বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
সীমাহীন দুর্ভোগে ট্রেন যাত্রীরা
ইচ্ছে মতো টাকা আদায় করে ভাগাভাগি করছেন টিটি-অ্যাটেন্টডেন্টরা!
শিমুল ভূইয়া
Published : Thursday, 13 August, 2020 at 12:41 AM

ইচ্ছে মতো টাকা আদায় করে ভাগাভাগি
করছেন টিটি-অ্যাটেন্টডেন্টরা!যশোর রেলস্টেশনে টিকিট সংগ্রহ করা নিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়ছে যাত্রীরা। কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি বন্ধ থাকায় সুযোগ নিচ্ছেন ট্রেনের মধ্যে থাকা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এ নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিচ্ছে। আগামী ১৬ আগস্ট থেকে যশোর স্টেশন দিয়ে বন্ধ থাকা আরও দু’টি ট্রেন চলাচল শুরু হবে। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্টেশন কর্মকর্তা।
খুলনা-ঢাকা রুটে সুন্দরবন ও খুলনা-সৈয়দপুর রুটে সীমান্ত ট্রেন করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল। যাত্রীদের দুর্ভোগ দুর করতে আগামী ১৬ আগস্ট থেকে তা চালু হচ্ছে। পাশাপাশি ২৬ আগস্ট থেকে বন্ধ থাকা অন্যান্য ট্রেনও চলাচল শুরু করবে। জানিয়েছেন স্টেশন মাস্টার আইনাল হোসেন।
ট্রেন চালুর খবরে সাধারণ যাত্রীদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরলেও দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপর ক্ষুব্ধ হচ্ছেন তারা। স্টেশনের কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি বন্ধ হওয়ায় সাধারণ যাত্রীরা বর্তমানে সীমাহীন দুর্ভোগে রয়েছেন। এসব যাত্রী স্টেশনে গিয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে না পেরে টিকিট ছাড়াই ট্রেনে উঠে পড়ছেন। আর এ সুযোগ কাজে লাগাচ্ছেন ট্রেনের ভিতরে থাকা টিটি, অ্যাটেন্টডেন্ট, রেলওয়ে পুলিশসহ অন্যান্য স্টাফরা।
অভিযোগ রয়েছে, ট্রেনের এসব টিটি যাত্রীদের কাছ থেকে জরিমানাসহ ভাড়া আদায় করলেও কোনো টিকিট বা রশিদ দিচ্ছেন না। আদায় করা অর্থ পরে নিজেদের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করছেন বলে যাত্রীরা অভিযোগ করেছে।
মঙ্গলবার সকালে সরেজমিন যশোর রেলস্টেশনে গিয়ে ঢাকা থেকে আসা বেনাপোল এক্সপ্রেসের কয়েকজন যাত্রীর সাথে কথা হয়। তাদের সাথে কথা বললে জানান, টিকিট ছাড়া ট্রেনে ওঠা যাত্রীদের কাছ থেকে ইচ্ছা মাফিক ভাড়া আদায় করছেন টিটিরা। অথচ যাত্রীদের কোনো টিকিট কিংবা রশিদ দেওয়া হচ্ছে না।
শরিফুল নামে একজন যাত্রী জানান, অনলাইনে টিকিট কাটতে পারেননি তিনি। ফলে, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে তিনি রাতে ওই ট্রেনে ওঠেন। পরে ট্রেনের ভিতরে থাকা টিটির কাছে এক হাজার টাকা দিয়ে যশোর আসেন তিনি। যদিও স্বাভাবিক সময়ের ভাড়া চারশ’৮০ টাকা। এ সময় আরেক যাত্রী শংকরপুরের মনিরুল জানান, তিনি রেলপুলিশের মাধ্যমে সাড়ে সাতশ’ টাকা দিয়ে ঢাকা থেকে যশোরে আসেন।
বুধবার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় সৈয়দপুর থেকে আসা রূপসা ট্রেনের যাত্রী মুন্নি আক্তার বলেন, তিনি  ঈশ্বরদী থেকে চারশ’ টাকা দিয়ে আসেন। টিটিকে কিছু টাকা কম নিতে বললেও তিনি শোনেননি। উল্টো সামনের স্টেশনে নামিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।
লকডাউনের পর থেকে দেশের সব স্টেশন কাউন্টার থেকে টিকিট দেওয়া বন্ধ রয়েছে।  কেবলমাত্র অনলাইনে টিকিট সরবরাহ করা হচ্ছে। কিন্তু অধিকাংশ যাত্রী জানেন না অনলাইনে কীভাবে টিকিট সংগ্রহ করতে হয়। তাছাড়া, অনলাইনে কয়েকদিন আগেই টিকিট সংগ্রহ করে রাখতে হয়। যেটি সাধারণ যাত্রীর কাছে অজানা। এসব কারণে অতিরিক্ত টাকা দেওয়ার পরও টিটিদের দ্বারা হয়রানির শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা।
এ বিষয়ে যশোর স্টেশনমাস্টার আইনাল হোসেন নতুন দু’টি ট্রেন চলাচলের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তার দায়িত্ব স্টেশনে। ট্রেনের ভিতরে কে টাকা নেয় সেটা তার জানার বিষয় না। তারা নিয়মিত টিকিট চেক করে থাকেন।  জরিমানাও করেন। তিনি বলেন, কাউন্টারে টিকিট বিক্রি না হওয়ায় কিছুটা ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। ২৬ আগস্ট থেকে সব ধরনের ট্রেন চলাচল শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্টেশনমাস্টার।
বুধবার বিকেলে রূপসা ট্রেনের অ্যাটেনডেন্ট মোহাম্মদ আলীর কাছে এসব বিষয়ে কথা বললে তিনি তা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, যারা ট্রেনে ওঠেন তাদের টিকিট কাটা হয়। কোনো টাকা বেশি নেওয়া হয়না।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft