শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
ক্রীড়া সংবাদ
রেকর্ড গড়ে প্রিমিয়ার লিগে শীর্ষে লিভারপুল
ক্রীড়া ডেস্ক :
Published : Sunday, 18 August, 2019 at 6:09 PM
রেকর্ড গড়ে প্রিমিয়ার লিগে শীর্ষে লিভারপুলযখন ব্রেন্ডন রজার্সের হাত থেকে ম্যানেজারের দায়িত্ব নিয়ে নেয়া হয় তখন লিভারপুল নিজেদের অতীত ভেবে ভেবে দিন পার করছে। হারানো অতীত নিয়ে বর্তমান সময়গুলো ব্যথাতুর করে তুলছিলো প্রতিটি ভক্তকে। বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে সদ্য বিদায় নেয়া ইয়র্গেন ক্লপের হাতে দায়িত্ব দেয়া হয় লিভারপুলের। জার্মান লিগে বায়ার্নের একক আধিপত্যকে চ্যালেঞ্জ করা কোচ ক্লপের কাছে দায়িত্ব তুলে দিয়ে আশা ছিলো ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং চেলসির আধিপত্য যেন লিভারপুল ভেঙেচুরে নিজেদের করে নেয়।
ক্লপ দায়িত্ব নিলেন। তারপরের ইতিহাস প্রত্যেকটি ফুটবল ভক্তের জানা। টানা দুইবার চ্যাম্পিয়নস লিগে ফাইনালে ওঠে লিভারপুল। প্রথমবার রিয়ালের কাছে হেরে যায় ক্লপের দল। এরপরের সিজনে আর ভুল করেননি সালাহ-মানেরা। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে বার্সেলোনার কাছে ন্যু ক্যাম্পে ৩-০ গোলের ব্যবধানে হেরে যায় লিভারপুল। এমন হারের পরে কেউ ভুল করেও ভাবেননি লিভারপুল ফাইনাল খেলবে। কিন্তু একজন ছিলেন কিছু একটা অলৌকিক ঘটানোর। ঘরের মাঠে ৪-০ গোলে বার্সাকে হারিয়ে দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করে ফাইনালে জায়গা করে নেয় ইয়র্গেন ক্লপের ক্লাব লিভারপুল। ফাইনালে টটেনহামকে হারিয়ে দীর্ঘদিনের শিরোপা খরা কাটিয়ে মর্যাদার চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতে নেয় লিভারপুল।
গত সিজনে প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জয়ে একদম কাছে গিয়ে শিরোপা খোয়াতে হয় লিভারপুলকে। ম্যান সিটির কাছে শিরোপা হারিয়ে এই মৌসুমে আরো ক্ষীপ্র গতিতে শুরু করেছে অল রেডরা। একের পর এক রেকর্ড করে যাচ্ছেন মোহামেদ সালাহরা।
গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয় করে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে রানার্সআপ হন তারা। এবার নতুন একটি রেকর্ড স্পর্শ করলেন অলরেডরা। তা হলো- লিভারপুলের ইতিহাসে টানা ১১ ম্যাচ জয়ের রেকর্ডে ভাগ বসালেন ইয়ুর্গেন ক্লুপের শিষ্যরা।
শনিবার অ্যাওয়ে ম্যাচে সাউদাম্পটনকে ২-১ গোলে হারিয়ে প্রিমিয়ার লিগে এ রেকর্ড গড়ে লিভারপুল। সেই সঙ্গে লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে গেল দলটি।আগের ম্যাচের মতো শনিবারও নিজের দক্ষতা দেখিয়েছেন অনিয়মিত স্প্যানিশ গোলরক্ষক আদ্রিয়ান। ম্যাচের ২২ মিনিটে দারুণ দক্ষতায় গোল বাঁচিয়ে লিভারপুলকে রক্ষা করেন তিনি।
প্রথমার্ধের পুরো ৪৫ মিনিট গোলের দেখা পায়নি কোনো দলই। তবে ইনজুরি টাইমে লিড নেয় লিভারপুল। ৪৬ মিনিটে ডি-বক্সের বাঁ-দিকে মিলনারের পাস থেকে বল পেয়ে গোল করেন সাদিও মানে। দ্বিতীয়ার্ধে নেমে অনেকটা গোলশূন্য থাকে দুই দলই। ম্যাচের ৭১ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রবার্তো ফিরমিনোর দুর্দান্ত গোলে ব্যবধান বাড়ায় লিভারপুল। এবারও গোল করতে অবদান রাখেন সেনেগাল ফরোর্য়াড সাদিও মানে।
তার পাস থেকে বল পেয়ে ডি-বক্সে ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে জোরাল শটে সাউদাম্পটনের লক্ষ্যভেদ করেন ফিরমিনো। ২-০ তে এগিয়ে যান অলরেডরা।তবে ৮৩ মিনিটে গিয়ে ব্যবধান কমিয়ে আনে সাউদাম্পটন। ব্যাক পাস থেকে বল পেয়ে গোল করেন ড্যানি ইঙ্গস। এর তিন মিনিট পরই সমতা ফেরানোর দারুণ একটা সুযোগ পান ইঙ্গস। তবে তা হাতছাড়া করায় আর খেলায় ফিরতে পারেনি সাউদাম্পটন।
এক গোল পিছিয়ে থেকেই খেলার সমাপ্তি ঘটে। সেই সঙ্গে টানা ১১ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়ে লিভারপুল।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft