বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০
জাতীয়
খালেদাকে মুক্ত করার শপথ বিএনপির
ঢাকা অফিস :
Published : Monday, 2 September, 2019 at 8:43 PM
খালেদাকে মুক্ত করার শপথ বিএনপিররাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে কারাবন্দি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার শপথ নিয়েছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। দলটির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তারা এ শপথ নেন। এরপর, পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি হিসেবে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়।
উদ্বোধনী বক্তব্যে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা যদি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাই এবং তারেক রহমানকে দেশে ফিরে আনতে চাই তাহলে আমাদের ত্যাগ স্বীকার করে রাজপথে এসে স্বোচ্চার হয়ে এই স্বৈরাচার ও ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে হবে। সবাই রাজি আছেন? আমরা সেই আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে অবশ্যই বেগম জিয়া ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করবো। তাই আসুন, আজকে সুশৃঙ্খলার মধ্যে দিয়ে র্যালি করে প্রমান করি, বিএনপির সুশৃঙ্খল দল। আর বিএনপির শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবে এবং গণতন্ত্র ফিরে আনবে।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটক রেখে, প্রায় ২৬ লাখ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে ও ৫ শ’র ওপরে নেতাকর্মীদের গুম করে, হাজার হাজার নেতাকর্মীদের নিহত এবং আহত করে এই সরকার ভেবেছে গণতন্ত্র এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন তারা পদদলিত ও দমন করতে পারবে। কিন্তু আজকের এই র‌্যালি প্রমাণ করেছে যে, তারা গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন দমন করতে পারবে না।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকার আজকে পরিকল্পিতভাবে বেগম জিয়াকে বন্দি করে রেখে এবং লাখ লাখ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে। এর মধ্যে দিয়ে তারা একদলীয় শাসন ব্যবস্থা বাকশাল প্রতিষ্ঠিত করতে চায়। আমরা কি আবারো বাকশালে ফিরে যাবো! এতো সোজা নয়। কোন দিনই মেনে নেবো না।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আজকে সরকারের সব খেলা শেষ। তারা আমাদের দূর্বল করতে চেয়েছিল। কিন্তু আমরা দূর্বল নিই, আগের চেয়ে আমরা অনেক শক্তিশালী। তাই আজকের প্রতিষ্ঠাতাবার্ষিকীতে আমাদের শপথ হোক, স্বৈরাচার হঠাও দেশ বাঁচা, মানুষ বাঁচাও এবং খালেদা জিয়াকে মুক্ত করো। আর এখান থেকে খালেদা জিয়ার মুক্তির আনন্দোলন শুরু হলো।
দলের স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির মিছিল সরকার আর স্তব্ধ করতে পারবে না। অনেকেই বলেন, আন্দোলন কবে হবে? আমি বলবো, বেগম জিয়ার আন্দোলন শুরু হয়ে গেছে।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আজকে আমাদের একটি দাবি, সেটা হলো বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি। আর এই দাবি আদায় করতে হলে, মিছিলে মিছিলে যোগ দিতে হবে এবং রাজপথ দখল করতে হবে। কারণ খালেদা জিয়াকে মুক্তি করতে হলে আন্দোলন ছাড়া দ্বিতীয় কোন পথ নাই। কারণ বেগম জিয়ার মুক্তিতে বাধা সরকার। তাই সরকারের পতন ছাড়া বেগম জিয়ার মুক্তির হবে না। তাই আসুন, আমরা সরকার পতনের আন্দোলনে যাই।
বিকেল সাড়ে ৩টায় রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালিটি শুরু হয়। শেষ হয় শান্তিনগর মোড় হয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এসে। র‌্যালি জন্য দুটি ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চ তৈরি করা হয়।
এরআগে দুপুর ১টা থেকে র‌্যালিতে যোগ দিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে শুরু করে দলটির নেতাকর্মীরা। এসময় ঢাকা মহানগরের থানা, ওয়ার্ড ও বিভিন্ন জেলার কয়েক হাজার নেতাকর্মীদের মিছিল নিয়ে উপস্থিত হতে দেখা গেছে।
র‌্যালিতে নেতাকর্মীরা দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ছাড়াও, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি সংম্বলিত বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড, ব্যানার, জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা নিয়ে স্লোগান দিতে দেখা যায়।
এদিকে র‌্যালিতে ঘোড়ার গাড়ি, ঢোল, সাউন্ড বক্স, বেলুন, ছোট ছোট কয়েকটি ট্রাক নিয়ে বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা র‌্যালি যোগ দিয়েছেন।
এছাড়া র‌্যালিতে একটি ট্রাকে মশারি টানানো হয়। এর পাশে ব্যানারে লেখা ছিল, ‘ডেঙ্গু মশা নির্মূলে সরকার ব্যর্থ’।
অপরদিকে বিএনপির র‌্যালিকে ঘিরে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের আশপাশের এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কঠোর নিরাপত্তার বলায় গড়ে তুলতে দেখা গেছে।
র‌্যালি পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীসহ দলটির অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনসহ বিভিন্ন জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft