বুধবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৯
সারাদেশ
চট্টগ্রামে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট
চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি :
Published : Sunday, 8 September, 2019 at 4:54 PM
চট্টগ্রামে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট৯ দফা দাবিতে বৃহত্তর চট্টগ্রামে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগীয় গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদ।  পরিবহন ধর্মঘটের কারণে সকালে গণপরিবহন সংকটে চাকরিজীবী ও শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়। এরই মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগীয় গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদের ডাকে পরিবহন ধর্মঘটে প্রত্যাখান করেছে বৃহত্তর চট্টগ্রাম পণ্য পরিবহন মালিক ফেডারেশন। চট্টগ্রামের সঙ্গে রাঙামাটি জেলায় যাত্রী ও পণ্যবাহী সব ধরনের গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকলেও অন্য জেলায় কক্সবাজার, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ফেনী, লক্ষ্মীপুর জেলায় যাত্রী ও পণ্যবাহী সব ধরনের গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।
রোববার (৮ সেপ্টম্বর) সকাল থেকে চট্টগ্রাম এ ধর্মঘট শুরু হয়। চট্টগ্রাম নগরীতে গণপরিবহন সংকটের কারণে চাকরিজীবী, শিক্ষার্থী ও সাধারণ যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। মাঝেমধ্যে দুয়েকটি মিনিবাসের দেখা মিললেও সেগুলোতে যাত্রীদের অতিরিক্ত ভিড়। এছাড়া পরিবহন ধর্মঘটকে কাজে লাগিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিক্সা যাত্রীদের কাছ থেকে দুই-তিনগুণ বেশি ভাড়া আদায় করছে।  
নয় দফা দাবি মেনে নিতে গত ৪ সেপ্টেম্বর সংবাদ সম্মেলন ৭২ ঘণ্টার সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিল সংগঠনটি। ৭২ ঘণ্টার সময়সীমা পার হওয়ায় অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে গেছে গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদ।
তবে ঐক্য পরিষদের দাবির সঙ্গে একমত হয়নি চট্টগ্রাম বাস মিনিবাস হিউম্যান হলার মালিক সমিতি। তারা ধর্মঘট প্রত্যাখ্যান করায় নগরে সীমিত সংখ্যক গণপরিবহন চলাচল করছে।
ঐক্য পরিষদের ৯ দফা দাবি হলো- গণ ও পণ্য পরিবহনের কাগজপত্র হালনাগাদ করার জন্য জরিমানা মওকুফ করা, জরিমানা মওকুফের সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত কাগজপত্র যাচাই বাছাইয়ের নামে হয়রানি বন্ধ করা, বিআরটিএ ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক ভোক্তা অধিকার আইন প্রয়োগ করে গণ ও পণ্য পরিবহনে কোনও অতিরিক্ত জরিমানা আদায় না করা, হাইওয়ে ও থানা পুলিশ কর্তৃক গাড়ি জব্দ ও রিকুইজিশন বন্ধ করা, চট্টগ্রাম মট্রো-এলাকায় গাড়ির ইকোনোমিক লাইফের অজুহাত দেখিয়ে ফিটনেস ও পারমিট নবায়ন বন্ধ না রাখা, ট্রাফিক পুলিশ কর্তৃক যান্ত্রিক ক্রুটিযুক্ত গাড়ি ছাড়া অন্য কোনো অজুহাত দেখিয়ে গণ ও পণ্য পরিবহন টু বা ডাম্পিং না করা, ড্রাইভার কর্তৃক চালিত গাড়ির রেকার ভাড়া আদায় না করা, সহজ শর্তে চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করা ও কাগজপত্র হালনাগাদের ক্ষেত্রে বিআরটিএর কার্যক্রমে ভোগান্তি বন্ধ করা।
বৃহত্তর চট্টগ্রাম পণ্য মালিক ফেডারেশনরে সভাপতি আব্দুল মান্নান বলেন, সারাদেশে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। চট্টগ্রামের উত্তর জেলার হাটহাজারীতে গাড়ি চলাচল করতে বাধা হয়েছে। বদ্দারহাট থেকে ককসবাজারগামী কয়েকটি গাড়ি চলাচলে বাধা প্রদান করেছে। আজকে যারা অবরোধের ডাক দিয়েছে তারা সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র লিপ্ত।
চট্টগ্রাম বিভাগীয় গণ ও পণ্য পরিবহন মালিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মঞ্জুরুল আলমকে কয়েকবার কল দিলে তিনি কল রিসিভ করেনি।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft