মঙ্গলবার ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২৫ মাঘ ১৪২৯
                
                
☗ হোম ➤ সারাদেশ
৯৯টি ইটভাটার মধ্যে ৭৩টি’র নেই ছাড়পত্র, প্রকাশ্যে পোড়ানো হয় কাঠ
রাজবাড়ী প্রতিনিধি:
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২৩, ৬:২৬ পিএম |
রাজবাড়ীর পাঁচটি উপজেলা ও তিনটি পৌরসভার ৯৯টি ইটভাটার মধ্যে ৭৩টি ইটভাটার নেই কোনো পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র। আইনের তোয়াক্কা না করে এইসব ইটভাটায় জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে কাঠ। এতে পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। অন্যদিকে উজাড় হচ্ছে বন-জঙ্গল। আর ইটভাটার মালিকদের দাবি, জ্বালানি কয়লার দাম বেড়ে যাওয়ায় অধিকাংশ ভাটায় কাঠ পোড়াতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।
সরেজমিনে দেখা যায়, রাজবাড়ী সদর উপজেলা পৌর এলাকার সোহান ব্রিকস, রামকান্তপুর ইউনিয়নে অবস্থিত মেসার্স রাবেয়া ব্রিকস, মাটিপাড়া এলাকায় অবস্থিত মেসার্স জিসান ব্রিকস, চরলক্ষ্মীপুর এলাকার সর্দার ব্রিকস আলাদিপুরে অবস্থিত ইএমবি ব্রিকস, দর্পনারায়ণপুরে অবস্থিত ইএমবি ব্রিকস, ভগলপুরের এসআইবি ব্রিকস, খানখানাপুর এলাকার এসআইবি, টিআইবি ও এএসবি ব্রিকস, কালুখালি উপজেলার কেবি ব্রিকস, এমবিবি ব্রিকসসহ একাধিক ইটভাটায় আইনের তোয়াক্কা না করেই অধিকাংশ ইটভাটায় প্রকাশ্যে পোড়ানো হচ্ছে কাঠ। প্রতিটি ইটভাটায় কয়েক হাজার মণ গাছের গুঁড়ি স্তূপ করে রাখা। ছোট ছোট টুকরা করতে পাশেই বসানো হয়েছে অস্থায়ী স’মিল। এ যেন গাছ পোড়ানোর মহোৎসব। এছাড়াও প্রতিটি ইটভাটায় ট্রাকে করে আনা হচ্ছে কয়েক মণ কাঠ।
রাজবাড়ী সদর উপজেলার দর্পনারায়ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশেই গড়ে উঠেছে 'ইএমবি' ব্রিকস নামক অবৈধ একটি ইটভাটা। এর বিষাক্ত ধোঁয়ায় মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ক্লাস করছে শিক্ষার্থীরা।
বিদ্যালয়টির পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র কাউছার, সুমন, হিমেলসহ কয়েকজন বলে, স্কুলে ক্লাসের সময় ইটভাটার কালো ধোঁয়া সরাসরি আমাদের নাক দিয়ে শরীরে প্রবেশ করে। চোখে বালু ও ধোঁয়া ঢুকে যায়। নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। চোখেও সমস্যা হয়। ইটভাটার ট্রাক ও ভেকুসহ বিভিন্ন মেশিনের শব্দে ক্লাসের সময় আমরা স্যারদের কথা শুনতে পারি না। ইটভাটাটি সরিয়ে ফেললে আমরা পড়াশোনা ঠিকভাবে করতে পারব।
ইটভাটায় জ্বালানি কাজে কয়লার বদলে কাঠ ব্যবহার প্রসঙ্গে ভাগলপুর গ্রামের এস.আই.বি ব্রিকস এর সহকারি পরিচালক ফিরোজ সরদার বলেন, ভাটার চুল্লিতে প্রথমে খড়ি দিয়ে আগুন ধরাতে হয়। পরে কয়লা ব্যবহার হয়। তবে এখন কয়লার পরিবর্তে খড়ি ব্যবহার হচ্ছে। আগে যেখানে কয়লা ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা টন পাওয়া যেতো সেখানে এখন ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা টন। কয়লা দিয়ে ইট তৈরি করে তা বিক্রি করে খরচ পুষিয়ে ওঠা সম্ভব না। তাই বাধ্য হয়ে খড়ি দিয়ে পোড়াতে হচ্ছে।
সদর উপজেলার খানখানাপুরে এসআইবি ও টিআইবি নামের দুটি ইটভাটার মালিক আজিবর সরদার। তিনি বলেন, উপজেলার প্রতিটি ইটভাটায় খড়ি দিয়ে ইট পোড়ানো হচ্ছে। তাই আমিও কয়লার পরিবর্তে খড়ি ব্যবহার করছি। তিন থেকে চারগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে কয়লার দাম। এতো দাম দিয়ে কয়লা কিনে ইট পোড়ানো সম্ভব না। আর তাছাড়া প্রতিমণ খড়ি আমরা ১০০ থেকে ১৫০ টাকা কিনছি। তবে কয়লার দাম কমলে আমরা কয়লায় ব্যবহার করব।
জেলা সদরের খানখানাপুরে এএসবি ইটভাটার অংশীদার শাহিদ খান বলেন, 'কয়লা না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে কাঠ পোড়াতে হচ্ছে। তাছাড়া কয়লা দিয়ে পোড়ালে ইটের দামও বেড়ে যায়। সেজন্য কাঠ দিয়েই ইট পোড়ানো হচ্ছে।
আকরাম হোসেন নামের এক কৃষক বলেন, প্রতিদিন শত শত ট্রাক মাটি ইটভাটায় যাচ্ছে। ফসলি জমির ওপরের অংশ কেটে ফেলে মাটি ভাটায় আনা হচ্ছে। এ কারণে আবাদি জমির পরিমাণ কমে যাচ্ছে। ধোঁয়া ও বালুকণার কারণে গাছপালা ও পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।
স্থানীয় কয়েকজন জানান, প্রতিটি ভাটায় অনবরত কাঠবোঝাই যানবাহন প্রবেশ করে। ভাটাগুলোতে মজুদ রয়েছে হাজার হাজার মণ কাঠ। কয়লার পরিবর্তে জ্বালানি হিসেবে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে। কৃষিজমি এবং জনবসতিপূর্ণ এলাকায় গড়ে ওঠা এসব ভাটায় স্বল্প উচ্চতার টিনের তৈরি চিমনি দিয়ে ধোঁয়া বের হচ্ছে। এতে ফসলসহ পরিবেশের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। দ্রুত এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তারা।
রাজবাড়ী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এসএম সহীদ নুর আকবর বলেন, রাজবাড়ী জেলায় অধিকাংশ ইটভাটাগুলো নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে কৃষি জমিতে স্থাপন করা হয়েছে। তারপরও আবার ভাটায় কাঠ পোড়ানোর কারণে ফসলের ফলন বিপর্যয় ঘটছে। ইটভাটার কারণে কৃষি জমি হ্রাস পাচ্ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তিনি।
অবৈধ এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন পরিবেশ অধিদফতর ফরিদপুর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, রাজবাড়ী জেলার ৯৯টি ইটভাটার মধ্যে ৭৩টি ভাটাই অবৈধ। আমরা এর মধ্যে অবৈধ ইটভাটাগুলোতে অভিযান শুরু করেছি। কয়েকটি ভাটায় জরিমানা করার পাশাপাশি একটি ভাটা ভেঙে দিয়েছি। পর্যায়ক্রমে সকল অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেব।
এ বিষয়ে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে অভিযান শুরু হয়েছে এবং ভাটায় খড়ি পোড়ানোর বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।


গ্রামের কাগজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন


সর্বশেষ সংবাদ
অপেক্ষায় যশোর বোর্ডের ১ লাখ পরীক্ষার্থী
মনোমুগ্ধকর আয়োজনে যশোরে পুলিশ সমাবেশ ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা
যশোরে দু’দিনব্যাপী আইটি মেলার সমাপনী
সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের নির্বাচন ২০ মার্চ
বিসিক চেয়ারম্যানের যশোর পরিদর্শন, দিলেন নানা প্রতিশ্রুতি
আগের তুলনায় রাজস্ব অনেক বেড়েছে : কৃষিমন্ত্রী
ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ১১ জন হাসপাতালে ভর্তি
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
আলোচিত নীলা এবার খুলনা কারাগারে
তুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত বেড়ে ৫৬০
যশোরে আইটি মেলা ও শীত উৎসবের উদ্বোধন
এলাকা ছাড়ছে সাতক্ষীরা উপকূলের মানুষ
চুড়ামনকাটিতে যুবককে ছুরিকাঘাত
ধ্বংসযজ্ঞের নিচে শুধু লাশের স্তুপ
এশিয়া কাপ পাকিস্তানে, ভারতের ম্যাচ আমিরাতে!
আমাদের পথচলা | কাগজ পরিবার | প্রতিনিধিদের তথ্য | অন-লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য | স্মৃতির এ্যালবাম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন | সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
কপিরাইট © গ্রামের কাগজ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft