বৃহস্পতিবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
সারাদেশ
আদমদীঘিতে থ্যালাসিমিয়ায় আক্রান্ত তিন বোন
অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে হিমশিম খাচ্ছেন হতভাগ্য পিতা
আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি :
Published : Thursday, 22 August, 2019 at 3:45 PM
অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে হিমশিম খাচ্ছেন হতভাগ্য পিতামানুষ মানুষের জন্যে--জীবন জীবনের জন্যে--একটু সহানুভুতি কি মানুষ পেতে পারেনা ও বন্ধু। কালজ¦য়ী কন্ঠশিল্পী ভূপেন হাজারিকার গানের সেই পংতী গুলো আজও মানুষের হৃদয়ের মাঝে দোলা দিয়ে আসছে। একজন মানুষের জন্মই বোধ হয় অন্য মানুষের মঙ্গল করার জন্য। একজনের সহানুভুতি অপর জন পেতে পারে, গানের এই কথা গুলো আজ বাস্তবে দেখা দিয়েছে আদমদীঘি উপজেলার চাঁপাপুর বাজারের বাইসাইকেল মেকার গোলাম মোস্তফার পরিবারে। তার তিন মেয়েই এখন থ্যালাসিমিয়া রোগে আক্রান্ত হয়েছে। তাদের প্রতি মাসেই শরীরে রক্ত দিয়ে বাঁচিয়ে রাখতে হচ্ছে। কিন্তু দরিদ্র গোলাম মোস্তফা অর্থের অভাবে মেয়েদের বাঁচিয় রাখতে হিমশিম খাচ্ছেন। তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রীসহ সমাজের বিত্তবানদের নিকট মেয়েদের বাঁচাতে অর্থ সাহায্যের আহবান জানিয়েছেন।
আদমদীঘির চাঁপাপুর বাজারের বাইসাইকেল মেকার গোলাম মোস্তফার সংসারে স্ত্রী ও তিন মেয়ের মধ্যে ১ম মেয়ে তানিয়া সুলতানা বিথী দুপচাঁচিয়া মহিলা কলেজে রাষ্ট্র বিজ্ঞানের বিএ (অনার্স) ৪র্থ বর্ষের ছাত্রী, ২য় মেয়ে নাদিয়া সুলতানা দিথী চাঁপাপুর জালাল উদ্দিন আহমেদ কলেজের ২ম বর্ষে ও ৩য় মেয়ে সামিয়া সুলতানা চৈতি কাঞ্চনপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেনীতে পড়াশুনা করে। তিন মেয়েই ছোট বেলা থেকে শারীরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় চিকিৎসকের শরনাপন্ন হন। চিকিৎসক জানায়, গোলাম মোস্তফা এবং তার স্ত্রীর শরীরে রক্তের একই গ্রুপ ‘ও’ পজেটিভ হওয়ার কারনে তার তিন মেয়েই রক্তের গ্রুপ “ও” পজেটিভ হয়েছে। ফলে তারা থ্যালাসিমিয়া ও রক্তশূণ্যতা রোগে আক্রান্ত হয়। বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকের পরামর্শে প্রতি মাসেই তিন মেয়ের শরীরে রক্ত দিতে হয়। দরিদ্র গোলাম মোস্তফা তার সহায় সম্বল বিক্রি ও বিভিন্ন ভাবে দেনা করে এ পর্যন্ত মেয়েদের শরীরে প্রতিমাসে রক্ত কিনে দিয়ে কোন রকরমে বেঁচে রেখেছেন। উপজেলা সমাজসেবা অফিস প্রতি মাসে মাত্র এক ব্যাগ রক্তের জন্য ১হাজার ২শত টাকা, ফলিসন ও গ্যাসের ট্যাবলেট প্রদান করেন। অবশিষ্ট রক্ত ক্রয়সহ অন্যান্য চিকিৎসা করাতে হিমশিম খাচ্ছেন তিনি। হতভাগ্য তিন মেয়ের বাবা গোলাম মোস্তফা বিয়ের আগে প্রতিটি ছেলে ও মেয়ের রক্তের গ্রুপ পরীক্ষা করে নেয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, থ্যালাসিমিয়ায় আক্রান্ত মেয়েদের চাকুরির ব্যবস্থা করা হলে বাঁকি জীবন চিকিৎসা করানো অনেকটা সহজ হতো। বর্তমানে থ্যালাসিমিয়া ও রক্তশূণ্যতা রোগে আক্রান্ত তিন মেয়েদের বাঁচাতে আর্থিক সহযোগিতার জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং সমাজের বিত্তবানদের নিকট আকুল আবেদন জানান। তার রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক চাঁপাপুর শাখা সঞ্চয়ী হিসাবনং ৩৪৯১-এ সাহায্য পাঠানো এবং ০১৭৩৭-২১১৬১২ ও ০১৭৭২-৮৯৭০৫৭ নম্বর মোবাইলে জানানোর জন্য অনুরোধ করেছেন তিনি।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft