বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল, ২০২০
আন্তর্জাতিক সংবাদ
কাশ্মীরে উত্তেজনা
অবশেষে গৃহবন্দিত্ব থেকে মুক্তি মিলল জম্মু নেতাদের
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Wednesday, 2 October, 2019 at 7:48 PM
অবশেষে গৃহবন্দিত্ব থেকে মুক্তি মিলল জম্মু নেতাদেরভারতীয় সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে ভূস্বর্গ খ্যাত জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করায় অঞ্চলটিতে ইতোমধ্যে এক থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। যা নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে এবার প্রায় দুই মাস গৃহবন্দি থাকার পর অবশেষে মুক্তি পেলেন জম্মুর অধিকাংশ রাজনৈতিক নেতারা।
কর্তৃপক্ষের বরাতে গণমাধ্যম ‘এনডিটিভি’ জানায়, সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদের মাধ্যমে রাজ্যকে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করার বিষয়ে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের নেওয়া পদক্ষেপের পর উপত্যকাটির এসব রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দকে আটক করেছিল প্রশাসন।
এর মাধ্যমে অঞ্চলটির নেতাদের দীর্ঘদিনের বন্দিদশা ঘুচলেও কাশ্মীরের পরিস্থিতি এখনো কিন্তু আগের মতোই আছে। কেননা সেখানকার রাজনৈতিক নেতারা এখনো গৃহবন্দি অবস্থাতেই আছেন।
সরকারি সূত্র অনুযায়ী, অঞ্চলটির আসন্ন ব্লক উন্নয়ন কাউন্সিলের নির্বাচন কেন্দ্র করে জম্মুর নেতাদের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় প্রশাসন। পঞ্চায়েত রাজ ব্যবস্থার দ্বিতীয় পর্যায় হিসেবে পরিচিত এই নির্বাচন। তাছাড়া বেশ কিছুদিন আগেই ব্লক উন্নয়ন কাউন্সিলের নির্বাচনের ঘোষণা করেছিল সরকার।
বিশ্লেষকদের মতে, জম্মুর পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত আছে। গত সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) উপত্যকাটির মুখ্য নির্বাচ‌নি কর্মকর্তা আসন্ন ভোটের কথা ঘোষণা করেছিলেন। মূলত এর কিছুদিন পর রাজনৈতিক নেতাদের উপর থেকে এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল প্রশাসন।
আগামী ২৪ অক্টোবর অঞ্চলটির মোট তিনশটি ব্লকে অনুষ্ঠিত হবে কাউন্সিল নির্বাচন। যা সেদিনই গণনা হবে। এবার প্রায় ২৬ হাজারের অধিক পঞ্চায়েত সদস্য তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।
এবার জম্মুতে গৃহবন্দিদশা থেকে মুক্তিপ্রাপ্তরা হলেন- রমণ ভাল্লা, দেবেন্দর সিংহ রানা, ভিকার রসুল, হর্ষদেব সিংহ, চৌধুরীলাল সিংহ, সুরজিৎ সিংহ স্লাথিয়া, জাভেদ রানা এবং সাজ্জাদ আহমেদ কিচলু।
গণমাধ্যমের দাবি, কাশ্মীরে উত্তেজনা শুরুর পর বড় ধরনের সংঘাতের আশঙ্কায় রাজ্যের প্রায় চার শতাধিক রাজনৈতিক নেতাকে হয় আটক নয়তো গৃহবন্দি করেছিল প্রশাসন। যাদের মধ্যে রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতি, ফারুক আবদুল্লার মতো নামও রয়েছে।
এর আগে গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিলের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছিল ক্ষমতাসীন মোদী সরকার। যার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিতর্কিত লাদাখ ও জম্মু ও কাশ্মীর সৃষ্টির প্রস্তাবেও সমর্থন জানানো হয়।
এসবের মধ্যেই চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে পাক-ভারত মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে একে একে ভারত সরকারের সঙ্গে বাণিজ্য, যোগাযোগসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিবেশী পাকিস্তান। যদিও এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে ভারত পাশে পেয়েছে রাশিয়াকে এবং পাক সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ ইরান।
ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারসহ রাজ্যের স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলে জানানো হলেও; কাশ্মীর জুড়ে এখনো সংঘর্ষ ও গ্রেফতারের ঘটনা ঘটছে বলে দাবি পাকিস্তানের।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft