রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
সারাদেশ
বরিশালে একই পরিবারের তিনজনকে হত্যার রহস্য উদঘাটন
বরিশাল সংবাদদাতা :
Published : Sunday, 8 December, 2019 at 4:50 PM
বরিশালে একই পরিবারের তিনজনকে হত্যার রহস্য উদঘাটনবরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুরের একটি বাড়ি থেকে শাশুড়ি, জামাতাসহ তিনজনকে হত্যার ঘটনার রহস্য উদঘাটনের কথা জানিয়েছে র‌্যাব। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা হয়েছে।
এ ঘটনায় জুয়েল (৩০) নামে প্রধান সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এছাড়া এ ঘটনায় জাকির হোসেন (৩৫) নামে এক কবিরাজকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
শনিবার বিকেলে কুয়েত প্রবাসী হাফেজ আব্দুর রবের বাড়ি থেকে জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।
পাশাপাশি হত্যাকাণ্ডের পর ওই বাড়ি থেকে চুরি যাওয়া স্বর্ণালংকার, তিনটি মোবাইল ফোন ও একটি চাকু উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে জাকির হোসেন (৩৫) নামে এক কবিরাজকে গ্রেফতার করা হয়। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী জুয়েল হাওলাদারকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তারা। গ্রেফতার কবিরাজ জাকির হোসেন ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার সিদ্ধকাঠী ইউনিয়নের উত্তর রাজপাশা গ্রামের চুন্নু হাওলাদারের ছেলে। আর জুয়েল হাওলাদার নগরীর সাগরদীর মুন্সিবাড়ী এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকেন।
রোববার (৮ ডিসেম্বর) সকালে বরিশাল র‌্যাব-৮-এর সদর দফতর থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।
র‌্যাব জানায়, বানারীপাড়ায় কুয়েত প্রবাসী আব্দুর রবের বাড়িতে তিনজনকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এই রোমহর্ষক ঘটনার রহস্য উন্মোচনে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব-৮ ছায়া তদন্ত শুরু করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ও র্যাব-৮ যৌথ অভিযান চালিয়ে হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে জাকির হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। প্রথমে জাকির হোসেন ওই বাড়িতে নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কাজ করত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জাকির হোসেন র‌্যাবকে জানান জিন হাজির ও ঝাড়ফুঁকের মাধ্যমে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করেন বলে প্রচার করে তিনি বাড়ির সবার বিশ্বস্ততা অর্জন করেন।বরিশালে একই পরিবারের তিনজনকে হত্যার রহস্য উদঘাটন
এ সুযোগ নিয়ে বাড়িতে জিন আসবে বলে রাতে দরজা খোলা রাখার কথা বলে ওই বাড়িতে কৌশলে প্রবেশ করেন এবং একজন সহযোগীকে নিয়ে পর্যায়ক্রমে কুয়েত প্রবাসী আব্দুর রবের মা, ভগ্নিপতি ও খালাতো ভাইকে হত্যা করেন।
র‌্যাব আরও জানায়, পরবর্তীতে র‌্যাব-৮ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ও জাকিরের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী জুয়েল হাওলাদারকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার দুইজনই প্রাথমিকভাবে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এরপর জাকির হোসেন ও জুয়েল হাওলাদারের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী র‌্যাব-৮ ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে জাকির হোসেনের বাসা থেকে হত্যাকাণ্ডের পর ওই বাড়ি থেকে চুরি করে আনা স্বর্ণালংকার, তিনটি মোবাইল ফোন ও একটি চাকু উদ্ধার করে। গ্রেফতার আসামি ও আলামত বানারীপাড়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। র‌্যাবের ধারণা- লোভের বশবর্তী হয়ে তারা এ ধরনের ঘৃণ্য কাজ করেছেন।
বরিশালের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আব্দুর রকিব জানান, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাশাপাশি হত্যাকাণ্ডের পর ওই বাড়ি থেকে চুরি যাওয়া স্বর্ণালংকার, তিনটি মোবাইল ফোন ও একটি চাকু উদ্ধার করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, বানারীপাড়ার সলিয়াবাকপুর গ্রাম থেকে গতকাল শনিবার সকালে একই পরিবারের তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁরা হলেন মারিয়াম বেগম, সফিকুল আলম ও মো. ইউসুফ। ঘরের বারান্দায় মরিয়মের, তাঁর জামাতা আলমের মরদেহ বাড়ির অন্য একটি কক্ষে এবং ইউসুফের হাত-পা বাঁধা মরদেহ পাওয়া যায় বাড়ির পুকুরে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft