রবিবার, ১৬ আগস্ট, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাহী কমিটির সভা
আমিরের বরখাস্তাদেশ প্রত্যাহারে সদস্যদের মধ্যে সমালোচনার ঝড়
নিজাম উদ্দিন শিমুল
Published : Sunday, 5 July, 2020 at 1:32 AM
আমিরের বরখাস্তাদেশ প্রত্যাহারে
সদস্যদের মধ্যে সমালোচনার ঝড়যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ও একাধিক অভিযোগে অভিযুক্ত এডভোকেট আমির হোসেনের বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। গত ১ জুলাই সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
সভায় সমিতির আর একজন সদস্য সৈয়দ কবির হোসেন জনির বহিস্কারাদেশও প্রত্যাহার করা হয়। সেইসাথে নিষ্পত্তি করা হয় সদস্য রুহিন হোসেন বালুজের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগটি। তবে, এডভোকেট মিজানুর রহমান বিপ্লবের বহিস্কারাদেশ সভায় বহাল রাখা হয়।
সভায় উপস্থিত কার্যনির্বাহী কমিটির কয়েকজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপরিউক্ত তথ্য গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন।  
এদিকে, এডভোকেট আমির হোসেনের বরখাস্ত ফের প্রত্যাহার করার ঘটনায় সাধারণ আইনজীবীদের মধ্যে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অনেকে আমিরের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার দাবি জানিয়েছেন।
এসব সদস্য জানান, সভার শুরুতে বরখাস্ত তিন সদস্যর বিষয়টি উত্থাপন করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম এ গফুর। এ বিষয়ে প্রথম আলোচনা করেন ‘টাউট উচ্ছেদ ও শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটির’ আহ্বায়ক ও সমিতির সহসভাপতি খোন্দকার মোয়াজ্জেম হোসেন মুকুল। তিনি এডভোকেট আমির হোসেনের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের বিরোধিতা করে যুক্তি উপস্থাপন করেন। পরে পক্ষে ও বিপক্ষে নির্বাহী কমিটির অপরাপর সদস্যরা আলোচনা করেন। এক পর্যায়ে এডভোকেট আমির হোসেন ও সৈয়দ কবির হোসেন জনির বরখাস্তাদেশ প্রত্যাহার করা হয়। আগামী সাত জুলাই থেকে এ আদেশ কার্যকর হবে বলেও সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
নির্বাহী কমিটি সূত্রে আরও জানা যায়, এডভোকেট রুহুল বালুজের প্রতিশ্রুতির প্রেক্ষিতে বিষয়টির নিস্পত্তি করা হয়। এছাড়া, জজ আদালত থেকে নথি চুরির অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত হওয়া আইনজীবী মিজানুর রহমান বিপ্লবের বরখাস্তের আদেশ সভায় বহাল রাখা হয়।
এদিকে, নির্বাহী কমিটির ওই সভার সিদ্ধান্তের বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ আইনজীবীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলম বাচ্চু, কাজী ফরিদুল ইসলাম, সাবেক পাবলিক প্রসিকিউটর আবুল হোসেন,  জুলফিকার আলী জুলুসহ অন্তত ২০ জন আইনজীবী গ্রামের কাগজকে জানান, আমিরের বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজি, নারী নির্যাতন, অর্থ আত্মসাত, আদালতের নথি জালিয়াতিসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। তার বিরুদ্ধে চারটি মামলা বিচারাধীন, জেল খেটেছেন একাধিকবার। এর আগে তিনবার যশোর জেলা আইনজীবী সমিতি তাকে বরখাস্ত করে। অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে তার বিরুদ্ধে কৈফিয়ত তলবেরও নজির আছে। তার বিরুদ্ধে যশোরের বিভিন্ন এলাকায় মিছিল এবং মানববন্ধনও হয়েছে। তার শাস্তির দাবিতে একাধিকবার সাংবাদিক সম্মেলন হয়েছে। শতাধিক আইনজীবী তার বিরুদ্ধে লিখিতভাবে সমিতিতে অভিযোগ দিয়েছেন। তারপরেও আমিরের পার পেয়ে যাওয়াটা মেনে নেয়া যায় না। এটাকে রহস্যজনকও অভিহিত করেছেন অনেকে। এতে শুধু সমিতির নয়, পুরো আইনজীবী সমাজের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে বলেও মত দিয়েছেন তারা। সমিতির সাবেক এসব নেতা আমিরের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার পুনর্বিবেচনা করে তা সাধারণ সভায় উত্থাপনের দাবি জানিয়েছেন।
বিষয়টি নিয়ে যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এম ইদ্রিস আলী ও সাধারণ সম্পাদক এম এ গফুরের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তারা বলেন, স্ত্রী হত্যার অভিযোগে আমিরকে বহিস্কার করা হয়। কিন্তু, সুরতহাল রিপোর্টে স্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রমাণ হওয়ায় তার বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। এছাড়া, জনি ভুল স্বীকার করে নেয়ায় তার বরখাস্তের আদেশও প্রত্যাহার করা হয়।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft