সম্পাদকীয়
ত্রাণের পাশাপাশি প্রয়োজন দীর্ঘমেয়াদি প্রস্তুতি ও পরিকল্পনা
Published : Friday, 7 July, 2017 at 12:27 AM
বর্ষার শুরু থেকেই দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে এবং ক্রমে পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে। প্লাবিত হয়েছে সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার নিম্নাঞ্চল। হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। লালমনিরহাটের হাতিবান্ধায় বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে কয়েকটি গ্রাম। এসব এলাকায় লাখ লাখ লোক এখন পানি বন্দি। বন্ধ হয়ে গেছে কয়েকশ’ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ঘর-বাড়ি, রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। যোগাযোগব্যবস্থা ভেঙে পড়ায় ব্যবসা-বাণিজ্যে দেখা দিয়েছে স্থবিরতা। বাড়ছে পানিবাহিত রোগ।
রংপুর অঞ্চলে তিস্তার পানিও বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে। সিরাজগঞ্জের চৌহারিতে উপজেলা বাঁধ বিভিন্ন স্থানে ধসে গেছে। টানা বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম নগরীতে দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। পার্বত্য অঞ্চলে ফের পাহাড় ধসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। প্রবল বর্ষণের কারণে গত ১২ জুন রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও চট্টগ্রামসহ ছয় জেলায় দেড় শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১২০ জন মারা গেছে রাঙামাটিতে। যে কারণে পার্বত্য এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।
এখন থেকেই বন্যাকবলিত এলাকায় পর্যাপ্ত ত্রাণের ব্যবস্থা করতে হবে। বিশেষ করে খাবার ও নিরাপদ পানির ব্যবস্থা করা খুবই জরুরি। এ সময় ফসলহানির পাশাপাশি গবাদি পশুর খাদ্যের অভাব দেখা দেয়। বন্যাকবলিত এলাকার মানুষ পানিবাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।  অনেক এলাকায় রাস্তাঘাট ডুবে যাওয়ায় যোগাযোগব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।
এ অবস্থায় উপদ্রুত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়াতে প্রশাসনকে জরুরি ভিত্তিতে উদ্যোগ নিতে হবে। পর্যাপ্ত ত্রাণের পাশাপাশি বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে দেওয়ার জন্য কাজ শুরু করতে হবে এখন থেকেই। সময় থাকতেই ত্রাণ ও পুনর্বাসনের প্রস্তুতি নেওয়ার বিকল্প নেই। আমাদের দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। বন্যা ও নদীভাঙন-পীড়িতদের মধ্যে তাৎক্ষণিক ত্রাণ ও উদ্ধার তৎপরতার পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদি প্রস্তুতি ও পরিকল্পনাও গ্রহণ করা প্রয়োজন।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft