আজ মঙ্গলবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৩ মে ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম: আজ ইতনা গণহত্যা দিবস       পুনর্বাসনের দাবিতে যশোরে প্রতিবন্ধী ভিক্ষুকদের অবস্থান কর্মসূচি       ‘সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে ইমামদের এগিয়ে আসতে হবে’       ক্যাম্পাসে স্বাধীনসত্তা বজায় রাখতে শিক্ষার্থীদেরই দায়িত্ব পালন করতে হবে       যশোরে লার্নিং এন্ড আর্নিং সেমিনার অনুষ্ঠিত        বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণসহ চার দফা দাবিতে যশোরে মানববন্ধন       কোচিং বাণিজ্য বন্ধে ব্যবস্থা নিন       ষোড়শ সংশোধনী : আজ ফের আপিলে যুক্তিতর্ক        ভিন্ন খবর দিলেন সুজানা       অন্য দল থেকে আ. লীগে ঢুকতে হলে অনুমতি লাগবে : ওবায়দুল কাদের      
যশোর পৌরসভার উদ্যোগে স্থাপন হচ্ছে ‘শেখ রাসেল ভাস্কর্য’
প্রণব দাস :
Published : Tuesday, 27 December, 2016 at 1:28 AM
যশোর পৌরসভার উদ্যোগে স্থাপন হচ্ছে ‘শেখ রাসেল ভাস্কর্য’জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের স্মৃতি রক্ষার্থে তাঁর একটি পূর্ণাবয়ব ভাস্কর্য যশোরে স্থাপন করা হচ্ছে। যশোর পৌরসভার উদ্যোগে শহরের চারখাম্বার মোড়ে রাস্তার মাঝে ‘শেখ রাসেল চত্ত্বর’ নামকরণ করে এটির নির্মাণ কাজ চলছে। আগামী ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে এ ভাস্কর্যের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে।
শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের সভাপতি ও যশোরের পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু জানান, ‘ফুলের মতই পবিত্র একটি নাম শেখ রাসেল। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকের বুলেট বিদ্ধ করেছিল এই নিষ্পাপ শিশুটির বুকের পাঁজর। পিতামাতার সাথে তাঁকেও নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। কি ছিল তাঁর অপরাধ আমরা জানি না। চোখের জলে আজও তাঁকে আমরা স্মরণ করি। তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে যশোরবাসীর পক্ষ থেকে পৌরসভার উদ্যোগে এ প্রয়াস। তিনি বলেন, শিশু রাসেলকে নিয়ে কিছু একটা করার স্বপ্ন ছিল; তাঁর পূর্ণাবয়ব ভাস্কর্য স্থাপনের মধ্য দিয়ে সে স্বপ্নের কিছুটা পূর্ণ হতে চলেছে।
এ ভাস্কর্য নির্মাণ শিল্পী শহিদুল ইসলাম শহীদ জানান, ভাস্কর্যে লাল কালো বেদির উপর সাদা রঙের শিশু রাসেলের পূর্ণাবয়ব স্থাপন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, নির্মম সহিংসতায় হত্যার কারণে রক্তের স্রোতধারা লাল আর শোক প্রকাশে ব্যবহার করা হয়েছে কালো রঙ। সহিংসতায় হত্যার কারণে শোকের পূর্ণাবয়বে নিষ্পাপ শিশু শেখ রাসেলের প্রতি শ্রদ্ধায় অবনত বিবেক; যা সাদা রঙের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে।
এদিকে সোমবার দুপুরে চারখাম্বা মোড়ে শেখ রাসেলের ভাস্কর্য স্থাপন কার্যক্রম সরেজমিন পরিদর্শন করেন মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু।
উল্লেখ্য, পৌরসভার উদ্যোগে সাবেক পৌর মেয়র মারুফুল ইসলাম যশোরের বিভিন্ন মোড়ে নান্দনিক ভাস্কর্য স্থাপনের কাজ শুরু করেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রায় ২ বছর আগে চারখাম্বা মোড়ে ভাস্কর্য স্থাপনে অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু করেন তিনি। তবে সাবেক পৌর মেয়র মারুফুল ইসলাম তার সময়ে পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ সম্পন্ন করতে পারেননি।
শেখ রাসেল তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের ঢাকা অঞ্চলের ধানমন্ডিতে ৩২ নম্বর বঙ্গবন্ধু ভবনে ১৮ অক্টোবর, ১৯৬৪ সালে জন্মগ্রহণ করেন। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে রাসেল সর্বকনিষ্ঠ। ভাই-বোনের মধ্যে অন্যরা হলেন বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে মুক্তিবাহিনীর অন্যতম সংগঠক শেখ কামাল, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা শেখ জামাল এবং শেখ রেহানা। শেখ রাসেল ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র ছিলেন।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট প্রত্যুষে একদল বিপথগামী তরুণ সেনা কর্মকর্তা ট্যাঙ্ক দিয়ে শেখ মুজিবুর রহমানের ধানমন্ডিস্থ ঐতিহাসিক ৩২ নম্বর বাসভবন ঘিরে ফেলে শেখ মুজিব, তাঁর পরিবার এবং তাঁর ব্যক্তিগত কর্মচারীদের সাথে শেখ রাসেলকেও হত্যা করা হয়। শেখ মুজিবের নির্দেশে রাসেলকে নিয়ে পালানোর সময় ব্যাক্তিগত কর্মচারীসহ রাসেলকে অভ্যুত্থানকারীরা তাদেরকে আটক করে। আতঙ্কিত হয়ে শিশু রাসেল কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেছিলেন, ‘আমি মায়ের কাছে যাব’। পরবর্তীতে মায়ের লাশ দেখার পর অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে মিনতি করেছিলেন ‘আমাকে হাসু আপার (শেখ হাসিনা) কাছে পাঠিয়ে দিন। কিন্তু ঘাতকরা সেদিন এই অবুঝ শিশুটিকে বাঁচতে দেয়নি।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft