছবিটি যুক্ত করা হয়। পরে সকাল ৭টা ৩৮ মিনিটে ক্যাপশন এডিট করে লেখা হয়, ‘শত শত বছর পুরানো যশরের আইটি পার্ক।’ পোস্টটি শেষবার এডিট করা হয়েছে গত সোমবার (১ এপ্রিল) সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটে। ওই সময়ই দাবিকৃত ছবিটির সঙ্গে ভাইরাল ক্যাপশনটি জুড়ে দেওয়া হয়েছে। অনুসন্ধানে প্রাপ্ত এসব ফলাফলের ভিত্তিতে ধারণা করা যায়, এই পোস্ট থেকেই পরে ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।’

আরও খবর

🔝