দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
সুন্দরবন বিনাশী প্রকল্প ৫০ লক্ষ মানুষকে উদ্বাস্তু করবে : আনু মুহাম্মদ
খুলনা ব্যুরো :
Published : Friday, 21 April, 2017 at 12:08 AM
সুন্দরবন বিনাশী প্রকল্প ৫০ লক্ষ মানুষকে উদ্বাস্তু করবে : আনু মুহাম্মদঅধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেছেন, উপকূলীয় অঞ্চলের উন্নয়ন এবং কর্মসংস্থানের মিথ্যাচার ছড়িয়ে সরকার রামপাল প্রকল্পসহ সুন্দরবন বিনাশী অপতৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। এ সব প্রকল্পে প্রয় ৫০ লক্ষ মানুষ জীবন-জীবিকা হারিয়ে উদ্বাস্তেু পরিণত হবেন, ৫ কোটি মানুষকে প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখে অরক্ষিত করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, ভারতীয় এক্সিম ব্যাংকের কাছ থেকে ঋণের বোঝা চাপবে বাংলাদেশের ঘাড়ের উপর। ভারতীয় কোম্পানী লাভ করবে ভারতীয় হ্যাবি ইলেট্রিক কোম্পানি নির্মাণ কাজ করে মুনাফা লাভ করবে, ভারতীয় কোম্পানি কয়লা জোগান দিয়ে মুনাফা করবে। আর এক্সিম ব্যাংক ঋণের ব্যবসা করবে। বাংলাদেশের ভাগে থাকবে শুধু লোকসান ও সর্বনাশ। বেশি দামে বিদ্যুৎ, দীর্ঘমেয়াদী ঋণ আর সর্বপোরি বাংলাদেশে প্রধান প্রাকৃতিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সুন্দরবনে অনিবার্য ধ্বংস করবে।
উপকূলীয় অঞ্চলের ৫ কোটি মানুষের জীবন ও সম্পদের জন্য হুমকি রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ সুন্দরবন বিনাশী অপতৎপরতা বন্ধ, এ অঞ্চলের মানুষের জন্য প্রকৃতিবান্ধব উন্নয়ন পরিকল্পনা ও ঘরে ঘরে সূলভে গ্যাস ও বিদ্যুৎ এর দাবিতে বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় খুলনার শহীদ হাদিস পার্কে উপকূলীয় মহাসমাবেশে তিনি একথা বলেন।
অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আরো বলেন, সুন্দরবনের কাছে বেআইনিভাবে জমি বন দখল করছে, যারা কমিশন ভোগি, যারা ভাড়াটে বিশেষজ্ঞ তারা ছাড়া দেশে বিদেশের বিশেষজ্ঞ এবং জনগন সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলনের শক্তি। উন্নয়নের অনেক বিকল্প আছে কিন্তু সুন্দরবনের কোন বিকল্প নেই। অবিলম্বে প্রকল্প বাতিল না হলে রামপাল মার্চসহ কঠিন কর্মসূচী ঘোষণা করেন অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ। কর্মসূচীর মধ্যে ২৫ এপ্রিল থেকে ২৫ জুন উপকূলীয় অঞ্চলে জেলা উপজেলায় সভা, সমাবেশ ও গণসংযোগ। মে মাসে সরকারের ব্যয়বহুল পরিবেশ বিধ্বংশি, ঋণ নির্ভর বেশি দামের বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনার বিপরিতে সুলভ, পরিবেশ বান্ধব, ঋণ বা অপচয় মুক্ত ও দেশের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য বিকল্প বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনা উপস্থাপন ও দেশ ব্যাপি তা নিয়ে জনমত গঠন।
মহাসমাবেশে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে টিপু বিশ্বাস, রুহিন হোসেন প্রিন্স, বজলুর রশিদ ফিরোজ, জোনায়েদ সাকি, বহ্নিশিখা জামালী, শুভ্রাংসু চক্রবর্তী, সামছুল আলম, মোশাররফ হোসেন নান্টু, অধ্যাপক তানজিম উদ্দিন খান, শহীদুল ইসলাম সবুজ, নাছির উদ্দিন নাসু প্রমুখ।
স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মনিরুল হক বাচ্চু, এড. রুহুল আমীন, জনার্দন দত্ত নান্টু, মুনীর চৌধুরী সোহেল, রূহুল আমীন, কাজী দেলোয়ার হোসেন, এড. এস এম শাহ নেওয়াজ আলী, এড. বাবুল হাওলাদার, এম এ কাশেম প্রমুখ। মহাসমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কমিটির খুলনার সংগঠক ডাঃ মনোজ দাস। পরিচালনা করেন জেলা আহবায়ক এস এ রশীদ এবং সদস্য সচিব মোস্তফা খালিদ খসরু।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft