সম্পাদকীয়
চিকুনগুনিয়ার ‘মহামারি’ থেকে বাঁচান
Published : Wednesday, 12 July, 2017 at 12:46 AM
চিকুনগুনিয়া ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। বলা যায় ‘মহামারি’ আকারে ছড়িয়ে পড়েছে এ রোগ। সে অনুযায়ী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো কার্যকর পদক্ষেপ নিতে দেরি করেছে। এ রকমই মত দিয়েছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এমনকি ‘মহামারি’ বলতে রাজি নন সরকারি কর্মকর্তাদের কেউ কেউ। অথচ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মহামারির সঙ্গে মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক নেই। একটি নির্দিষ্ট সময় নির্দিষ্ট স্থানে আশঙ্কার চেয়ে বেশি পরিমাণে রোগের প্রকোপ দেখা দিলে তাকে ‘মহামারি’ বলা হয়। এছাড়া রাস্তাঘাটে, বাসে, গণমাধ্যমে, আড্ডায়, অনুষ্ঠানে, স্কুল-কলেজ, অফিস- সব জায়গায়ই চিকুনগুনিয়া নিয়ে আলোচনা। এর একটাই কারণ ব্যাপকহারে লোকজনের চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত হওয়া। ব্যাপক সংখ্যক মানুষ জ্বরে নিদারুণ কষ্ট পাচ্ছে। ছাত্র-ছাত্রীরা আক্রান্ত হওয়ায় পড়াশোনা বিঘিœত হচ্ছে।  চিকুনগুনিয়ার প্রভাবে কাজকর্ম ব্যাহত হচ্ছে অফিস আদালতেও।  
সবচেয়ে আতঙ্কের বিষয় হচ্ছে পরিবারের একজন আক্রান্ত হলে অন্যদের আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কারণ আক্রান্ত ব্যক্তিকে মশা কামড়ালে সেই মশাও রোগ ছড়ানোর বাহকে পরিণত হচ্ছে। এ অবস্থায় জরুরি ভিত্তিতে মশা নিধনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। সরকারি ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি সামাজিকভাবেও সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।
সরকারি ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি সামাজিকভাবেও সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।
চিকুনগুনিয়া মশাবাহিত একটি ভাইরাসের নাম। ডেঙ্গু রোগের ভাইরাস বহনকারী মশাই চিকুনগুনিয়া ভাইরাস বহন করে। এ রোগের লক্ষণ হচ্ছে প্রথমদিন থেকেই রোগীর অনেক বেশি তাপমাত্রায় জ্বর ওঠে। কাঁপুনি দিয়ে জ্বর আসে। প্রায়ই তা একশ’ চার বা পাঁচ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রায় উঠে যায়। একইসঙ্গে প্রচ- মাথা ব্যথা, শরীর ব্যথা, বিশেষ করে হাড়ের জয়েন্টে ব্যথা হয়। জ্বর ভালো হলেও অনেকদিন ধরে ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এ রোগের কোনো ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয়নি। তাই প্রতিকারের আগে প্রতিরোধ গড়ে তোলা জরুরি। সেজন্য আমাদের সচেতন হতে হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft