শনিবার, ০৪ এপ্রিল, ২০২০
সম্পাদকীয়
করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার দায়িত্ব সরকারের
Published : Thursday, 19 March, 2020 at 6:14 AM
ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে না পড়লেও দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ অবস্থায় বাড়তি সতর্কতার বিকল্প নেই। মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস যাতে বিস্তার লাভ করতে না পারে সেজন্য সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।
শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দেশে আরও দুজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের নমুনা সংগ্রহের মাধ্যমে পরীক্ষা করার পর এ দুজনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ জনে। মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা করোনাভাইরাস-সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।
সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ভাইরাসের বিস্তার ঠেকানো। এজন্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা বিশেষ করে হাত ধোয়ার কথা বলছেন চিকিৎসকরা। এছাড়া হোম কোয়ারেন্টাইন বা স্বেচ্ছায় নিজেকে ঘরের ভেতর আলাদা করে রাখতে হবে। বিশেষ করে বিদেশ ফেরত যারা আছেন তাদের সতর্ক থাকতে হবে। রোগের চিকিৎসাও নিশ্চিত করতে হবে। পর্যাপ্ত চিকিৎসাসামগ্রীও মজুদ রাখতে হবে। করোনাভাইরাসের প্রভাবে যেন জিনিসপত্রের দাম না বাড়ে নিশ্চিত করতে হবে সেটিও। আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে।
ডা. ফ্লোরা জানান, নতুন করে যে দুজন আক্রান্ত হয়েছেন, তারা পুরুষ। একজন ইতালি থেকে আসা, আরেকজন যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসেছেন। একজন ছিলেন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে, আরেকজন একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি একজন আক্রান্তের সংস্পর্শে থেকে সংক্রমিত হয়েছেন। দেশে এখন মোট ১৬ জন আইসোলেশনে আছেন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৪৩ জন।
চীনের উহান শহরে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস বিশ্বের ১৬২টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে বিশ্বব্যাপী ৭ হাজার ১৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভিন্ন দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮২ হাজার ৫৫০। অন্যদিকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৯ হাজার ৮৮১ জন।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ফলে গোটা পৃথিবী প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও নেয়া হয়েছে নানা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ভাইরাসের বিস্তার ঠেকানো। এজন্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা বিশেষ করে হাত ধোয়ার কথা বলছেন চিকিৎসকরা। এছাড়া হোম কোয়ারেন্টাইন বা স্বেচ্ছায় নিজেকে ঘরের ভেতর আলাদা করে রাখতে হবে। বিশেষ করে বিদেশ ফেরত যারা আছেন তাদের সতর্ক থাকতে হবে। রোগের চিকিৎসাও নিশ্চিত করতে হবে সরকারকে। পর্যাপ্ত চিকিৎসাসামগ্রীও মজুত রাখতে হবে। করোনাভাইরাসের প্রভাবে যেন জিনিসপত্রের দাম না বাড়ে নিশ্চিত করতে হবে সেটিও। আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft