বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
সাতমাইল পশুহাটে সংকটে ক্রেতা, বিক্রেতা, ইজারাদার
কাগজ সংবাদ :
Published : Sunday, 11 August, 2019 at 6:00 AM
সাতমাইল পশুহাটে সংকটে ক্রেতা, বিক্রেতা, ইজারাদার যশোরের খামারগুলোতে পালিত গরুতে সয়লাব স্থানীয় কোরবানির পশুর হাট। কিন্তু হাটভেদে বেচাকেনা অনেক কম। সেইসাথে দাম নিয়ে অসন্তুষ্ট বিক্রেতা ও  ক্রেতা উভয় পক্ষ। খামারিদের দাবি, গরু পালনে যে খরচ হয়েছে সে দামও বলছে না  ক্রেতারা। ফলে লোকসানের আশঙ্কা তাদের। অপরদিকে, ক্রেতারা বলছেন, এবছর গরুর দাম গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি। এসব কারণে চিন্তিত হাট ইজারাদাররাও।
যশোরের অন্যতম বড় পশুর হাট শার্শার সাতমাইল। সপ্তাহে দু’দিন শনি ও মঙ্গলবার বসে এ হাট। একদিন বাদে কোরবানির ঈদ হওয়ায় এ হাটের চিত্র এখন ভিন্ন। হাটের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত পর্যন্ত স্থানীয় খামারগুলোতে হৃষ্টপুষ্ট করা গরুতে সয়লাব। বিশেষ করে যশোর ও সাতক্ষীরা জেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে বিক্রির জন্যে দেশি গরুর পাশাপাশি আসছে হরিয়ানা, সিন্ধি, বুগদায়, ফ্রিজিয়ান, জার্সি, পাকিস্তানিসহ নানা জাতের গরু। পর্যাপ্ত গরু উঠলেও সাতমাইল হাটে আসা খামারিরা বলছেন, এবছর হাট বেশ মন্দা যাচ্ছে। একটি গরু পালনে যে খরচ হয়েছে সেই দাম ক্রেতারা বলছে না। ফলে, লোকসানের শঙ্কা তাদের।
ক্রেতাদের দাবি, গরুর সাইজ হিসেবে বিক্রেতারা দাম হাঁকছেন বেশি। ফলে, গরু কিনতে পারছেন না তারা। এক ক্রেতা বলেন, গরু হিসেবে দাম অনেক বেশি চাইছে। তাই ক্রয় করা আমাদের পক্ষে অসম্ভব হয়ে যাচ্ছে।
আরেক ক্রেতা বলেন, এইভাবে দাম চাইলে তো আমরা গরু কিনতে পারবো না।
কোরবানির গরুর দাম নিয়ে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সাথে সংকটে পড়েছেন হাট ইজারাদাররাও। তাদের দাবি, এ বছর মোটা অংকের লোকসান গুণতে হবে।
শার্শার সাতমাইল হাটের সভাপতি ইলিয়াস কবীর বকুল বলেন, গরুর প্রচুর আমদানি। কিন্তু, বেচাকেনা নেই। এতে এই হাটের ৩২শ’ শেয়ার হোল্ডার সকলে হতাশ হয়ে পড়েছেন।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft