শিরোনাম: সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ       বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এল জুলাইয়ে       ইতালিতে প্রবেশের অপেক্ষায় হাজারও বাংলাদেশি       স্বামীর বাড়ি গিয়ে নববধূ জানলেন তার করোনা       যশোরের আসলাম ঢাকার মানবিক যুবলীগ নেতা        রাত ১০টার পর বাইরে বের হওয়া নিষিদ্ধ       মানুষের মন জয় করে বিদায় নিচ্ছেন রামগড়ের ইউএনও বদরুদ্দোজা       কেশবপুরে দুই দল মাদক বিক্রেতার মধ্যে গুলি বিনিময়, নিহত ১       বাগেরহাটে করোনায় আক্রান্ত আরও ২৬ জন        জয়পুরহাটে ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক কারবারি আটক      
করোনা চিকিৎসায় সরাসরি অংশগ্রহণ
সরকারি সহযোগিতা চান স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা
আশিকুর রহমান শিমুল :
Published : Thursday, 16 July, 2020 at 1:40 AM
সরকারি সহযোগিতা চান স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা
দেশের স্বাস্থ্যসেবায় গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছেন মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা। এদের কথা অনেকেরই অজানা। করোনা দুর্যোগে যখন সবাই ঘরে থাকার চেষ্টা করছে ঠিক সেই সময় বিরামহীন কাজ করে চলেছেন মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ম অনুযায়ী, একজন চিকিৎসকের বিপরীতে পাঁচজন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট থাকার কথা। কিন্তু বাংলাদেশের চিত্রটি পুরো উল্টো। প্রতি ১০ হাজার মানুষের জন্যে শূন্য দশমিক ৩২ জন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট কাজ করছেন।
এ অবস্থায় করোনা দুর্যোগের মধ্যে সরকার মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করার  আহ্বান জানায়। সরকারের ডাকে সাড়া দিয়ে যশোরের তিন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট প্রথম দিন থেকেই করোনা মোকাবেলায় স্বেচ্ছাশ্রম দিচ্ছেন। তারা হচ্ছেন, সদর উপজেলার ইছালী গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে রাকিবুল ইসলাম রাকিব, তবিবর রহমানের ছেলে রায়হান হাসান ও কেশবপুর বাজারের হাবিবুর রহমানের ছেলে সোহেল রানা।
মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা জানান, যখন থেকে দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে তখন থেকে তারা ঝুঁকি নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে তাদের অনেক সহকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তারা আক্রান্ত হয়েছেন নমুনা সংগ্রহ করতে গিয়ে। এতে তাদের পরিবার পরিজন চরম ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। ল্যাবে এবং মাঠে কাজ করতে গিয়ে ঠিকমতো খাওয়া দাওয়ার সময় পান না। বাড়ি ফিরে সন্তানদের সাথে সময় কাটাতে ভয় পান। এসব স্বেচ্ছাসেবী সরকারি সহযোগিতা কামনা করেছেন।
এ ব্যাপারে যশোর সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ও মিডিয়া ফোকাল পার্সন রেহেনেওয়াজ বলেন, মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা হচ্ছেন বর্তমান সময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তারাই মাঠ পর্যায়ে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ থেকে শুরু করে পরীক্ষার রিপোর্ট পর্যন্ত সবকিছু করছেন। বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে তারা খুবই আন্তরিকভাবে দেশের জন্যে কাজ করছেন বলেই এখনো পর্যন্ত সবকিছু নিয়ম মাফিক চলছে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft