সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
                
                
☗ হোম ➤ সারাদেশ
চট্টগ্রামে পিবিআই এসপির মামলায় বাবুলকে গ্রেপ্তার দেখানোর নির্দেশ
মুহাম্মদ দিদারুল আলম, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি :
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২, ২:২১ পিএম |
পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) চট্টগ্রাম মেট্রো ইউনিটের এসপি নাইমা সুলতানার করা মামলায় সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) অতিরিক্ত চিফ চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল হালিম পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (প্রসিকিউশন) কামরুল হাসান বলেন, নগরীর খুলশী থানায় করা এই মামলায় বাবুলকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত তা মঞ্জুর করেন।
শুনানি উপলক্ষে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আজ বাবুলকে চট্টগ্রামের আদালত হাজির করা হয়। পরে তাকে আবার কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।
বাবুলের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ বলেন, আমার মক্কেল জামিন চেয়ে আদালতে আবেদন করেছেন। এ ছাড়া আইনজীবীর সঙ্গে এক ঘণ্টা কথা বলার জন্যও আবেদন করা হয়েছে। দুটি আবেদনই পরবর্তী সময় শুনানির জন্য রেখেছেন আদালত।
পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ সুপার নাইমা সুলতানা গত ১৯ অক্টোবর নগরের খুলশী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি করেন।

মামলায় বাবুল ছাড়াও ইলিয়াস হোসাইন, বাবুলের ভাই হাবিবুর রহমান ও বাবা ওয়াদুদ মিয়াকে আসামি করা হয়। মামলায় বাবুলের স্ত্রী মাহমুদা খানম হত্যা মামলা নিয়ে মিথ্যা-অসত্য তথ্য সরবরাহ-প্রচারের অভিযোগ আনা হয়।
একই অভিযোগে এই আসামিদের বিরুদ্ধে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার।
পিবিআই বলছে, মাহমুদা হত্যা মামলা নিয়ে আসামিরা ফেসবুক-ইউটিউবে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছেন। এতে পিবিআই ও সংস্থাটির প্রধানের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুণ্ন হয়েছে। বাবুল, হাবিবুর ও ওয়াদুদের যোগসাজশে বিদেশে থাকা ইলিয়াস মিথ্যা তথ্য প্রচার করেন।

ইলিয়াসের ভিডিও প্রকাশের পর পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদারসহ ছয় পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলার আবেদন করেছিলেন বাবুল। তবে তাঁর আবেদন খারিজ করে দেন আদালত।
ছয় বছর আগে সন্ত্রাসীর গুলিতে স্ত্রী মাহমুদা খানম খুন হওয়ার পর এই চেহারায় দেখা গিয়েছিল সে সময়ের পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারকে
২০১৬ সালের ৫ জুন চট্টগ্রাম নগরের জিইসি মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে গিয়ে গুলি ও ছুরিকাঘাতে নিহত হন বাবুলের স্ত্রী মাহমুদা।
মাহমুদা হত্যা মামলায় বাবুলসহ সাতজনকে আসামি করে ১৩ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পিবিআই। বাবুল ছিলেন এই মামলার বাদী। বাদী থেকে তিনি হয়েছেন প্রধান আসামি।


গ্রামের কাগজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন


সর্বশেষ সংবাদ
জালিয়াতি আড়াল করতেই মামলা করেছেন আমজাদ
কৃষি মেলায় দৃষ্টি কেড়েছে ‘কৃষিতে বঙ্গবন্ধু’
বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা
এবার বেলজিয়ামকে হারিয়ে মরক্কোর চমক
মুসলিম এইডের ফ্রি ল্যাপটপ ও সনদপত্র বিতরণ
জাপানকে হারিয়ে টিকে রইলো কোস্টারিকা
সচিবদের সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
কাউন্সিলর নয়নকে মারপিট
অতিথি পাখি ধরতে ‘ডিজিটাল ফাঁদ’
অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বে আওয়ামী লীগের ভরাডুবি, বিএনপির চমক
বিচার চাইতে হাইকোর্টে সালাম মুর্শেদীর মেয়ে ব্যারিস্টার ঐশী
বেনাপোলে ইঞ্জিন ভ্যানের মধ্যে থেকে কোটি টাকার স্বর্ণ উদ্ধার
জনগণ খুনিদের সঙ্গে নেই : প্রধানমন্ত্রী
ভারত বাদ, চীনের নেতৃত্বে বৈঠকে বাংলাদেশসহ ১৯ দেশ
আমাদের পথচলা | কাগজ পরিবার | প্রতিনিধিদের তথ্য | অন-লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য | স্মৃতির এ্যালবাম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন | সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
কপিরাইট © গ্রামের কাগজ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft