আজ বৃহস্পতিবার, ৮ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২২ জুন ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম: পোশাক শ্রমিকদের বেতনভাতা পরিশোধ করুন        ঈদে দেশে থাকছেন না ঈশিকা খান       আওয়ামী লীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ        আজ পবিত্র জুমাতুল বিদা        মেডিকেল শিক্ষার্থীরা মাঠে নামবে চিকুনগুনিয়া ঠেকাতে        ‘প্রোফাইল পিকচার’ ঠেকাতে নতুন ফিচার চালু করছে ফেসবুক       জরায়ুর ফাইব্রয়েডের লক্ষণ ও চিকিৎসা       ভারতের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন অক্ষয়!        সংসদে অর্থমন্ত্রীকে আক্রমণ করে বক্তব্য দুঃখজনক : আমু       বিএনপির অবস্থান মুসলিমলীগের চেয়েও খারাপ হবে : ওবায়দুল      
মুচলেকায় মুক্তি নিলেও শিক্ষা হয়নি
শিশুদের উপর মানসিক চাপ চলছেই
বন্ধ হচ্ছে না ছুটির দিনে কোচিং
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Saturday, 18 February, 2017 at 12:15 AM
শিশুদের উপর মানসিক চাপ চলছেই যশোরে নির্লজ্জ অর্থ বাণিজ্যের নিমিত্তে ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে ওঠা চিহ্নিত কোচিং সেন্টারগুলো শুক্রবার ও বিভিন্ন সরকারি ছুটির দিনে খোলা রাখা অব্যাহত রেখেছে। মেধা বিকাশের নামে শিক্ষার্থীর উপর মানসিক চাপ চালিয়েই যাচ্ছে তারা। গত বছরে জাতীয় দিনে ছুটির অর্থলিপ্সু বিতর্কিতরা কোচিং খোলা রেখে আটক হয়ে মুচলেকা দিলেও শিক্ষা হয়নি।
যশোরের বিভিন্ন বাড়িতে বাড়িতে, আবার বিল্ডিং ভাড়া নিয়ে, কেউ স্কুল কলেজের কক্ষে কোচিং খুলে দীর্ঘদিন কোচিং ব্যবসা চালিয়ে আসেছে। সরসরি অনেক স্কুল শিক্ষক নেপথ্যে থেকে অভিভাবকদের রীতিমত চাপ দিয়ে কোচিং করাতে বাধ্য করিয়ে চলেছে। আর নানা বাহারি প্রচারণা চালিয়ে শিক্ষার্থীর মেধা উন্নয়নের নামে সেখানে চালানো হচ্ছে মানসিক নির্যাতন। তারা শুক্রবার ছাড়াও সরকারি বিভিন্ন ছুটির দিনে অবলিয়ায় খোলা রাখছে। তাদের এই অনৈতিক ও অমানবিক রুটিনের কারণে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা চিত্ত বিনোদনের সুযোগ পাচ্ছে না। সচেতন মহলের পক্ষ থেকে এর প্রতিকারের দাবি আসলেও কার্যত অগ্রগতি হচ্ছেনা।  
গত কয়েক বছর যশোরের কিছু স্কুলের বিতর্কিত শিক্ষক ও তাদের নিযুক্ত লোকজন বাসা বাড়িতে ব্যস্ত রোডের মোড়ে, এমনকি খোদ স্কুল-কলেজে কোচিং বাাণিজ্য করে আসছে। এ বাণিজ্য এতটাই নির্লজ্জ পর্যায়ে পৌঁছেছে যে তারা শুক্রবারসহ বিভিন্ন সরকারি ছুটির দিনেও কোচিং চালু করছে। আর ব্যাচ বৃদ্ধি ও পরীক্ষার দোহাই দিয়ে এই অমানবিকতা চলে আসছে। যশোরের ব্যস্ত কয়েকটি ব্যস্ত এলাকায় সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে আবার সাইনবোর্ড না ঝুলিয়ে বেশুমার কোচিং বাণিজ্য করছে এই চক্রটি। তাদের অপতৎপরতায় শুক্রবারেও পথ চলছে পারছেন না পথচারিরা। বিশেষ করে বিকেল পাঁচটা থেকে থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কয়েকটি ব্যস্ত সড়কে রীতিমত যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। ছুটির দিনে পরীক্ষা ফেলে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের জিম্মি করে চলেছে। আবার যেসব কোচিংয়ে স্কুল শিক্ষক জড়িত সেখানে জমদুতের মত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। যদি কেউ অনুপস্থিত থাকে তার প্রভাব পড়ে স্কুল পরীক্ষার খাতায়। একাধিক অভিভাবক অভিযোগ করেছেন, মেধা উন্নয়নের নামে তাদের শিশুদের জিম্মি করা হচ্ছে। তাদের অনেকে জানান, শুধু পড়াশুনাই মানসিক বিকাশের একমাত্র পথ নয়, কোমলমতি শিশুদের মেধা বিকাশের জন্য তাদের খেলধুলা, ভ্রমন, গান, নাটক, আবৃত্তি, নৃত্য ও ছবি আঁকাসহ আনুসাঙ্গিক নানা বিষয়সহ শিক্ষা কার্যক্রম রয়েছে। কিন্তু কোচিং বাণিজ্য যশোরে এতটাই নির্লজ্জতায় পৌঁছেছে যে বিভিন্ন জাতীয় দিবসেও শিশুদের ছাড় দেয়া হচ্ছেনা। যশোরে যত্রতত্র গড়ে ওঠা কয়েক ডজন কোচিংয়ে চলছে এসব অনাচার। এর জরুরি প্রতিকার দাবি করে বিভিন্ন মহল থেকে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হলে গত বছরের ডিসেম্বরে পুলিশ অভিযান শুরু করে। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে পাঁচটি কোচিং সেন্টার থেকে কমপক্ষে ১৬ জনকে আটক করা হয়। যাদের কেউ ওইসব প্রতিষ্ঠানের মালিক, কেউ শিক্ষক আবার কেউ কর্মচারি। ভবিষ্যতে এই অনৈতিকতায় লিপ্ত না হওয়া, বিশেষ করে সরকারি ছুটির দিন ও জাতীয় দিবসে কোচিং সেন্টার খোলা না রাখার শর্তে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেলেও অনেকে শোধরায়নি।  
এ ব্যাপারে যশোর সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতৃবৃন্দ আবারও জোর দিয়ে বলেছেন শিশুরা যাতে মানসিক বিকাশের সুযোগ না পায়, সংস্কৃতির সাথে সংশ্লিষ্ট হতে না পারে, চেতনাগত শ্রীবৃদ্ধি না ঘটে সে লক্ষে ষড়যন্ত্র চলছে। অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে অর্থলিপ্সুরা তাদের হীনস্বার্থ চরিতার্থ করতে এই অমানবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এদের লাগাম টানতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট অভিযান চালানো উচিৎ। 




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


আরও খবর
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft