শিরোনাম: তাপস পালের মৃত্যুর জন্য কেন্দ্র সরকার দায়ী : মমতা       কোনোভাবেই এই সরকারকে ক্ষমতায় রাখা যাবে না : রব       মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে মার্চে ঢাকা আসছেন মোদি       ‘নদী তীরের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো উচ্ছেদ নয়’       করোনার ভ্যাক্সিন আবিষ্কার, উচ্ছ্বাস বিজ্ঞানীদের       নড়াইলে শেষ হলো দুদিন ব্যাপী শিশু মেলা       গাইবান্ধায় শিল্পকলা একাডেমির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত       বগুড়ায় বাস খাদে পড়ে নিহত ২       বিদ্যুতে ভর্তুকি ১০ বছরে ৫২ হাজার ২৬০ কোটি টাকা       মোংলা বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধিসহ একনেকে ৯ প্রকল্প অনুমোদন      
অধ্যাপক রুহুল আমিন প্রামাণি স্যার
পরিবর্তনটা ব্যাপক আকারেই হয়েছিল
ডাঃ মোঃ হাফিজুর রহমান (পান্না), রাজশাহী ব্যুরো :
Published : Monday, 27 January, 2020 at 7:32 PM
পরিবর্তনটা ব্যাপক আকারেই হয়েছিলপ্রশ্ন : তখন আপনাদের অবস্থারও কি কিছু পরিবর্তন হয়েছিল?
রুহুল আমিন প্রামাণিক স্যার : অবশ্যই। পরিবর্তনটা বলতে হবে ব্যাপক আকারেই হয়েছিল। দ্বিতীয় ক্যাম্পটির বাড়ীটির পাশে একটা ছোট খাটো স্পস থাকায় আমরা প্রতিদিনই পিটি প্যারেড করতাম। এখানেই আমরা ছাত্র ইউনিয়ন ন্যাপ ও কমিউনিষ্ট পার্টির সম্বিলিত বাহিনীর প্রধান কমরেড মোহাম্মাদ ফরহাদ’কে সামরিক কায়দায় গার্ড অব অনার প্রদান করি। কমরেড মোহম্মদ ফরহাদের সঙ্গে তখন এসেছিলেন মোজাফফর ন্যাপের মির্জা গোলাম কিবরিয়া (কাবলু) এবং ছাত্র ইউনিয়নের কাজী টুলু। তাঁরা এসময় ক্যাম্পের জন্য কম্বল, মশারি, বালিশসহ নানা খাদ্য মামগ্রী ট্রাকে করে এনেছিলেন। ক্যাম্পের সর্বক্ষেত্রে সজীবতা দেখা দেয়। মালদহ ক্যাম্পে উল্লেখযোগ্য, সংখ্যক ছাত্র ইউনিয়নের নেতা কর্মী এসময় আসা যাওয়া করেন।
রাজশাহীর বাড়ীর পাশের আব্দুর রউফ মানিক (মুক্তিযোদ্ধ, মৃত) ও তারর ছোট ভাই এ.কে.এম জাহাঙ্গীর রতন ও (মুক্তিযোদ্ধা) এসময় এসে আমাদের সাথে যোগ দেয়। রাজশাহীর প্রখ্যাত আইনজীবী, ভাষাসৈনিক ন্যাপনেতা এ্যাডভোকেট গোলাম আরিফ টিপু ভাই আমাদের এই ক্যাম্পের সঙ্গে সে সময় প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রক্ষা করতেন। তাঁর ছোট ভাই অধ্যাপক মাহবুব উল আলম শফি ভাইও মালদহ ক্যাম্পের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখতেন। আমি থাকতে কমিউনিষ্ট পার্টির এ্যাডভোকেট মঞ্জুরুল হক এই নতুন ক্যাম্পটিতে অবস্থান করেছিলেন। ৬২’র প্রখ্যাত ছাত্র নেতা আবুল হাসনাত মোহাম্মদ জামেউদ্দিন ওরফে জামিল মাস্টারকে ক্যাম্পটির ইনচার্জ করা হয়। প্রাথমিক ট্রেনিং ছাড়াও সিনিয়র ভাইদের বিশেষ করে নজরুল ভাই, আলম ভাইদের নেপালের বিরাট নগর সীমান্তের কাছে গড়বানৈলীতে উচ্চতর ট্রেনিং এর জন্য পাঠানো হয়। তাঁদেন যাবার আগে সমগ্র রাজশাহীর বেল্টের বিশেষ করে লালপুর চারঘাট অঞ্চল থেকে শুরু করে চাঁপাই নবাবগঞ্জের সীমান্ত জুড়ে বিস্তীর্ণ এলকায় আমাদের কর্মধারা কী হতে পারে সে বিষয়ে আলোচনা হয়।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft