আজ মঙ্গলবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৩ মে ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম: আজ ইতনা গণহত্যা দিবস       পুনর্বাসনের দাবিতে যশোরে প্রতিবন্ধী ভিক্ষুকদের অবস্থান কর্মসূচি       ‘সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে ইমামদের এগিয়ে আসতে হবে’       ক্যাম্পাসে স্বাধীনসত্তা বজায় রাখতে শিক্ষার্থীদেরই দায়িত্ব পালন করতে হবে       যশোরে লার্নিং এন্ড আর্নিং সেমিনার অনুষ্ঠিত        বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণসহ চার দফা দাবিতে যশোরে মানববন্ধন       কোচিং বাণিজ্য বন্ধে ব্যবস্থা নিন       ষোড়শ সংশোধনী : আজ ফের আপিলে যুক্তিতর্ক        ভিন্ন খবর দিলেন সুজানা       অন্য দল থেকে আ. লীগে ঢুকতে হলে অনুমতি লাগবে : ওবায়দুল কাদের      
আশকোনায় হানিফের মৃত্যু নিয়ে স্বরাষ্টমন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা চাইলেন ফখরুল
কাগজ ডেস্ক :
Published : Monday, 20 March, 2017 at 8:46 PM
আশকোনায় হানিফের মৃত্যু নিয়ে স্বরাষ্টমন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা চাইলেন ফখরুলরাজধানীর আশকোনায় আত্মঘাতী হামলার পর র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার যুবকের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গত শুক্রবার ব্যারাকে আত্মঘাতী হামলার পর গ্রেফতার আবদুল হানিফ মৃধা অসুস্থ হয়ে মারা যান বলে র‌্যাবের দাবি। অন্যদিকে হানিফের পরিবারের দাবি, গত মাসে তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে ধরে নেওয়া হয়েছিল। ফখরুল সোমবার ঢাকায় এক আলোচনা সভায় বলেন, আমি স্পষ্ট ব্যাখ্যা দাবি করছি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে। তিনি প্রশ্ন রাখেন, এ ধরনের যুবকদের তুলে নিয়ে গিয়ে জঙ্গি বানিয়ে হত্যা বা জঙ্গিবাদকে প্রকাশ করা হচ্ছে কি না। তিনি বলেন, কোনটি সত্য? র‌্যাবের ব্যাখ্যা সত্য, না কি তার পরিবারের সদস্যের ব্যাখ্যা সত্য। যদি পরিবারের কথা সত্য হয়ে থাকে, আমরা কোন দেশে বাস করছি? আমি দাবি করছি, সুষ্ঠু তদন্ত করে সঠিত তথ্য জানাতে হবে। হানিফের সন্ধান চেয়ে গত ৪ মার্চ নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন তার ভাই আবদুল হালিম মৃধা। তাতে বলা হয়, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি হানিফ মৃধা ও তার এক বন্ধুকে নারায়ণগঞ্জের কাচপুর থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয়। গত শনিবার বিকালে হানিফের লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে গেলে তার মৃত্যুর খবরটি জানাজানি হয়। তার আগের দিন র‌্যাব তাকে গ্রেফতারের বিষয়ে কিছু জানায়নি। লাশ মর্গে যাওয়ার পর র‌্যাব জানায়, শুক্রবার আশকোনায় আত্মঘাতীর বিস্ফোরণ ঘটানোর পর বিকালে ওই এলাকা থেকে সন্দেহভাজন হিসেবে হানিফকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু ঘটে। এদিকে হানিফ নিখোঁজ হওয়ার পর তার পরিবার যে জিডি করেছিল, তা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি গত রোববার জানান। হানিফের প্রসঙ্গটি তুলে সরকারের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলে জঙ্গিবাদ ব্যবহার করার অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। এই সরকার একটা গভীর ভয়ঙ্কর খেলায় মেতেছে, সেই খেলা বাংলাদেশকে কোথায় নিয়ে যাবে আমরা জানি না। বাংলাদেশকে আজ জঙ্গিরাষ্ট্র হিসেবে চিহ্নিত করা শুরু হয়ে গেছে। সরকার জঙ্গিবাদকে বিরোধী দল দমনের হাতিয়ার করেছে দাবি করে ফখরুল বলেন, জঙ্গিবাদ নিয়ে খেলবেন না। এর সুষ্ঠু তদন্ত করুন। কোথায় এর মূল কারণ, সেটা বের করুন। কোথায় জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটছে, এটা বের করতে হবে এবং এর সমাধান করতে হবে। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে জোট শরিক এনপিপির আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন ভারত সফরে জনগণের প্রত্যাশা নিয়েও কথা বলেন। আমরা তিস্তা নদীর পানি চাই। আমরা ফারাক্কা বাঁধে যে সর্বনাশ হয়েছে, তার পুনরাবৃত্তি চাই না। আমাদের সীমান্তে যেন অন্যায়ভাবে হত্যা করা না হয় এবং অন্যান্য যেসব বিষয় রয়েছে, সেগুলোর সমাধান করতে হবে। কিন্তু স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব বিপন্ন হয়, দেশের স্বার্থের বিপরীতে যায়, ভারতের সঙ্গে এমন কোনো চুক্তি না করতে সরকারকে হুঁশিয়ার করেন তিনি। নির্বাচনকালীন ‘সহায়ক সরকার’ গঠনের দাবি আবারও জানান বিএনপি মহাসচিব। তাঁত শিল্প নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের অবদান তুলে ধরেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তাঁত শিল্প শেখ মুজিবুর রহমান চলে যাওয়ার পরে ধ্বংস হয়ে গেছে। ঐতিহাসিক সত্যটা কী? শহীদ জিয়্উার রহমান তাঁত শিল্পকে পুনরুজ্জীবিত করেছিলেন। তাঁত বোর্ড গঠন করেছিলেন, সেই বোর্ড গঠন করার মধ্য দিয়ে পববর্তীকালে তাঁত শিল্পে অনেক বেশি উন্নয়ন হয়েছে। এনপিপি চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, বিএনপির নিতাই রায় চৌধুরী, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, খোন্দকার লুৎফর রহমান, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানীর আজাহারুল ইসলাম চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, ডিএল‘র সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন বক্তব্য রাখেন।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft