শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
রাজশাহীতে নিয়ন্ত্রণহীন অটোরিকশা
যানজট নিয়ন্ত্রণে ১ নভেম্বর মাঠে নামছে রাসিক
ডাঃ মোঃ হাফিজুর রহমান (পান্না), রাজশাহী ব্যুরো :
Published : Sunday, 27 October, 2019 at 6:42 AM
যানজট নিয়ন্ত্রণে ১ নভেম্বর মাঠে নামছে রাসিকরাজশাহী মহানগরীতে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও অটোরিকশার তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে। সারাশহরে এসব যানবাহনের বিচরণের কারণে পথচারীরা পড়েছেন চরম বিড়ম্বনায়। নগরীর কোথাও কোথাও পথচারীদের পা ফেলারও জায়গা নেই। তবে শীঘ্রই এ অবস্থা থেকে উত্তরণের কথা বলছে সিটি করপোরেশন।
তবে এখন নগরীতে রিকশা-অটোরিকশার যানজটে অতিষ্ঠ রয়েছেন নগরবাসী। নগরীর সাহেববাজার এবং জিরোপয়েন্ট এলাকায় রাস্তায় সারাক্ষণ গিজ গিজ করে রিকশা এবং অটোরিকশা। এছাড়া নগরীর লক্ষ¥ীপুর মোড়, সোনাদীঘি মোড়, শিরোইল বাস টার্মিনাল, রেলগেট, বর্ণালী মোড়সহ আরও বেশকিছু স্থানে সব সময়ের জন্যই অটোরিকশার যানজট লেগে থাকছে।
গত সোম ও মঙ্গলবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষার কারণে নগরীর সাহেববাজার-বিনোদপুর সড়কে অটোরিকশার জট আরও বেড়ে যায়। ১০ মিনিটের এই পথ পেরুতে কমপক্ষে ৪০ মিনিট লেগেছে যাত্রীদের। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েন তারা।
নগরীর সাহেববাজার এলাকার কাপড় ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান বলেন, সারাক্ষণ তার দোকানের সামনে রিকশা এবং অটোরিকশা দাঁড়িয়ে থাকে। ফলে তার দোকানে ক্রেতারা যেতে পারেন না। আনিসুর বলেন, প্রয়োজনের তুলনায় অটোরিকশার সংখ্যা বেশি। তাই যানজট কমছে না। এতে আমাদের ভোগান্তিও কমছে না।যানজট নিয়ন্ত্রণে ১ নভেম্বর মাঠে নামছে রাসিক
জানা গেছে, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন তার আগের মেয়াদে শহরে অটোরিকশা চলাচলের অনুমতি দেন। অটোরিকশা চলাচলের জন্য সিটি করপোরেশন থেকে নিবন্ধন নিতে হয়। সেখানে নিবন্ধিত অটোরিকশার সংখ্যা প্রায় ১০ হাজার। কিন্তু একই নম্বর প্লেট বসিয়ে নগরীতে চলাচল করে একাধিক অটোরিকশা। নগরীতে এখন ঠিক কত সংখ্যক অটোরিকশা চলাচল করে তার কোনো হিসাব নেই। বিপুল সংখ্যক অটোরিকশা চলাচলের কারণেই কমছে না যানজট।
সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ সরিফুল ইসলাম বাবু বলেছেন, যানজট নিরসনে আগামী মাসের ১ তারিখ থেকে থেকে রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকায় নিয়ন্ত্রণ করা হবে অটোরিকশা চলাচল। দিনের দুই ভাগে পালাবদল করে চলাচল করবে মেরুন ও পিত্তি (সবুজ) রঙের অটোরিকশা। আসনবিন্যাস অনুযায়ী ভাগ করা হবে অটোরিকশাগুলোকে। আর দশ হাজার ছয় আসনের এবং পাঁচ হাজার দুই আসনের অটোরিকশাকে নিবন্ধন করা হবে। এর বেশি একটি অটোরিকশাকেও নিবন্ধন দেয়া হবে না। ফলে তারা শহরে চলতে পারবে না। এতে যানজট কমবে।
তিনি জানান, অটোরিকশা চলাচলকে ‘স্মার্ট অটোরিকশা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ নামের একটি প্রকল্পের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। যা সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন প্রকল্পটির উদ্বোধন করেন। এটি বাস্তবায়নে গত রোববার মহানগরীর অটোরিকশা বিক্রয় কেন্দ্র ও গ্যারেজ মালিকদের সঙ্গে সভা করা হয়েছে।
প্যানেল মেয়র আরও জানান, আগামী ১ নভেম্বর থেকেই নগরীতে নিবন্ধনহীন অটোরিকশার বিরুদ্ধে অভিযান চালাবে সিটি করপোরেশন। ফলে শহরে রিকশা-অটোরিকশা কমে আসবে। যানজটও কমবে। সেইসঙ্গে কমবে নগরবাসীর দুর্ভোগ।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft