gramerkagoj
রবিবার ● ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ৩০ চৈত্র ১৪৩০
gramerkagoj
খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি চেয়ে আবেদন
প্রকাশ : রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর , ২০২২, ০৬:৩০:১০ পিএম
ঢাকা অফিস::
1662899432.jpg
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছে তার পরিবার। রোববার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর এ আবেদন করেন।চিঠিতে খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদনও করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার দ- স্থগিত করে চলমান মুক্তির মেয়াদ ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হচ্ছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান গণমাধ্যমকে বলেন, চিঠিটি রোববার দুপুরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছানো হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এ বি এম আব্দুস সাত্তার ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বিজন কান্তি দাস চিঠি পৌঁছে দেন। এর আগে শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) খালেদা জিয়ার দ- স্থগিত করে মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদনের প্রস্তুতির কথা জানান তার বোন সেলিমা ইসলাম।গত ২৩ মার্চ বিএনপির চেয়ারপারসনের সাজা আরও ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে সরকার। খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পঞ্চমবারের মতো তার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয় ওই সময়।উল্লেখ্য, বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া নানা ধরনের শারীরিক জটিলতা রয়েছে। গত ২৮ আগস্ট এভারকেয়ার হাসপাতালে যান খালেদা জিয়া। সন্ধ্যা ৭টা ৮ মিনিটে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরেন।দুটি মামলায় দ-প্রাপ্ত খালেদা জিয়া কারাবন্দি ছিলেন। নির্বাহী আদেশে খালেদা জিয়ার দ- স্থগিত রয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদ- দেন বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত।রায় ঘোষণার পর খালেদাকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর এই মামলায় আপিলে তার আরও পাঁচ বছরের সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট।একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়াকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদ-ের আদেশ দেন একই আদালত। রায়ে ৭ বছরের কারাদ- ছাড়াও খালেদা জিয়াকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদ-ের আদেশ দেন। ২০২০ সালের মার্চে করোনা মহামারি শুরু হলে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী আদেশে দ- স্থগিত করে কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে সরকার শর্তসাপেক্ষে ৬ মাসের জন্য মুক্তি দেয়। এরপর থেকে পর্যায়ক্রমে ৬ মাস করে মুক্তি পেয়ে আসছেন বেগম খালেদা জিয়া।

আরও খবর

🔝