শিরোনাম: মাদক কারবারিরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে        আদালতে ভার্চ্যুয়াল প্রদ্ধতির অবসান হচ্ছে আজ        সদরে ৭২ জনসহ নতুন ১৩৮ জন শনাক্ত       কুরবানি চইলে গেচে শিক্কেডা যেন থাইকে যায়       যশোরের একমাত্র নারী ক্রিকেট কোচ তিন্নির মৃত্যু        যশোর পৌরসভায় যুক্ত হচ্ছে ৭ বর্গ কি.মি.       সর্বকালের সর্বনিম্ন দরে লেনদেন       ‘জাতীয় পার্টি গণমানুষের আস্থার রাজনৈতিক শক্তি’       চট্টগ্রাম সিটির প্রশাসক হলেন আ.লীগ নেতা সুজন       প্রথমবারের মতো সরকারিভাবে পালিত হবে শেখ কামালের জন্মদিন       
মণিরামপুর উপজেলা প্রশাসনের মানবিক উদ্যোগ
করোনায় মৃতদের সম্মানের সাথে সৎকারে ১৭ টিম
কাগজ সংবাদ
Published : Saturday, 11 July, 2020 at 12:21 AM
করোনায় মৃতদের সম্মানের সাথে সৎকারে ১৭ টিমযশোরের মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দু’দিন ধরে অনুষ্ঠিত হয়েছে এক মানবিক প্রশিক্ষণ। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিকে ছাপিয়ে দু’পাশে বসা দু’জন প্রশিক্ষক ধর্মীয় আচার আর রীতিনীতি শেখালেন আগতদের। হঠাৎ কেউ দেখলে ভেবে বসবেন কোনো ধর্মীয় সভা হচ্ছে। কখনো শেখানো হচ্ছিল মুসলিম রীতি। আবার কখনো সনাতনী রীতি। এরমধ্যে স্বাস্থ্যবিধি আর স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর যথাযথ ব্যবহারও শেখানো হয়। প্রশিক্ষণ আসলে সর্বনাশা করোনার কবলে পড়ে মৃত্যুবরণকারী ব্যক্তিদের নিজ নিজ ধর্ম অনুসরণ করে শেষ বিদায় জানানোর প্রস্তুতি।
প্রতিটি মৃত্যু কতটা কষ্টদায়ক সেটা ভুক্তভোগী মাত্রই জানে। অন্তিম যাত্রায় সবাই চায় প্রিয়জনের সান্নিধ্য এবং মৃত্যুর পর স্বজনের পরম মমতায় শেষকৃত্য। অথচ প্রাণঘাতি ভাইরাস কোভিড -১৯ মানুষের সেই শেষ চাওয়াটুকু থেকেও বঞ্চিত করছে। করোনা টেস্ট পজিটিভ এই সংবাদটুকু শোনা মাত্র অনেকইে বেঁচে থাকতেই ভোগ করছেন অমানবিক আচরণ। কখনো পরিবার পরিজন, কখনোবা পাড়া প্রতিবেশীর শিকার হচ্ছেন তারা।  আর মৃত্যু হলে তো কথায় নেই। লাশ ফেলে স্বজনের আত্মগোপন এখন নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। নির্মম নিয়তির শিকার এ ধরনের মানুষের পাশে স্বজন হয়ে থাকার দীপ্ত প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে মণিরামপুর উপজেলা প্রশাসন। যদিও এখনো এই উপজেলায় কোনো করোনা রোগীর মৃত্যু হয়নি। তারপরও আগাম প্রস্তুতি হিসেবে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে গঠন করা হয়েছে দাফন ও অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া কমিটি। যার যার ধর্মীয় রীতি ও আচার অনুযায়ী সম্মানের সাথে শেষবিদায় নিশ্চিতে কাজ করবে তারা। প্রতিটি ইউনিয়নে ছয়-সাতজন স্বেচ্ছাসেবক নির্বাচিত করা হয়েছে। এসব স্বেচ্ছাসেবককে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সুপারভাইজার মঈন উদ্দীন খান, পিপিই প্রশিক্ষক মাওলানা শাহীনুর রহমান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার জসিম উদ্দিন ও মোবারকপুর মহাশ্মশান পরিচালনা কমিটির সভাপতি জগবন্ধু বিশ^াস।
মণিরামপুর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি তুলসী দাস বসু উদ্যোগটি সম্পর্কে বলতে গিয়ে আবেগ আপ্লত হন। তিনি বলেন আগে মানবতা তারপর যার যার ধর্ম। এই উদ্যোগ মানবতাকেই প্রতিষ্ঠিত করেছে।
মণিরামপুর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুনীল ঘোষ জানান, উপজেলা ১৭টি ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবকদের দু’দিনে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এসব স্বেচ্ছাসেবীকে পিপিই, মাস্ক, গ্লাভসসহ সব ধরনের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করবে উপজেলা প্রশাসন।
মানবিক এ কর্মসূচি সম্পর্কে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ জাকির হাসান জানান, করোনায় আক্রান্তদের পাশে  সার্বক্ষণিক থাকবে উপজেলা প্রশাসন। সুস্থতার জন্যে যেমন নেয়া হবে উদ্যোগ, তেমনি কেউ মারা গেলে সসম্মানে সমাহিত করার জন্যেও নেয়া হয়েছে প্রস্তুতি। মৃতদেহের স্ব স্ব ধর্ম অনুযায়ী সমাহিত করার জন্য ১৭টি ইউনিয়নে ১৭টি টিম গঠন করা হয়েছে। তালিকাভুক্ত স্বউদ্যোগীদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। প্রশিক্ষণে স্বেচ্ছাসেবীদের মানসিকভাবে শক্তি যোগানোর পাশাপাশি ধর্মীয় রীতি যথাযথ অনুসরণের সাথে সাথে স্বাস্থ্যবিধি মানা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর যথাযথ ব্যবহার শেখানো হয়েছে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft