বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
ফরিদপুরে করোনা আতঙ্কে অতিরিক্ত পণ্য কেনার হিড়িক
কাগজ ডেস্ক :
Published : Friday, 20 March, 2020 at 7:36 PM
ফরিদপুরে করোনা আতঙ্কে অতিরিক্ত পণ্য কেনার হিড়িকফরিদপুর জেলায় এখনও কোন করোনা ভাইরাস রোগি শনাক্ত হয়নি, তারপরও বাজারগুলোতে অতিরিক্ত নিত্যপণ্য কিনতে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। যা রীতিমতো হুমড়ি খেয়ে পড়ার মতো। তবে একসাথে এতো পণ্য কেনার কোন দরকার নেই বলে প্রশাসন থেকে বলা হলেও তারা শুনছেন না। জেলা প্রশাসন থেকে টিসিবি এর মাধ্যমে পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছে।
শহরের তিতুমীর মার্কেটে গিয়ে দেখা যায়, যে যার মতো করে পারছেন অতিরিক্ত চাল, ডাল, তেল, চিনিসহ বিভিন্ন পণ্য কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। দোকানগুলোতে অভিযান চালালেও প্রতিটি পণ্য বেশি দামে বিক্রি লক্ষ্য করা গেছে।
বাজারে এই বিষয়ে কয়েকজন ক্রেতা বলেন, ভয়ে আমরা বেশি বেশি করে জিনিস কিনছি। কখন কি হয় সেই কারণে এতো বেশি বাজার করা। ফরিদপুরে এখনও করোনা শনাক্ত হয়নি বললেও তারা সেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা যেতে রাজি নয়। তারা বলেন গুজব উঠেছে বেশি বেশি করে পণ্য কিনে রাখার জন্য তাই কিনছি।
এদিকে ফরিদপুরে বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে ৪২ জনকে রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় রাখা হয়েছে ২৩ জনকে। তবে তাদের শরীরে কোন ভাইরাস পাওয়া যায়নি। জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ সিভিল সার্জন অফিসে একটি কন্টোল রুম খোলা হয়েছে। সেখান থেকে মনিটরিং করা হচ্ছে করোনার বিষয়ে সব তথ্য।
অন্যদিকে জেলায় ৪৩০০ জন বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের নিজ উদ্যোগে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা থাকলেও তারা সেই নির্দেশনা না মেনে বাহিরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। গত ১ মার্চ হতে ১৮ মার্চ পর্যন্ত এরা বিদেশ থেকে দেশে এসেছেন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় বিদেশে থেকে ১২৮ জন ফরিদপুরে এসেছে।
হোম কোয়ারান্টাইনের বিধিমালা লংঘন করায় চরভদ্রাসন উপজেলায় বিদেশ ফেরত দুই ব্যক্তিকে ১১ হাজার টাকা জরিমানা করে তাদের পুনরায় হোম করেনটাইনে পাটানো হয়েছে। এর মধ্যে শেখ মুন্নাফকে ১০ হাজার এবং বাবুল খানকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী হাকিম ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন সুলতানা।
ফরিদপুরের ডেপুটি সিভিল সার্জন মো. খালেদুর রহমান মিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, বর্তমানে ফরিদপুরে ৪২ জনকে হোম কোয়ারান্টাইন করা হয়েছে। এছাড়া তিনজনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার সাংবাদিকদের বলেন, আমরা করোনা প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, ইউপি চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, ওয়ার্ড মেম্বার, স্বাস্থ্য বিভাগসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে নিয়ে কাজ করছি। এখনও ফরিদপুরে সার্বিক পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
তিনি বলেন, সকলকে তার নিজ নিজ অবস্থানে থেকে আরো বেশি সর্তক হতে হবে। এছাড়া এ বিষয়ে সতর্ক করে ফরিদপুরে গত বুধবার রাত থেকে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শুরু হয়েছে মাইকিং।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft