শিরোনাম: ইলিয়াস কাঞ্চনের ‘মুখোশ উন্মোচনের’ হুংকার শাজাহান খানের       দুর্নীতি প্রতিরোধে রাজনৈতিক অঙ্গীকার পেয়েছি : টিআইবি       খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ বন্ধ করে দিয়েছে সরকার : রিজভী       পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ইস্যুতে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই : উ. কোরিয়া       হট্টগোলে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইনি নোটিশ       আমরা চমক সৃষ্টি করতে পেরেছি : এলজিআরডি মন্ত্রী       তাপস বলার কে, প্রশ্ন দুদক চেয়ারম্যানের       মামলা লড়তে হেগের উদ্দেশে সু চি       ‘রিটার্ন দাখিলে বাধ্য করা হবে’       দিল্লিতে কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ৪৩       
পেঁয়াজ খেলে ৪ ঘণ্টায় কমবে ব্লাড সুগার
কাগজ ডেস্ক :
Published : Wednesday, 13 November, 2019 at 6:00 AM
পেঁয়াজ খেলে ৪ ঘণ্টায় কমবে ব্লাড সুগারদেহে রক্ত শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে অনেক ওষুধ আবিষ্কার হয়েছে। কিন্তু ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হলে সহজে সুগার কমানো যায় না। তখন সুগার নিয়ন্ত্রণে আনা বেশ কঠিন হয়ে যায়। সুগার নিয়ন্ত্রণে না আনা গেলে বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে। তাই সুগার নিয়ন্ত্রণ রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ জোর দেওয়া জরুরি। অনেকেই জানেন না, প্রতিদিন রান্নায় ব্যবহৃত পেঁয়াজ ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে আসতে পারে। তবে সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে বিশেষভাবে পেঁয়াজ খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।
চলুন জেনে নেওয়া যাক, পেঁয়াজের কী কী গুণাগুণ রয়েছে-
গবেষণা দেখা গেছে, লাল পেঁয়াজ খেলে উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমে ব্লাড সুগার। টাইপ-১ ও টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রে উপকারি হতে পারে পেঁয়াজ।
জার্নাল ইনভাইরোনমেন্টাল হেল্থ- এ প্রকাশিত একটি গবেষণার তথ্য বলছে, ১০০ গ্রাম লাল পেঁয়াজ মাত্র চার ঘণ্টায় রক্তে সুগারের মাত্রা কমিয়ে ফেলতে পারে।
পেঁয়াজে ব্লাড সুগার কমে কেন?
১. পেঁয়াজে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কম থাকে। কোনো খাবার খেলে রক্তে সুগারের মাত্রায় যে প্রভাব পড়ে তাকে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বলা হয়। যেসব খাবারে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স ৫৫-এর কম থাকে, সেগুলি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভালো। আর পেঁয়াজের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স ১০। তাই সুগারের ক্ষেত্রে অত্যন্ত ভালো এটি।
২. অতিরিক্ত কার্বোহাইড্রেড থাকা খাবার স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ হতে পারে। বেশি কার্বোহাইড্রেড টাইপ-২ ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। আর পেঁয়াজে কার্বোহাইড্রেডের মাত্রা খুব কম থাকে। হাফ কাপ কুঁচানো পেঁয়াজে কার্বোহাইড্রেড থাকে মাত্র ৫ দশমিক ৯ গ্রাম। এটিও সুগারের জন্য বেশ উপকারি।
৩. ডায়াবেটিসের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ফাইবার। আর পেঁয়াজে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার থাকে। ফলে পেটের সমস্যা হওয়ারও কোনো সম্ভাবনা নেই। প্রতিদিন পেঁয়াজ খেলে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে এবং হার্ট সুস্থ থাকে।
পেঁয়াজ কীভাবে খাবেন
কাঁচা পেঁয়াজ খাওয়ার পর ব্লাড সুগারে এফেক্ট হতে পারে। সেক্ষেত্রে লাল পেঁয়াজ হতে হবে। দুপুর ও রাতের খাবার খাওয়ার সময় কাঁচা পেঁয়াজ খান। এক্ষেত্রে পেঁয়াজের সঙ্গে ছালাত যুক্ত করতে পারেন। স্যান্ডউইচেও পেঁয়াজ ব্যবহার করা যেতে পারে।
এছাড়াও প্রতিদিন ডিম, হলুদ, এলাচ, জাম, বাদাম, ব্রকোলি, অ্যাপেল সিডার ভিনিগার খেলে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে থাকবে সুগার। তবে চিন্তামুক্ত থাকতে হবে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft