শিরোনাম: গণতন্ত্র কারা ধ্বংস করেছে জনগণ ভুলে যায়নি : ফখরুল       নিজ কক্ষেই ডিসপ্লেতে টিকিট বিক্রি পর্যবেক্ষণ করবেন রেলমন্ত্রী       উত্তাল দিল্লি : বাসে আগুন, ভাঙচুর       সারের দাম কেজিতে ৯ টাকা কমলো       'দেশ আজ কঠিন ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে'       আফগানিস্তান থেকে ৪ হাজার সেনা প্রত্যাহার করছে যুক্তরাষ্ট্র       ঢাকায় দিনে ছয় হাজার টন বর্জ্য হয়       নাগরিকত্ব বিল: অবশেষে পিছু হটছে মোদি সরকার       মহিউদ্দিন চৌধুরী ছিলেন প্রকৃত চট্টলবীর : আমু       ৩০ শতাংশ লোক হার্টের অসুখে মারা যায় : স্বাস্থ্যমন্ত্রী      
ভেকুটিয়ার আকবার সাঁইজি হত্যা মামলা
শিমুল ও সুজাতের মুক্তির দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন
কাগজ সংবাদ :
Published : Thursday, 10 October, 2019 at 6:37 AM
শিমুল ও সুজাতের মুক্তির দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধনযশোর সদর উপজেলার আরবপুর ইউনিয়নের ভেকুটিয়া গ্রামের বাউল আকবার সাঁইজি হত্যাকা- মামলায় সন্দেহভাজন হিসেবে আটক সুজলপুরের নাহিদ হাসান শিমুল এবং লিটন হোসেন সুজাতের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। বুধবার বেলা ১২টায় প্রেসক্লাব যশোরের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।  এ সময় আটকৃতদের স্বজনরা অভিযোগ করেন তদন্তের নামে নিরীহদের বাড়ি থেকে ধরে এনে হয়রানি করা হচ্ছে।
আটক নাহিদ হাসান শিমুলের ভাই জাহিদ হাসান পলাশ জানান, সিআইডি পরিচয়ে ২৯ সেপ্টেম্বর রাত দেড়টার দিকে সুজলপুর গ্রামের বাড়ি থেকে শিমুলকে জিজ্ঞাসাবাদের কথা বলে ধরে আনা হয়। একই সাথে আটক করা হয় লিটন হোসেন সুজাতকে। পরে এ দু’জনকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। স্বজনরা জানতে পারেন, এ মামলায় তাদের দু’জনকে পলাতক হিসেবে আটক দেখিয়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে। জাহিদ হাসান পলাশ বলেন, তার ভাই শিমুল ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি  থেকে চলতি বছরের ৩০ মে পর্যন্ত যশোর এইচ এম এম রোডের হাটচান্নি মসজিদ মার্কেটে দিদার হোসেন লাভলুর মালিকাধীন  এম এল লাভলু কসমেটিকসে সেলসম্যান হিসেবে কর্মরত ছিলেন। চলতি বছরের ১৬ জুন থেকে তিনি বারান্দীপাড়া কদমতলা মোড়ের এন আই ট্রেডার্সে ডেলিভারিম্যান হিসেবে কর্মরত আছেন। প্রতিদিন তার ভাই বাড়ি থেকে চাকরি করেছে যেটা সবাই জানেন। তাহলে কীভাবে তিনি পলাতক ছিলেন।
লিটন হোসেন সুজাতের মা মনিরা বেগম বলেন, পিতৃহীন সুজাতই পরিবারের একমাত্র অবলম্বন। সে যশোর বাস টার্মিনালে ইজিবাইক, নসিমন ও করিমনের যন্ত্রাংশ তৈরি কারখানা শফি লেদে কর্মরত ছিল। ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে পুলিশ তার ছেলেকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। এখন শোনা যাচ্ছে এ মামলায় তার ছেলেকে আসামি করা হচ্ছে। এ ঘটনায় তিনি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। ন্যায় বিচারের জন্যে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।
এলাকাবাসী জানিয়েছেন, লিটন হোসেন সুজাত লালন আখড়াবাড়ির স্বেচ্ছাশ্রমের খেদমতকারী ছিল। সন্ধ্যায় আখড়াবাড়ি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে আগরবাতি জ্বালাতেন। পিতৃহীন সুজাত বাউল আকবার সাঁইজিকে পিতার মতো ভক্তি করতেন। আখড়াবাড়িতে লালনগীতি শেখার পাশাপাশি দোতারা বাজাতেন সুজাত। নাহিদ হাসান শিমুল ছিলেন আখড়াবাড়ির তবলা শিল্পী। তবে, তিনি  নিয়মিত ছিলেন না। কাজের অবসরে আখড়াবাড়ি যেতেন কিংবা বিশেষ কোনো অনুষ্ঠান থাকলে তখন সঙ্গত করতেন। তারা দু’জনই প্রয়াত আকবার সাঁইজীর ভাবশিষ্য ছিলেন। ময়নাতদন্তে আকবার সাঁইজিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে উল্লেখ করা হলেও নদী থেকে তার লাশ উত্তোলনের সময় তার দেহে কোনো আঘাতের বা শ্বাসরোধের চিহ্ন তারা দেখেননি। তার পরিহিত লুঙ্গিটিও ছিল পরিপাটি করে কাছামারা। যেটা তিনি সব সময় করতেন। এ সব আলামতে তারা মনে করেন আকবার সাঁইজি হয়তো মনের কষ্টে আত্মহত্যা করেছিলেন। সে কারণে তারা পুনঃ ময়নাতদন্তের দাবি জানান।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft