রবিবার, ১২ জুলাই, ২০২০
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
দুক্কির কতা কারে কবো!
Published : Thursday, 4 June, 2020 at 11:29 PM
দুক্কির কতা কারে কবো!একবার গিরাম সম্পক্কের এক চাচা গিরামেত্তে আইয়েচে বঙ্গবন্ধুর সাতে দেকা করার জন্যি। সাতে কইরে নিয়ে আইয়েচে নিজির ভুইতি লাগানো তরিতরকার। তার বউ খুব যতœ কইরে প্যাকেটটা গুচায় দেচে ভাইপোর জন্যি। ভাইপো একন দেশের পেসিডেন। সে কতা ভাইবে খুশিতি তাগের চোক ছলছল কইরে ওটে। সেই চাচা বহুত কষ্টে ঢাকা আইসে বঙ্গবন্ধুর বাড়িতি ঢুকতি পাল্লিও তার সাতে দেকা করার অনুমতি পালেন না। জানতি পাল্লেন দোতালায় তিনি গুরুত্তপূন্ন এট্টা মিটিংয়ি তিনি ব্যস্ত। গিরামের লোক এতশত মানতি নারাজ, কিন্তুক যারা দাযিত্বে তারাও নাছোড়বান্দা। ছাপ ছাপ কইয়ে দেলেন বঙ্গবন্ধুর সাতে তার আইজ দেকা করার কোন সুযোগ নেই। অগত্যা নিরুপায় হইয়ে মুরুব্বী কলেন এই তরিতরকারগুলো খুব যতœ কইরে উনার জন্যি আনিচি দয়া কইরে যদি তিনারে যাইয়ে আমার কতা কইয়ে এগুলো দেতেন তবু জানে শান্তি পাতাম। মুরুব্বীর কাউমাউ দেইকে একজন  সেগুলো নিয়ে যাইয়ে বঙ্গবন্ধুর কাছের একজনের কাচে দেলেন। বঙ্গবন্ধু গিরামেত্তে কষ্ট কইরে আইয়েচে দেইকে তারে কুড়িডে টাকা দিয়ে কলেন উনারে যতœআত্তি কইরে বুজোয় কতি কেন তিনি দেকা কত্তি পাল্লেন না।  সেই লোক বঙ্গবন্ধুর দিয়া কুড়ি টাকাত্তে দশটাকা নিজি রাইকে গিরামের মুরুব্বীর হাতে দশটাকা ধরায় দিয়ে চইলে যাতি কলেন। টাকা দেইকে তো মুরুব্বী রাইগে টং। সাই সাই কইরে দোতালায় উইটে যাইয়ে জোর কইরে মিটিং ঘরে ঢুইকে বঙ্গবন্ধুর সুমকি দশটাকা ফেরট দিয়ে কলেন আমি কি তুমার কাচে তরকারি বেচতি আইছি। তুমার চাচী তোমার জন্যি নিজির হাতে গুছায়ে তরকারিগুলো দেচে। তুমি কোনডা বিলে টাকা দিলে আমারে। কতা গুলো কইয়ে রাগ কইরে মুরুব্বী হনহন কইরে নিচে উইলে হাটা দেচে। বঙ্গবন্ধু মুরুব্বীর চইলে যাওয়ার দিকি তাগায় থাইকে ভারী নিশে^স ছাইড়ে কইলেন, যে দেশে দোতালাত্তে নিচের তালার উলতি উলতি কুড়ি টাকা আদ্দেক হইয়ে দশটাকা হইয়ে যায় সে দেশে দুন্নীতি ঠেকাবো কিরাম কইরে। বঙ্গবন্ধুর দুক্কু কইরে কইয়ে যাওয়া কতাডা আশপাশের নানান ঘটনায় বার বার মনে পইড়ে যাচ্চে।  
ইতি
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft