শিক্ষা বার্তা
প্রক্টরের পদত্যাগের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ
রংপুর সংবাদদাতা :
Published : Wednesday, 19 April, 2017 at 7:30 PM
প্রক্টরের পদত্যাগের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশরোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (চলতি দায়িত্বে) মীর তামান্না সিদ্দিকা আলমের পদত্যাগের দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীরা।
বুধবার সকাল থেকে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে তারা প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ করে।
এ সময় শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, প্রক্টর মীর তামান্না সিদ্দিকা কথায় কথায় ইভটিজিং এর অভিযোগ তোলেন। এরই মধ্যে এ ধরনের অভিযোগ নিয়ে একজন শিক্ষার্থীকে পুলিশে দেয়া হলে সেই খবর শুনে তার পিতা হার্ট এাটাকে মারা যান। এনিয়ে এক সপ্তাহ থেকে ক্যাম্পাসে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। কিন্তু প্রক্টর কোনোভাবেই তার পদ ছাড়ছেন না। কর্তৃপক্ষ তার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে।
আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে প্রক্টর পদত্যাগ না করলে বৃহস্পতিবার থেকে ক্যাম্পাসের সকল প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হবে বলে হুমকি দেন তারা।
পুলিশ সূত্র জানায়, গত ১৫ এপ্রিল গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ৬ষ্ঠ ব্যাচের শিক্ষার্থী নীলফামারীর জহুলী গ্রামের দীপু রায় প্রক্টর তামান্না সিদ্দিকা আলমকে সালাম না দেয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তামান্না ছিদ্দিকা ভীষণ ক্ষিপ্ত হয়।
এ ঘটনায় প্রক্টর তাকে ইভটিজিং করার অভিযোগ বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ ফাঁড়িতে সোপর্দ করে। এ খবর শুনে দীপুর বাবা অনীল চন্দ্র হার্ট এ্যাটাকে মারা যান।
খবর পেয়ে প্রক্টরের নির্দেশে দুপুর সাড়ে ৩ টার দিকে প্রক্টরের নির্দেশে দীপু রায়কে ছেড়ে দেয় পুলিশ। ঘটনাটি জানাজানি হলে শিক্ষার্থীরা একত্র হয়ে মিছিল ও সমাবেশ করে। সেখান থেকে তারা প্রক্টরের এহেন কর্মের নিন্দা জানিয়ে তার পদত্যাগ দাবি করেন।
সূত্র জানায়, প্রক্টর হওয়ার পর থেকেই ঠুনকো ঘটনায় তিনি কথায় কথায় ইভটিজিং করার অভিযোগ করছেন শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে।
গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. নজরুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে বলেন, দীপু রায়কে আটক করে পুলিশ ফাঁড়িতে রাখা হয়েছে খবরটি শুনে আমি ফাঁড়িতে ছুটে  গেছি। বিষয়টি নিয়ে আমি প্রক্টরের সঙ্গেও কথা বলি। পরে যখন খবর পাওয়া গেল সন্তানের আটকের খবর শুনে বাবা হার্ট এ্যাটাকে মারা গেছেন তার আগেই তাকে ছেড়ে দেবার ব্যবস্থা নেয়া হয়।
বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই এরশাদ আলী জানান, প্রক্টর ম্যাডাম শিক্ষার্থী দীপু রায়কে আটক করে আমাদেরকে দিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী প্রক্টরের নির্দেশ পালন করেছি আমি।প্রক্টরের নির্দেশ ছাড়া এখানে আমার কিছুই করার নেই।
ভিসি অধ্যাপক ড. নুর উন নবী জানান, ওই শিক্ষার্থী প্রক্টরের সঙ্গে খারাপ আচরণ করার কারণে তাকে আটক করা হয়েছিল বলে শুনেছি। তার বাবা আগে থেকে হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন ও মারা গেছেন। বিষয়টি জানার পর তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আন্দোলন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft