শুক্রবার, ০৫ জুন, ২০২০
আন্তর্জাতিক সংবাদ
ট্রাম্পের চেয়ে অনেক এগিয়ে ওবামা
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Tuesday, 25 February, 2020 at 4:20 PM
ট্রাম্পের চেয়ে অনেক এগিয়ে ওবামাভারতে সোমবার থেকে দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শুরু করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সফরের শুরুতে স্ত্রী মেলানিয়াকে নিয়ে জাতির পিতা ও ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহান নেতা মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতি বিজরিত সবরমতী আশ্রম পরিদর্শন করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর এখানে গিয়েই বিতর্কের মুখে পড়েছেন ট্রাম্প। কেবল বিতর্ক নয়, সামাজিক মাধ্যমে অনেকে তো তার সঙ্গে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার তুলনা করতে শুরু করেছেন। স্বাভাবিকভাকে এই তুলনায় ট্রাম্পকে পিছনে ফেলে স্বমহিমায় উদ্ভাসিত ওবামা।
জানা যায়, সবরমতী আশ্রম কর্তৃপক্ষ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও তার পত্নী মেলানিয়াকে আশ্রমের প্রথা মেনে খাদি কাপড়ের মালা পরিয়ে স্বাগত জানান। মোদির সঙ্গেই গান্ধীজির আশ্রম ঘুরে দেখেন সস্ত্রীক মার্কিন প্রেসিডেন্ট। জুতো খুলে দুজনে খাদি কাপড়ের মালা পরান গান্ধীজির ছবিতে।
গান্ধীজি যে চরকায় সুতো কাটতেন তা দেখে কৌতুহলী ডোনাল্ড ট্রাম্প চরকায় সুতো কাটার ব্যাপারে উৎসাহী হয়ে ওঠেন। এরপর আশ্রমের এক চরকার সামনে বসে পড়ে সুতো কাটার চেষ্টাও করেন। হাত লাগান মেলানিয়াও। ট্রাম্প ও মেলানিয়াকে চরকায় সুতা কাটতে সাহায্য করেন আশ্রমের বাসিন্দারা। তারপর আশ্রমের ভিজিটর্স বুকে স্বাক্ষর করেন ট্রাম্প। ডোনাল্ড ট্রাম্প ওই বইয়ে লেখেন, ‘‌আমার ভালো বন্ধু প্রধানমন্ত্রী মোদিকে.‌.‌.‌ধন্যবাদ আপনাকে, দারুণ সফর’‌। অথচ যার জন্য এই আশ্রম সেই মহাত্মা গন্ধীর নাম একেবারও জন্যও উল্লেখ করলেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
বারাক ওবামা মার্কিন প্রেসিডেন্ট থাকার সময় ২০১০ সালে ভারত সফরে এসেছিলেন। তিনিও শবরমতী আশ্রম পরিদর্শন করেছিলেন। তখন ওবামা পরিদর্শক বইয়ে যে বার্তা লিখে গিয়েছিলেন, সেটি দারুণ প্রশংসিত হয়েছিল। গান্ধীর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ওবামা লিখেছিলেন, ‘গান্ধীর জীবনের গুরুত্বপূর্ণ এই অংশ দেখতে পেয়ে আমি গর্বিত বোধ করছি। তিনি শুধু ভারতের নায়কই নন, বরং পুরো বিশ্বেরই নায়ক।’
দুই মার্কিন প্রেসিডেন্টের দুই প্রেসিডেন্টের এই বার্তা নিয়ে সরগরম সামাজিক মাধ্যমগুলো। কংগ্রেস নেতা ও সাংসদ মনিষ শর্মা ওবামার বার্তার ছবি পোস্ট করে টুইটারে লিখেছেন, ‘শবরমতীতে এসে শ্রদ্ধেয় মহাত্মা গান্ধীকে নিয়ে বারাক ওবামা কী লিখেছিলেন দেখুন। দুই প্রেসিডেন্টের মধ্যে পার্থক্যটা এর চেয়ে স্পষ্টভাবে বোঝা সম্ভব না।’
আসলেই ওবামার সঙ্গে ট্রাম্পের অনেক পার্থক্য। হয়তো ট্রাম্পের পক্ষে আর কখনই ওবামার জনপ্রিয়তাকে ছোঁয়া সম্ভব হবে না। যে কারণে মার্কিন প্রেসিডেন্টের পদছেড়ে দেয়ার এতগুলো বছর পরও নানা কারণে এখনও প্রশংসিত হন ওবামা। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft