শনিবার, ০৬ জুন, ২০২০
শিক্ষা বার্তা
পীরগঞ্জে অধিকাংশ শহীদ মিনার নেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে
এন এন রানা, পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি :
Published : Sunday, 16 February, 2020 at 6:16 PM
পীরগঞ্জে অধিকাংশ শহীদ মিনার নেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে  ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারি নির্দেশনা থাকার পরও শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়নি। এতে এসব প্রতিষ্ঠানে প্রতিবছর ২১ ফেব্রুয়ারিতে শহীদ ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন কর হয় না। তবে অর্থ বরাদ্দ না থাকায় এই স্থাপনা নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান। শহীদ মিনারের বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের স্বাক্ষর করা ২০১৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারির এক দাপ্তরিক আদেশে বলা হয়েছে, দেশের যেসব সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোতে শহীদ মিনার নেই সেগুলো অতিদ্রুত শহীদ মিনার নির্মাণ করতে হবে। এ ছাড়া যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে, সেগুলো যথাসম্ভব দ্রুত সংস্কার করতে হবে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, পীরগঞ্জ উপজেলার ১৮৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৪টি, উচ্চ মাধ্যমিক ৮২টি স্কুলের মধ্যে ৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার রয়েছে। এর মধ্যে ২৪টি দাখিল ও আলিম মাদ্রাসার মধ্যে একটিতেও এই শহীদ মিনার নেই। শহীদ মিনার নেই এমন কিছু কিছু প্রতিষ্ঠানগুলোতে কলাগাছ, বাশেঁ কাগজ মুড়িয়ে অস্থায়ী শহীদ মিনার বানিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়। তবে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানে ওই দিবসে কোনো কর্মসূচি পালন করা হয় না।এতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৮৮টি স্কুলের প্রায় ৪৫ হাজার ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮২টি বিদ্যালয়ের ৩০ হাজার ছাত্র-ছাত্রী ভাষা শহীদদের ইতিহাস তাৎপর্য সম্পর্কে অজানায় রয়েছেন। তবে উপজেলায় দশটি উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শুধু পাঁচটি কলেজে শহীদ মিনার আছে। এগুলো হচ্ছে পীরগঞ্জ সরকারি কলেজ, ডিএন ডিগ্রী কলেজ, জাবরহাট ডিগ্রী কলেজ, চন্দরিয়া ডিগ্রী কলেজ ও লোহাগাড়া ডিগ্রি কলেজ। ভেবড়া ইসলাম দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক জয়নাল আবেদীন জানান, শহীদ মিনারের জন্য বিদ্যালয়ে অর্থের জোগান নেই। বরাদ্দ পেলেই নির্মাণকাজ শুরু করা হবে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার আমবালা দাখিল মাদ্রাসায় কোনো শহীদ মিনার নেই। এ ব্যাপারে কথা হয় দশম শ্রেণির ছাত্র সাকিব হাসান জানায়, শহীদ মিনার নেই বলে ২১শে ফেব্রুয়ারিতে কখনও ফুল দেওয়া হয়নি। এমনকি এই দিবসটি সম্পর্কে সে কোন কিছু জানে না। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম সাঈদ হাসান বলেন, ইতি পূর্বে শহীদ মিনার নির্মাণের জন্য প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পত্র দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া শহীদ মিনার তৈরির জন্য প্রধান শিক্ষক ও কমিটির সভাপতিকে উদ্বুদ্ধও করা হচ্ছে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft