মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
চেকপোস্টে উপচেপড়া ভিড়
বেনাপোলে ভারতমুখী যাত্রীদের দুর্ভোগ
মুসলিম উদ্দিন পাপ্পু, বেনাপোল থেকে :
Published : Saturday, 17 August, 2019 at 6:12 AM
বেনাপোলে ভারতমুখী যাত্রীদের দুর্ভোগ    কোরবানির ঈদের লম্বা ছুটি কাটাতে ভ্রমণ পিপাসু মানুষের বেনাপোল চেকপোষ্টে মারাত্মক দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে। প্রতিদিন হাজার হাজার বাংলাদেশি যাত্রী বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে তাদের। পরিবার পরিজন নিয়ে কেউ যাচ্ছেন বেড়াতে, কেউ যাচ্ছেন ডাক্তার দেখাতে, কেউবা যাচ্ছেন আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে। তারাই প্যাসেঞ্জার টার্মিনালে নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন।
বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোষ্ট দিয়ে প্রতিদিন পাঁচ থেকে ছয় হাজার পাসপোর্ট যাত্রী দু’  দেশের মধ্যে চলাচল করছেন। এবার কোরবানির ঈদের লম্বা ছুটি পাওয়ায় বাংলাদেশি যাত্রীদের ভারতে যাচ্ছে গণহারে। অন্যান্য সময়ের তুলনায় এখন দ্বিগুণের চেয়ে বেশি যাত্রী ভারতে যাচ্ছে। গত এক সপ্তাহে এই চেকপোষ্ট দিয়ে ৩৫ হাজার যাত্রী ভারতে গেছেন। ভারত থেকে আসা যাত্রীর সংখ্যা খুবই কম। ভারতে যাওয়ার সময় খোলা আকাশের নিচে রোদ বৃষ্টিতে ভিজে মারাত্মক দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন তারা।
একজন পাসপোর্ট যাত্রীকে নোম্যান্সল্যান্ডে পৌঁছাতে বাংলাদেশ অভ্যন্তরে সাত জায়গায় লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে। যাত্রীরা বেনাপোল চেকপোষ্ট কাস্টম ও ইমিগ্রেশন পুলিশের সেবায় সন্তুষ্ট হলেও অভিযোগ করেন প্যাসেঞ্জার টার্মিনালের সেবার মান ও কর্তব্যরত আনসার সদস্যদের বিরুদ্ধে। যাত্রীরা অভিযোগ করে বলেন, প্রত্যেকে প্যাসেঞ্জার টার্মিনাল ফি বাবদ ৪২ টাকা নেয়ার কথা থাকলেও তাদের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে ৫০ টাকা। তারপরও এখানে কোনো বসার জায়গা নেই। ঈদের পরে ভারতে যাওয়ার যাত্রীদের চাপ বেশি থাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা যাত্রীদের রোদ বৃষ্টির মধ্যে খোলা আকাশের নিচে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। এখানে আবার রয়েছে আনসার ও আর্মড পুলিশ বাহিনী। এ আর্মড পুলিশ ও আনসার সদস্যরা যাত্রীদের কাছ থেকে পাঁচশ’ টাকা করে নিয়ে লাইন ছাড়াই আগে পার করে দিচ্ছেন বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন। কারো কারো কাছ থেকে এক হাজার টাকাও নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন। টাকা নিয়ে লাইন ছাড়াই ভিতরে ঢুকতে দেয়ায় লাইনে থাকা যাত্রীদের লাইনেই পড়ে থাকতে হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা। এখানে টাকা দিলে টার্মিনালের ভিতরে ঢোকা যাচ্ছে আর টাকা না দিলে ঢোকা যাচ্ছেনা।  কিন্তু এটা দেখার কেউ নেই।
বেনাপোল ইমিগ্রেশন থেকে সহজে পার হলেও  দু’দেশের নোম্যান্সল্যান্ড এলাকায় আবারো বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে। ভারতীয় গেটে ধীর গতিতে পাসপোর্ট চেকিং করায় নোম্যান্সল্যান্ড এলাকায় দীর্ঘ লাইনের সৃষ্টি হচ্ছে। বেলা বৃদ্ধির সাথে সাথে এ লাইনের মাত্রা আরও বাড়তে থাকে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা খোলা আকাশের নিচে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে এসব পাসপোর্ট যাত্রীর। রোদ বৃষ্টি আর ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে যাত্রীরা। বিশেষ করে  শিশু, নারী রোগী ও বৃদ্ধরা পড়ছেন মহাবিপাকে।
বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সহকারী কমিশনার উত্তম চাকমা জানান, বেনাপোল চেকপোষ্টে যাত্রী সেবার মান বৃদ্ধি করা হয়েছে। কোনো যাত্রী যাতে হয়রানির শিকার না হয় তার জন্যে তদারকি করছি। রোগী ও শিশু সাথে থাকা যাত্রীদের লাইন ছাড়া প্রবেশের অনুমতি দেয়া হচ্ছে।
বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ওসি (তদন্ত) মাসুম বিল্লাহ বলেন,ঈদের লম্বা ছুটির কারণে বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে বেশি সংখ্যক যাত্রী ভারতে যাচ্ছে। অন্যান্য সময়ের চেয়ে এখন দ্বিগুণ যাত্রী ভারতে যাচ্ছে। গত সাত দিনে এ চেকপোষ্ট দিয়ে ৩৫ হাজার যাত্রী ভারতে গেছেন। রোগী ও বয়স্ক যাত্রীদের জন্যে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। আনসারদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পেলে তাদের কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft