মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০
আন্তর্জাতিক সংবাদ
করোনাভাইরাস:
চীনে নতুন আক্রান্ত নেই
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Thursday, 19 March, 2020 at 5:49 PM
চীনে নতুন আক্রান্ত নেইবিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়ানো মহামারি করোনাভাইরাসের উৎপত্তি চীনে হলেও দেশটিতে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব অনেকটাই কমে এসেছে। ভালো খবর হলো, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় স্থানীয়ভাবে কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়নি। যখন বিশ্বের অনেক দেশেই ভাইরাসটির কারণে অচলাবস্থা, ঠিক তখনই এই ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হলো চীন।
দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের বরাত দিয়ে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) জানায়, স্থানীয়ভাবে চীনে করোনায় আক্রান্তর সংখ্যা শূন্য। তবে চীনজুড়ে আরও ৩৪ জন কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন। তারা স্থানীয়ভাবে আক্রান্ত নন। তারা সবাই বিদেশফেরত।
এদিকে, করোনার উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশে স্থানীয়ভাবে বা বিদেশ থেকে নতুন করে কেউ এ রোগে আক্রান্ত হননি।
এছাড়া, মৃত্যুও এক সংখ্যায় নেমে এসেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় চীনে আট জন মারা গেছেন। সব মিলিয়ে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে মারা গেছেন ৩ হাজার ২৪৫ জন। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজার ৯২৮ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭০ হাজার ৪২০ জন।
১০ জানুয়ারি থেকে দৈনিক হুবেই প্রদেশে ও ২০ জানুয়ারি থেকে চীনের মূল ভূখণ্ডে কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা জানাচ্ছে কমিশন।
বিশ্বজুড়ে এ মহামারিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। এ পরিস্থিতিতে চীনের তথ্যের সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সমালোচকরা।
চীন ও অন্য দেশের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা সন্দেহ করছেন, শুরুর দিকে বেইজিং ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের বিষয়টি গোপন করেছে। দেশটিতে নভেম্বরে ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলেও, ডিসেম্বরের শেষের দিকে নতুন রোগের বিষয়টি বুঝতে পারে চীনা চিকিৎসকরা।
সংক্রমণ কমলেও সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞরা সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। চীনের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ঝং নানশান বলেন, শক্তিশালী পদক্ষেপ ছাড়া করোনা ভাইরাস দূর করা সম্ভব নয়। চীন যে পদ্ধতিতে অবলম্বন করেছে, অন্য দেশগুলোকেও সে পদ্ধতি কাজে লাগাতে হবে। দ্রুত প্রতিরোধ, দ্রুত শনাক্ত, দ্রুত রোগ নির্ণয় এবং দ্রুত কোয়ারেন্টিন- এ চার ‘দ্রুত’ পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।
এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ২ লাখ ১৯ হাজার ২৩৮ এবং মারা গেছেন ৮ হাজার ৯৬৭ জন। ১৭৫টি দেশ ও অঞ্চলে রোগটি ছড়িয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, এ মহামারির কেন্দ্র এখন ইউরোপ।
গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এখনো কোনো টিকা বা প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারেনি বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থা (ডব্লিউএইচও)।
এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলা ব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে এবং পোষা প্রাণির সংস্পর্শ এড়িয়ে যেতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে।
বাংলাদেশের কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে সন্দেহ হলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুমের হট লাইন ০১৯৪৪৩৩৩২২২ নম্বরে যোগাযোগের জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
করোনাভাইরাস সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা অন্য কোনোভাবে মিথ্যা বা ভুল তথ্য প্রচার নজরে আসলে তথ্য অধিদপ্তরের সংবাদকক্ষের ফোন নম্বর ৯৫১২২৪৬, ৯৫১৪৯৮৮, ০১৭১৫২৫৫৭৬৫, ০১৭১৬৮০০০০৮ এবং ইমেইল: [email protected]/[email protected] অথবা ৯৯৯-এ যোগাযোগ করার জন্য সর্বসাধারণের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft