মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
আন্তর্জাতিক সংবাদ
তুরস্কে ইসলামি খিলাফত পুনঃপ্রতিষ্ঠার ডাক এরদোগানের
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Friday, 7 August, 2020 at 2:30 PM
তুরস্কে ইসলামি খিলাফত পুনঃপ্রতিষ্ঠার ডাক এরদোগানেরমুসলিম অধ্যুষিত রাষ্ট্র তুরস্কে ইসলামি খিলাফত পুনঃপ্রতিষ্ঠার আহ্বান জানাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়েপ এরদোগান। ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান ও জাদুঘর হায়া সোফিয়াকে মসজিদ হিসেবে ঘোষণার পর সমালোচকরা এটিকে দেশটির দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টা ধর্মনিরপেক্ষতা বাতিল বা খিলাফত পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা কিনা সেই প্রশ্ন উত্থাপন করেন এরদোগান। খবর এএনআইয়ের।
ফ্রন্টিয়ার অ্যালায়েন্স ইন্টারন্যাশনালের (এফএআই) মিশনের সভাপতি ডাল্টন থমাস বলেছেন, এর মাধ্যমে এরদোগান প্রকাশ্যে ইসলামিক রাষ্ট্র পুনর্গঠনের জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন।
টুইট বার্তায় তিনি বলেন, তুর্কি প্রেসিডেন্ট প্রকাশ্যে ইসলামিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা, পাশাপাশি দেশটির পুরনো সীমানা পুনরুদ্ধার এবং জেরুজালেম বিজয়ের আহ্বান জানাচ্ছেন। একই সঙ্গে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন, যখন বিশ্ব করোনার ভয়ঙ্কর পরিণতি থেকে মুক্ত হচ্ছে, তখন আমরা আবার খিলাফতের মুখোমুখি হব।
এর আগে গত ১০ই জুলাই তুরস্কের শীর্ষ একটি আদালত হায়া সোফিয়াকে জাদুঘরে পরিণত করা বিষয়টি অবৈধ বলে রায় দেয় এবং এর পরেই তুরস্কের ইসলামপন্থি সরকার একে মসজিদ হিসেবে ব্যবহারের পক্ষে আদেশ জারি করে।
সাম্প্রতিক এক বক্তব্যে এরদোগান বলেছেন, প্রায় দেড় হাজার বছরের পুরনো হায়া সোফিয়া মুসলিম, খ্রিস্টান এবং বিদেশিদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। যা এক সময় খ্রিস্টানদের ধর্মাবলম্বীদের উপাসনালয় হিসেবে ব্যবহৃত হতো। তিনি বলেছেন, হায়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরে তুরস্ক সার্বভৌম অধিকারের চর্চা করেছে।
অবশ্য থমাস এটিকে তুরস্কের ধর্মনিরপেক্ষতাবাদের লঙ্ঘন ও ধ্বংস হিসাবে বর্ণনা করেছেন। তার মতে, এটি তুরস্কের অভ্যন্তরে সংঘটিত একটি ইসলামিক পুনর্জাগরণ। এটিই ধ্বংসকারী এবং ধর্মনিরপেক্ষতাবাদী তুরস্কের দেশকে মধ্যপ্রাচ্য নিয়ন্ত্রণকারী একটি ইসলামিক রাষ্ট্র হিসাবে তার মূল গঠনে ফিরিয়ে নিয়ে আসার পুনর্নির্মাণ।
উল্লেখ্য, ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্য হায়া সোফিয়া দেখতে প্রতি বছর ইস্তাম্বুলে পর্যটকদের প্রচুর জনসমাগম হয়। সারা বিশ্ব থেকেই এখানে পর্যটকরা আসেন। ক্যাথেড্রাল হিসেবে স্থাপনাটি প্রথম নির্মাণ করা হয় বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের সময়।
কিন্তু ১৪৫৩ সালে অটোমানরা কনস্টান্টিনোপল জয় করার পর হায়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরিত করা হয়। এরপর ১৯৩৪ সালে তুরস্ক সরকার এটিকে জাদুঘরে পরিণত করেন। কিন্তু শুক্রবার তুরস্কের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক আদালত দ্য কাউন্সিল অব স্টেটের সিদ্ধান্তে হায়া সোফিয়াকে ফের মসজিদে রূপান্তরিত হলো।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft