শিরোনাম: চুনোপুঁটি নয়, রাঘব বোয়ালদের ধরুন : রব       মুক্তিযোদ্ধারা এদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান : নাসিম       অবৈধ টাকার মালিকদের কাউকেই ছাড়া হবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী        ‘খড়কুটো আঁকড়ে ধরা ঐক্যফ্রন্ট জনগণের সাড়া পাচ্ছে না’       নজরদারিতে দিল্লির ৪ শতাধিক স্থাপনা       ‘দুদক মানুষের শতভাগ আস্থা অর্জন করতে পারেনি’       পাক-ভারত সীমান্তে গোলাগুলি, নিহত ১৬       দেশে এখন ভানুমতির খেল চলছে : রিজভী       তুরস্কের অভিযানের মুখে সরতে রাজি কুর্দি       দেশের নির্বাচন প্রক্রিয়া দুর্নীতির আওতামুক্ত নয় : মাহবুব তালুকদার      
বিবাহিত ধর্মেন্দ্রকে কেন বিয়ে করেছিলেন হেমা?
বিনোদন ডেস্ক :
Published : Thursday, 10 October, 2019 at 6:37 AM
বিবাহিত ধর্মেন্দ্রকে কেন বিয়ে করেছিলেন হেমা?বলিউডের তুমুল জনপ্রিয় তারকা দম্পতি ধর্মেন্দ্র ও হেমা মালিনী। একসঙ্গে কাজ করতে গিয়েই তারা জড়িয়ে পড়েছিলেন প্রেমের সম্পর্কে। আট বছর দুরন্ত প্রেমের পর তাদের বিয়ে হয়। তাও আবার দুজনের পরিবারের তীব্র উপেক্ষা করে। হেমার বিয়ে ঠিক হয়েছিল তখনকার আরেক সুপারস্টার জিতেন্দ্রর সঙ্গে। কিন্তু বহু চেষ্টা করেও হেমাকে তার পরিবার জিতেন্দ্রর ঘরণী করতে পারেনি। কারণ নায়িকার মন বাধা পড়েছিল চার সন্তানের বাবা ধর্মেন্দ্রর মনে।
ধর্মেন্দ্র ও হেমা জুটির প্রথম ছবি ‘তুম হাসিন ম্যায় জওয়ান’। এটি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৭০ সালে। সুপারহিট হয়েছিল সে ছবি। এরপর দুজনে একসঙ্গে অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করেছেন। সত্তরের দশকে ধর্মেন্দ্র-হেমা দুজনেই ছিলেন কেরিয়ারের শীর্ষে। তাদের পর্দার বাইরের রসায়নও সে সময় তুঙ্গে। ড্রিম গার্লকে দেখে মুগ্ধতা প্রকাশ না করে পারেননি নায়ক ধর্মেন্দ্র। বলেই দিয়েছিলেন ভালোলাগার কথা। কিন্তু প্রথম দিকে হেমা নিজের আবেগ প্রকাশ করতেন না।
তবে শুধু ধর্মেন্দ্র নয়, বলিউডে হেমার গুণমুগ্ধ ছিলেন আরও অনেক নায়ক। জিতেন্দ্র ও সঞ্জীব কুমারেরও তার প্রতি দুর্বলতা ছিল। পাত্র হিসেবে জিতেন্দ্রকে পছন্দ ছিল হেমার বাবা-মায়ের। ধর্মেন্দ্রর সঙ্গে মেয়ের বিয়েতে একেবারেই মত ছিল না তাদের। তারা তড়িঘড়ি করে জিতেন্দ্রর সঙ্গে মেয়ের বিয়ে ঠিক করে ফেলেন। যাতে বিবাহিত ধর্মেন্দ্রর কাছ থেকে হেমাকে সরিয়ে আনা যায়।
তৎকালীন মাদ্রাজ ও আজকের চেন্নাইয়ে হেমা-জিতেন্দ্রর বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। জিতেন্দ্রর পরিবারেও পাত্রী হিসেবে হেমা ছিলেন বিশেষ পছন্দের। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বন্ধ হয়ে যায় সেই বিয়ে। অবশেষে ১৯৮০ সালে হেমা-ধর্মেন্দ্রর চার হাত এক হয়। শোনা যায়, দুজনেই বিয়ের আগে ধর্মান্তরিত হয়েছিলেন। ১৯৮১ সালে জন্ম নেয় এ দম্পতির প্রথম সন্তান এষা। তার চার বছর পরে জন্ম অহনার। দুজনেই এখন ব্যস্ত সংসার নিয়ে।
ধর্মেন্দ্রর প্রথম স্ত্রী প্রকাশ কাউর। ১৯৫৪ সালে মাত্র ১৯ বছর বয়সে তাকে বিয়ে করেছিলেন ধর্মেন্দ্র। প্রকাশ-ধর্মেন্দ্রর চার সন্তান। দুই ছেলে সানি দেওলও ববি দেওল। তারা বলিউডের প্রতিষ্ঠিত অভিনেতা। দুই মেয়ে বিজেতা ও অজিতা। ধর্মেন্দ্র-প্রকাশের ডিভোর্স হয়নি। সব জেনেই ধর্মেন্দ্রর প্রেমে সাড়া দিয়েছিলেন এবং বয়ে করেছিলেন ড্রিম গার্ল হেমা মালিনী। তবে বিয়ের জন্য ধর্মান্তরিত হওয়ার ঘটনাটি অস্বীকার করেন হেমা-ধর্মেন্দ্র দুজনেই।
ধর্মেন্দ্রর দ্বিতীয় স্ত্রী যতটাই লাইমলাইটে, তার প্রথম স্ত্রী প্রকাশ ততটাই প্রচারের আড়ালে। কিন্তু সব জেনেও বিবাহিত ধর্মেন্দ্রকে কেন বিয়ে করেছিলেন হেমা? নায়িকা বলেন, ধর্মেন্দ্রর চুপচাপ ও শান্ত স্বভাবটাই তার ভালো লাগতো। তা ছাড়া তার মধ্যে তিনি খুঁজে পেতেন উদ্দাম ও পাগলপ্রায় এক প্রেমিককে। ধর্মেন্দ্র নাকি এখনও প্রথম জীবনের সেই প্রেমিকই আছেন।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft