সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
ফাঁড়ি ইনচাজের্র সহায়তায় উপশহরে মাদক ব্যবসা তুঙ্গে
কাগজ সবাদ :
Published : Friday, 25 October, 2019 at 6:24 AM
ফাঁড়ি ইনচাজের্র সহায়তায় উপশহরে মাদক ব্যবসা তুঙ্গেথানা পুলিশের অভিযান না থাকায় ও স্থানীয় ফাঁড়ি পুলিশের নিরবতায় উপশহর ও বিরামপুর এলাকায় সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট তাদের তৎপরতা বাড়িেিয় দিয়েছে। এক্ষেত্রে স্থানীয় ফাঁড়ি পুলিশকে ম্যানেজ করে এই তৎপরতা চালানো হচ্ছে বলে একাধিক অভিযোগ রয়েছে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, ব্যবসায়ীদের নিয়মিত মাসোহারায় উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ নিরবতা পালন করায় ওই এলাকায় ইয়াবা, ফেনসিডিল, গাঁজার রমরমা ব্যবসা চলছে। এখানকার কয়েকটি ব্লক, সেক্টর এলাকা, বিরামপুর, পাগলাদহ এলাকার কয়েটি স্পটে ডজন দু’য়েক কারবারী মাদক মোকাম চালু করেছে।
এদের মধ্যে অন্যতম বিরামপুরের একাধিক মাদক মামলার আসামি মোস্ট ওয়ান্টেড শাহিনুর ওরফে মনি, জীবন ওরফে ভাইপো জীবন, ভাইপো সাগর, কালীতলার পরিমল,করিম, সেক্টর রিপন।
এলাকাবাসী জানায়, বিরামপুরের কাজীপাড়া এলাকায় কারবার চালায় জীবন, চৌধুরী পাড়া এলাকায় মনি সিন্ডিকেট, কালীতলা এলাকায় পরিমল, ভাটা পাড়ায় সাগর, সারথি মিল এলাকায় রিপন। এলাকার উঠতি সন্ত্রাসীসহ নেতাগোছের কিছু লোকজনকেও ম্যানেজ করছে তারা। উপশহর এলাকার রনি ও ছাপ্পান নামে দু’জন ইন্ধন দিয়ে ওই ব্যবসা করাচ্ছে। তারাও মাদক কারবারের অভিযোগে এর আগে কয়েক দফা আটক হয়।ফাঁড়ি ইনচাজের্র সহায়তায় উপশহরে মাদক ব্যবসা তুঙ্গে
যশোরের উপশহরঘেষা শেখহাটি জামরুলতলা মোড়ে কয়েকজন গাঁজার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে এমন অভিযোগও এসেছে। এলাকার এক মাদক কারবারী কুঁড়ে ঘর থেকে পাকা বাড়ি নির্মাণ করে ঘরে বসেই গাঁজা বিক্রি ও সেবন করে যাচ্ছে।
এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন, স্থানীয় উপশহর ফাঁড়ি পুলিশ মাদক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে অর্থ বাণিজ্য করে চলেছে। বিশেষ করে বিরামপুরের মাদক সিন্ডিকেট প্রধান মনি উপশহর ফাঁড়ির ইনচার্জকে মোটা অংকের মাসোহারা দেয় বলে অভিযোগ। মনি সিন্ডিকেটের অবাধ মাদক বিকিকিনির কারণে উঠতি যুবকসহ এলাকার পরিবেশ নষ্ট করে চলেছে।
অভিযোগে আরও জানা যায়, উপশহর, বিরামপুর ও শেখহাটিকেন্দ্রিক মাদক ব্যবসায়ী চক্রটি বেনাপোল ও ছুটিপুরের কয়েকটি সিন্ডিকেট থেকে ফেনসিডিল, ইয়াবা নিয়ে আসে। বিরামপুরের কালীতলায় রয়েছে মাদকের কয়েটি ডেরা। এর পরিচালনাকারীরা এলাকার কয়েকজন উঠতি সন্ত্রাসীসহ নেতাগোছের কিছু লোকজনকে ম্যানেজ করে। পুলিশের পাশাপাশি ওই নেতারাও অর্থ বাণিজ্য করছে বলেও তথ্য মিলেছে। মাঝে মধ্যে পুলিশ কাউকে আটক করলেও অনেকে কতিপয় নেতার দেনদরবারে পার পেয়ে যায়।  কারবারীদের কেউ মাদক বহন ও বিক্রির কাজে টাকার বিনিময়ে অন্যদের ব্যবহার করছে। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft