বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯
অর্থকড়ি
ভারত থেকে ২০টি রেলইঞ্জিন ভাড়ায় আনা হচ্ছে
কাগজ ডেস্ক :
Published : Monday, 26 August, 2019 at 8:57 PM
ভারত থেকে ২০টি রেলইঞ্জিন ভাড়ায় আনা হচ্ছেরেলে ইঞ্জিন সংকট কাটাতে ভারতের কাছে ২০টি ইঞ্জিন উপহার চেয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ভারত তাতে রাজি হওয়ার সম্ভাবনা কম। তাই আপাতত চুক্তিভিত্তিক ভাড়ায় ২০টি ইঞ্জিন ভারত থেকে নিয়ে আসার আলোচনা চলছে। শীঘ্রই সেগুলো বাংলাদেশ রেলওয়ের বহরে যুক্ত হবে বলে জানা গেছে।
সোমবার (২৬ আগস্ট) বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালকরের দফতর সূত্রে জানা যায়, ভারতে থেকে ভাড়াভিত্তিক ১০টি মিটারগেজ ও ১০টি ব্রডগেজ ইঞ্জিন আনার জন্য দুই দেশের মন্ত্রী পর্যায়ে বৈঠক হয়েছে। এখন কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনা চলছে।
রেল সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ রেলওয়েতে ১৭৮টি মিটারগেজ ও ৯০টি ব্রডগেজ ইঞ্জিন বা লোকোমোটিভ রয়েছে। এসব ইঞ্জিন দিয়েই বিভিন্ন রুটের ট্রেন পরিচালনা করা হচ্ছে। এছাড়া মিটারগেজ যাত্রীবাহী কোচ আছে এক হাজার ১৪৫টি এবং ব্রডগেজ যাত্রীবাহী কোচ আছে।
রেলের লোকোমোটিভ সংগ্রহ শাখা থেকে জানা যায়, রেলের কেনা পুরনো মিটারগেজ ১৭৮টি ইঞ্জিন রয়েছে। এসব ইঞ্জিনের মেয়াদকাল ছিল ২০ বছর। কিন্তু এর মধ্যে ৩৯টি আছে ২০ বছরের মধ্যে। ৪৪টি ইঞ্জিনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। ৩১টি ইঞ্জিনের বয়স হয়েছে ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং ৬৪টি ইঞ্জিনের বয়স ৪১ বছরের উপরে। অর্থাৎ মিটারগেজ বেশিরভাগ ইঞ্জিন চলাচলের অনুপযোগী এবং মেয়াদোত্তীর্ণ।
এদিকে পশ্চিমাঞ্চলে চলাচলকারি ৯০টি ব্রডগেজ ইঞ্জিনের মধ্যে ৩৯টি ইঞ্জিনের বয়স ২০ বছরের মধ্যে আছে। ২৪টি ইঞ্জিনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং ২৭টি ইঞ্জিনের বয়স ৪১ বছরের উপরে। অর্থাৎ ব্রডগেজ বেশিরভাগ ইঞ্জিনও মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে।
জানা যায়, মেয়াদোত্তীর্ণ ইঞ্জিন বাদ দিয়ে নতুন ইঞ্জিন কেনার প্রকল্প চলমান রয়েছে। তিনটি প্রকল্পের আওতায় ১০০টি মিটারগেজ ইঞ্জিন আসবে। আলাদা আরেকটি প্রকল্পে ৪০টি ব্রডগেজ ইঞ্জিন নিয়ে আসা হবে।
আরও জানা যায়, প্রথম ধাপে এডিবির অর্থায়নে কোরিয়া থেকে ১০টি মিটারগেজ ইঞ্জিন আনা হবে ২০২০-২১ অর্থবছর নাগাদ। দ্বিতীয় ধাপে ইডিসিএফ কোরিয়ার অর্থায়নে ২০টি ইঞ্জিন আনা হবে কোরিয়া থেকে।
তৃতীয় ধাপে সাপ্লায়ার ক্রেডিটের মাধ্যমে চীন থেকে ৭০টি ইঞ্জিন আনা হবে। তবে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের ইঞ্জিন কবে নাগাদ বাংলাদেশে আসবে সেটি জানা যায়নি। তাছাড়া আলাদা প্রকল্পের আওতায় ৪০টি ব্রডগেজ ডিজেল ইলেকট্রিক ইঞ্জিন আনা হবে ২০২২ সাল নাগাদ।
বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মিয়া জাহান বলেন, 'রেলমন্ত্রী কিছুদিন আগে ভারত সফরে গিয়েছিলেন। সেখানে দুই দেশের রেলের উন্নয়নে বিভিন্ন চুক্তি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তার মধ্যে রেলের ২০টি লোকোমোটিভ নিয়ে আসারও একটা কথা হয়েছে।’
মিয়া জাহান আরও বলেন, 'ইঞ্জিন বাড়ানোর জন্য বেশকিছু প্রজেক্ট চলমান রয়েছে। যতদিন এসব নতুন ইঞ্জিন দেশে না আসে, ততদিন পর্যন্ত ভারতের কাছ থেকে নেওয়া এই ২০টি ইঞ্জিন দিয়ে কাজ চালোনো হবে।’
তিনি বলেন, ‘ভারতকে বলেছি, তোমরা আমাদের ২০টি ইঞ্জিন উপহার দাও। আমাদের আমদানি করা নতুন ইঞ্জিনগুলো আসলে তোমাদের ইঞ্জিন ফেরত দেব। তারা যদি এই চুক্তিতে রাজি না হয়, সেক্ষেত্রে ভাড়াভিত্তিক ভারত থেকে ২০টি ইঞ্জিন নিয়ে আসব।’ নতুন ইঞ্জিন আসলে পর্যায়ক্রমে পুরনো ও মেয়াদোত্তীর্ণ ইঞ্জিন ট্রেনের বহর থেকে বাদ দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft