শিরোনাম: নিষিদ্ধ পোল্ট্রি লিটার সরবরাহের দায়ে ২০ হাজার টাকা জরিমানা       মণিরামপুরে বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও       স্বপ্ন দেখোর মাদকবিরোধী প্রীতি ফুটবল ম্যাচ        ডুমুরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় সাবেক স্কুলশিক্ষক নিহত       মহেশপুরে ভারতীয় মদ ও ফেনসিডিলসহ ব্যবসায়ী আটক       পর্বতারোহী রেশমার দাফন নড়াইলে সম্পন্ন       মা-বাবাসহ মাশরাফির পরিবারের চার সদস্য করোনায় আক্রান্ত       বাঁকড়ায় ভারতীয় নাগরিকের আত্মহত্যা       করোনায় যশোরে আরও একজনের মৃত্যু       যশোরে বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন উদযাপন       
ডাক দিয়েছেন দয়াল আমারে..
Published : Tuesday, 7 July, 2020 at 10:51 PM
ডাক দিয়েছেন দয়াল আমারে..দয়ালে ডাক দিলি তারে ঠেকায় রাকায় ক্ষেমতা তামান দুইনেয় কারো নেই। চইলে স¹লির যাতি হবে দুইদিন আগে আর পরে। কিন্তুক কিছু কিছু মানসির চইলে যাওয়াডা মাইনে নিতি খুব কষ্ট হয়। তার জীবনের গল্পডা ইরাম কইরে শেষ হইয়ে যাক তা কেউই চায়নি। আত্মাডা দেহের পিঞ্জর খুইলে আকাশে মেইলেচে ডানা। বাইচে থাকতি কতবার কইয়ে গেচেন আমি চিরকাল পেমেরই কাঙাল কিম্বা সবাইতো ভালবাসা চায়। তার চাওয়াডা কি আমরা পাওয়া কত্তি পারিচি? ১৯৪৭ সালের দেশভাগের সুমায় ক্ষিতিশ চন্দ্র বাড়ৈ আর মিনু বাড়ৈ আদি নিবাস গুপালগঞ্জের কুটালীপাড়াত্তে চইলে আইলেন রাজশাহী। খিস্টান মিশন হাসপাতালে চাকরি কত্তেন তারা। ১৯৫৫ সালের ৪ নভেম্বর তাগের কোল জুইড়ে আইলো এন্ডু কিশোর। কিশোর বয়সেই বাপ মা মইরে যায়। তকনতেই বড় বু ডাক্তার শিখা বিশে^সের আদর যতেœ তিনি বাইড়ে উঠিলেন। শেষ নিশে^সটাও তার চইলে গ্যালো এই বড় বুনির বাড়িতিই। রাজশাহীতিই ছিলো তার নাড়িপুতা, স্যানেই তার সারাদেহডা খাইয়ে যাবে মাটিতি। মফস্বলেত্তে ঢাকায় গেলি তারে কেউ জাগা দিতি চায় না। তার বেলায়ও এইডে ছিলো। বহু লোক আড়ে আবডালে তারে কিটিসাইজ কইরেচে। নাম বেখস্ত কইরে টিটকেরি কইরেচে আন্ডা কিশোর কইয়ে। কিন্তুক দইমে যাবার ছাবাল তিনি ছিলেন না। তফাততে আইসেও নিজির জাগা নিজি বানায় নেচেন। তবু মনের সেই দুক্কি তিনি নিজেরে পরিচয় দেতেন কণ্ঠশ্রমিক হিসেবে, কখনো কণ্ঠশিল্পী কতেন না। য্যানে এট্টা শিল্পীর জাতীয় চলচিত্র পুরস্কারের জন্যি টিটটিরে পাকির মতো অপেক্ষা কত্তি হয় স্যানে তিনি আট আটবার এই পুরস্কার বাগায় নেচেন। ২০১৯ সালের ৯ সেপ্টেম্বরেত্তে ২০২০ সালের ১০ জুন পন্তিক ক্যানসার চিকিসসের জন্যি সিঙ্গাপুরি ছিলেন। ১৮ সেপ্টেম্বর তার বিলাড ক্যানসার ধরা পড়ে। এই হাসপাতালত্তেই টিটমেন নিয়ে ২০০৭ সালে আরাক গুনি শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন খালা ভালো হইয়ে বাড়ি ফিরিলেন। স¹লি ভাবিলো তিনিও ভালো হইয়ে ফেরবেন। কিন্তক রঙিন ফানুস যে দম ফুরোলি ঠুশ স্যানে কারো হাত নেই। ডাক্তার যকন না কইরে দিলো তকন তিনি হুটোপাাটা কইরে দেশে ফিরে আইলেন। দেশের মাটিেিত যেন শেষ নিশে^ষডা নিতি আর ছাইড়ে যাতি পারেন। বাইচে থাকতি যারা তারা দাম দিতি চাইনি একন মইরে গিলি হায় হায় কচ্চে তাগের জন্যি আগেত্তেই গাইয়ে গেচেন কত রঙ্গ জানো রে মানুস কত রঙ্গ জানো। তিনি চইলে গেচেন কিন্তুক তিনি থাইকে যাবেন সবার বুকির মদ্দিখানে, মন যেকেনে হৃদয় যেকেনে।
ইতি
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮ ৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft