বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
ইন্ধনের তথ্য পেয়েছে ডিবি
রিমাণ্ডে ইমরোজ খুনে সংশ্লিষ্টতা অস্বীকার পান্নু ও সাগরের
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Thursday, 29 August, 2019 at 6:51 AM
রিমাণ্ডে ইমরোজ খুনে সংশ্লিষ্টতা অস্বীকার পান্নু ও সাগরের যশোরের ভাতুড়িয়ার ঘের ব্যবসায়ী ইমরোজ হোসেন (২৮) হত্যা মামলার প্রধান আসামি মৎস্যচাষী ও শ্রমিকলীগ নেতা সেলিম রেজা পান্নু ও আবু হেনা মোস্তফা কামাল সাগরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও তারা খুনে সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করেছে। এ কারণে কার্যত চাঞ্চল্যকর কোনো তথ্য আসেনি জিজ্ঞাসাবাদ থেকে।
তবে ইন্ধন দেয়া ও পরোক্ষ সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া গেছে বলে দাবি জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জের। এছাড়া হত্যায় কার অস্ত্রটি ব্যবহার করা হয়েছে সে ব্যাপারে তদন্ত এগুচ্ছে। ওই দু’আসামির মোবাইল ট্রাকিংয়ের কাজ চলছে। তথ্য আসলেই হত্যা পরিকল্পনা ও কারণ আরও পরিস্কার হওয়া যাবে বলেও তথ্য দিয়েছে ডিবি। ওই মামলায় পলাতকরা দ্রুতই আটক হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা।
গত ২৪ জুলাই দুপুরে ভাতুড়িয়া পূর্বপাড়ার ঘের ব্যবসায়ী ইমরোজ খুন হন। একদিন পর ২৫ জুলাই নিহতের বাবা নূর ইসলাম নুরু চিহ্নিত ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৮/১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে হত্যা মামলা করেন। আসামি করা হয় ভাতুড়িয়ার মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মৎস্যচাষী ও জেলা শ্রমিকলীগ নেতা সেলিম রেজা পান্নু, চাঁচড়া চেকপোস্টের তৌহিদুল ইসলামের ছেলে আকিবুর রহমান, ভাতুড়িয়া দাড়িপাড়ার আনুর ভাড়াটিয়া আরএন রোডের আজমের ছেলে মোস্তফা ওরফে মোস্ত, বাহাদুরপুরের রহমানের ছেলে আলী, চাঁচড়া ডাল মিল এলাকার শহর আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুর রহমানের ছেলে রিংকু, মৃত ভগোর ছেলে স্বাধীন, শাহাজানের ছেলে রহিম, চাঁচড়ার কানা খোকনের ছেলে শাহিন, বাবুর ছেলে রনি, এনামুল সরদারের ছেলে নাজমুল, ভাতুড়িয়া পশ্চিমপাড়ার রাজা মিয়ার ছেলে তানভীর, ঝাউদিয়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে সজল ও ভাতুড়িয়ার ইয়াসিন বিশ্বাসের ছেলে আবু হেনা মোস্তফা কামাল সাগরকে। গত ২৬ ও ২৭ জুলাই পুলিশ আটক করে এজাহার নামীয় আসামি ভাতুড়িয়া দাড়িপাড়ার আনুর ভাড়াটিয়া আর এন রোডের আজমের ছেলে মোস্তফা ওরফে মোস্ত ও ঝাউদিয়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে সজলকে। আর অধিক গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় গত ২৯ জুলাই পুলিশ সুপার মামলাটি যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখায় হস্তান্তর করেন। ডিবির অফিসার ইনচার্জ মারুফ আহমেদের নেতৃত্বে মামলার তদন্ত ভার গ্রহণ করে মাঠে নামেন ডিবির আইটি বিশেষজ্ঞ এসআই শামীম হোসেন। ৩০ জুলাই মামলা বুঝে নেয়ার একদিন পর ৩১ জুলাই তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে টুঙ্গী থেকে আটক করতে সক্ষম হন যশোরের বাহাদুরপুরের রহমানের ছেলে আলী, চাঁচড়া ডাল মিল এলাকার শহর আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুর রহমানের ছেলে রিংকু, চাঁচড়া মধ্যপাড়ার মৃত ভগোর ছেলে স্বাধীন ও ভাতুড়িয়া দাইপাড়ার শাহাজানের ছেলে রহিমকে।  
এদিকে প্রধান আসামি মৎস্য চাষী সেলিম রেজা পান্নু ও তার সহযোগী আবু হেনা মোস্তফা কামাল সাগর আত্মগোপনে চলে যায়। এলাকাবাসী ও পরিবারের দাবির মুখে তাদের দ্রুত আটক করতে জোরেসোরে অভিযান পরিচালনা শুরু করে ডিবি। জোরালো পুলিশি অভিযানে হাইকোর্ট থেকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন নেন পান্নু ও সাগর। আর ২১ আগস্ট জামিনের সময় শেষ হওয়ায় যশোরে নি¤œ আদালতে হাজিরা দিতে গেলে আদালত তাদের জেল হাজতে পাঠায়।
এদিকে মামলার হত্যা রহস্য ও পরিকল্পনা এবং পলাতক অন্য আসামিদের অবস্থান নিশ্চিত হতে ২২ আগস্ট ডিবির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শামীম হোসেন ৭ দিনের রিমান্ড চান ওই দু’জনের। ২৫ আগস্ট রিমান্ড শুনানী শেষে তাদের দুদিন করে মঞ্জুর করে আদালত। ২৬ আগস্ট ওই দু’আসামিকে ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়। ২৭ ও ২৮ আগস্ট তাদের জিজ্ঞাসাবাদের আওতায় আনে গোয়েন্দা পুলিশ।
এ ব্যাপারে যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ মারুফ আহমেদ ও তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শামীম হোসেন গ্রামের কাগজকে জানান, পান্নু ও সাগর রিমান্ডে মুখ খোলেনি। তারা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে সংশ্লিষ্টতা অস্বীকার করেছে। তারা জানিয়েছে, স্থানীয় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ নিহতের পরিবারকে ভুল পথে পরিচালনা করে তাদের ফাঁসিয়েছে। তবে তারা হত্যা মিশনের স্পটে না থাকলেও পরোক্ষভাবে জড়িত এমন তথ্য প্রমাণ ডিবির হাতে আছে। পান্নু ও সাগরের মোবাইল ট্রাকিংয়ের কাজ চলছে। ওই ট্রাকিং থেকে তথ্য নেয়ার চেষ্টা চলছে। এছাড়া পলাতকদের দ্রুত আটকে প্রযুক্তি ব্যবহার করে এগুচ্ছেন তদন্ত কর্মকর্তা।  এছাড়া ওই খুনে কার অস্ত্রটি ব্যবহার হয়েছিল সে ব্যাপারেও  তথ্য উদঘাটনের কাজ চলছে। আজ পান্নু ও সাগরকে আদালতে তোলা হবে। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft