শিরোনাম: যশোরে আক্রান্ত হাজার ছাড়াল       মণিরামপুরে কালোবাজারে চাল বিক্রির মামলায় আটক কুদ্দুসের আদালতে স্বীকারোক্তি       পাওনা টাকা চাওয়ায় হত্যার হুমকি নিরাপত্তাহীনতায় জুয়েলের পরিবার       ঈদের ছুটি ৩ দিন, কর্মস্থল ত্যাগ করা যাবে না       ৭ মার্চ ‘জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস’       বাড়ি বসে পাবে ৪০ প্যাকেট করে বিস্কুট       সাতক্ষীরার এমপি মোস্তাক আহমেদ করোনায় আক্রান্ত        ভাই-ভাইপোদের ভয়ে বাড়িতে পাহারাদার নিয়োগ!       বেনাপোল কাস্টম হাউজের তিন কর্মকর্তা বরখাস্ত       ঝিনাইদহে ১০ লাখ টাকার ভেজাল কসমেটিকস উদ্ধার, দু’জনের জেল       
করোনাকালে গত দু’মাসে যশোর ত্রাণ ও পূনর্বাসন কার্যালয়ের ৮ উপজেলায় বরাদ্দ
চার লাখ পরিবারে সরকারি সহায়তা
জাহিদ আহমেদ লিটন :
Published : Sunday, 31 May, 2020 at 12:22 AM
চার লাখ পরিবারে সরকারি সহায়তাকরোনা মহামারীতে যশোরে কর্মহীন চার লাখ পরিবার পেয়েছে সরকারি সহায়তা। এরমধ্যে নগদ টাকা পেয়েছে এক লাখ ৭৯ হাজার ৭৭৮টি পরিবার, চাল পেয়েছে দুই লাখ সাত হাজার ৬শ’টি পরিবার ও শিশু খাদ্য পেয়েছে ১১ হাজার পরিবার। সরকারি এ অনুদান পেয়ে উপকৃত হয়েছেন কর্মহীন গরীব মানুষ।
গত দু’মাস যাবৎ আট উপজেলা এলাকার মানুষের মাঝে এ সহায়তা বিতরণ করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে এ বরাদ্দের প্রায় সোয়া কোটি টাকা ও দুই হাজার টন চাল বিতরণ করেছেন।
সূত্র জানায়, পৃথিবীতে করোনা মহামারী ছড়িয়ে পড়ার পর গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এরপর করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে গোটা দেশে। এ পরিস্থিতিতে সরকার দেশে লকডাউন ঘোষণা করে। এ কারণে বেকার ও ঘরবন্দী হয়ে পড়ে শ্রমজীবী মানুষ। তাদেরকে পরিবার নিয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। এসময় তাদের পাশে এগিয়ে আসে সরকার। কর্মহীন মানুষের এ অবস্থা বিবেচনায় এনে সরকারি বিশেষ বরাদ্দ দেশের ৬৪ জেলায় বিতরণ করা হচ্ছে। এ কাজের মূল দায়িত্ব পালন করছেন জেলা প্রশাসকরা। জেলা ত্রাণ ও পূনর্বাসন কার্যালয়ের মাধ্যমে গোটা জেলার গরীব মানুষের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে বিশেষ এ সহায়তা। যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ গত ২৫ মার্চ থেকে জেলাব্যাপী ত্রাণ বিতরণের এ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে উপকৃত হচ্ছেন গ্রাম পর্যায়ের দরিদ্র মানুষ।
যশোর ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, যশোরে করোনা পরিস্থিতিতে কর্মহীন চার লাখ পরিবার জেলা প্রশাসনের সহায়তা পেয়েছে। গত ২৫ মার্চ থেকে সহায়তার এ কার্যক্রম শুরু হয়। ১৮ মে পর্যন্ত দু’মাসে জেলার আটটি উপজেলা এলাকায় বিপুল পরিমান ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। গোটা জেলায় এ সহায়তা পেয়েছে তিন লাখ ৯৮ হাজার ৩৭৮টি পরিবার। এসব পরিবারের সদস্য সংখ্যা ১১ লাখ ৮০ হাজার। এরমধ্যে জিআর বরাদ্দ থেকে নগদ এক কোটি ১০ লাখ ১৭ হাজার টাকা পেয়েছে এক লাখ ৭৯ হাজার ৭৭৮টি পরিবার। যশোর সদর উপজেলায় এ বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে ১২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, মণিরামপুর উপজেলায় ১২ লাখ ৭৬ হাজার টাকা, কেশবপুর উপজেলায় ৮ লাখ ১৫ হাজার টাকা, শার্শায় ১৮ লাখ ১৩ হাজার টাকা, ঝিকরগাছায় ২৭ লাখ ২৩ হাজার টাকা, অভয়নগরে ৬ লাখ ২ হাজার টাকা, বাঘারপাড়ায় ৭ লাখ ৫ হাজার টাকা ও চৌগাছায় ৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। যার মোট পরিমাণ এক কোটি ৩৪ হাজার টাকা। এছাড়া জেলার ৮টি পৌরসভায় বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৯ লাখ ৮৩ হাজার টাকা। এরমধ্যে যশোর পৌরসভায় ২ লাখ ৬১ হাজার টাকা, মণিরামপুর পৌরসভায় ১ লাখ ৩ হাজার টাকা, কেশবপুর পৌরসভায় ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা, বেনাপোল পৌরসভায় ১ লাখ ৭ হাজার টাকা, ঝিকরগাছা পৌরসভায় ৮৯ হাজার টাকা, নওয়াপাড়া পৌরসভায় ১ লাখ ২৮ হাজার টাকা, বাঘারপাড়া পৌরসভায় ৮৫ হাজার টাকা ও চৌগাছা পৌরসভায় ৮৫ হাজার টাকা। কর্মহীন দরিদ্র মানুষকে ডাল, আলু, পিয়াজ কেনা বাবদ বিপুল পরিমাণ এ টাকা জেলাব্যাপী বিতরণ করা হয়।   
একইসাথে জিআর বরাদ্দের মোট ২ হাজার ৭৬ মেট্রিকটন চাল বিতরণ করা হয়েছে। এতে উপকৃত হয়েছে দুই লাখ সাত হাজার ৬শ’টি পরিবার। শিশুখাদ্য কেনা বাবদ বিতরণ করা হয়েছে ৩৩ লাখ টাকা। যার মাধ্যমে উপকৃত হয়েছে ১১ হাজার পরিবার। এ হিসেবে জেলায় সরকারি সহায়তায় উপকৃত পরিবারের সংখ্যা তিন লাখ ৯৮ হাজার ৩৭৮টি। যশোরের আটটি উপজেলা এলাকার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে নগদ টাকা ও চাল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিশেষ এ বরাদ্দের সহায়তা সাধারণ গরীব মানুষের মাঝে বিতরণ করছেন। যারা করোনার এ ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ঘরে বসে অসহায়ভাবে দিন কাটাচ্ছেন, চাল, শিশুখাদ্যসহ নগদ টাকার এ সহায়তা এসব মানুষের মাঝে আশির্বাদ হয়ে দেখা দিয়েছে। অন্তত পরিবার নিয়ে তাদের না খেয়ে থাকতে হচ্ছে না। সহায়তার কারণে কোনভাবে তাদের দিন কেটে যাচ্ছে।
এ বিষয়ে জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ছানোয়ার হোসেন বলেন, করোনার সংকটময় এ পরিস্থিতিতে গরীব মানুষ যাতে খাদ্য সমস্যায় না পড়ে সেদিকটি বিশেষভাবে দেখছে বর্তমান সরকার। সে কারণে সরকারি বরাদ্দ অব্যাহত রয়েছে। তারা জেলাব্যাপী জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে সরকারি এ সহায়তা জনগণের ঘরে পৌছে দিচ্ছেন। তারপরও এ কাজ সঠিকভাবে হচ্ছে কিনা সেটাও তারা তদারকি করছেন। যাতে এ নিয়ে কোন গরমিল না হয়।
এ ব্যাপারে যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ বলেন, করোনা পরিস্থিতির এ সংকটকালে গরীব মানুষ যাতে খাদ্য সমস্যায় না পড়ে তার জন্য সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ কারণে যশোরেও কর্মহীনদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ রয়েছে। তারা সরকারি এ সহায়তা তৃণমূল পর্যায়ে জনগনের মাঝে বিতরণের ব্যবস্থা করছেন। যাতে কর্মহীন গরীব মানুষ পরিবার নিয়ে খাদ্য সংকটে না থাকে। জেলা প্রশাসন জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে জেলাব্যাপী এ কাজটি চালিয়ে যাচ্ছে।
 





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft