স্বাস্থ্যকথা
লিভারের রোগ হলে যা করবেন
কাগজ ডেস্ক :
Published : Saturday, 15 April, 2017 at 5:57 PM
লিভারের রোগ হলে যা করবেনলিভারের রোগীর কোনো উপসর্গ দেখা দিলে বা সন্দেহ হলে অথবা আপনার শরীরে ভাইরাসের সংক্রমণ নিশ্চিত হলে দেরি না করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এক্ষেত্রে সব চেয়ে ভালো হয় লিভার বিশেষজ্ঞের পরামর্শ। তিনি আপনার রোগ নির্ণয় করে এর কারণ, রোগের জন্য সৃষ্ট জটিলতা এবং রোগের বর্তমান অবস্থা জেনে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও উপদেশ দিবেন। হেপাটাইটিস এ ও ই জনিত রোগ বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ভালো হয়ে যায়। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে জটিলতাও দেখা দিতে পারে। হেপাটাইটিস ই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৮% গর্ভবতী মা মারা যায়। যখন শেষ তিন মাসের সময় মা তীব্রভাবে হেপাটাইটিস ই প্রদাহে ভোগেন। অন্যদের ক্ষেত্রে জীবন সংহারী একিউট হেপাটিক ফেইলিউর নামক জটিলতা দেখা দিতে পারে। তাই জন্ডিসকে কখনও অবহেলা করবেন না। ক্রনিক হেপাটাইটিসের জন্য দায়ী হেপাটাইটিস বি ও সি এর বিরুদ্ধে কার্যকর ওষুধগুলোর সবই এখন আমাদের দেশে পাওয়া যায়। তাই এ ক্ষেত্রেও হতাশ না হয়ে লিভার বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।
লিভার রোগ প্রতিরোধে আপনার করণীয়:
হেপাটাইটিস বি এর টিকা নিন;
ঙ্ ঝুঁকিপূর্ণ আচারণ যেমনথ অনিরাপদ যৌনতা, একই সুই বা সিরিঞ্জ বহুজনের ব্যবহার পরিহার করুন;
ঙ্ নিরাপদ রক্ত পরিসঞ্চালন ও ডিজপজেবল সুই ব্যবহার করুন। বেস্নড, রেজার, ব্রাশ; খুর বহু জনে ব্যবহার বন্ধ করুন;
ঙ্ শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণ করুন;
ঙ্ শাক সবজি ও ফলমূল বেশি করে খান আর চর্বিযুক্ত খাবার কম খান;
ঙ্ মদ্যপান ও অন্যান্য নেশা জাতীয় দ্রব্য পরিহার করুন;
ঙ্ বিশুদ্ধ পানি ও খাবার গ্রহণ করুন;
ঙ্ ডায়াবেটিস ও হাইপারটেনশন নিয়ন্ত্রণে রাখুন;
ঙ্ পরিষ্কার পরিছন্ন থাকুন।
শেষ কথাথ
মানুষের দেহে লিভার মাত্র একটিই আছে এবং জীবন ধারনের জন্য এটি অপরিহার্য। তাই লিভারের অসুস্থতার ফলাফল ক্ষেত্র বিশেষে হতে পারে ব্যাপক ও ভয়াবহ। তবে লিভারের রোগ মানেই সব কিছু শেষ হয়ে যাওয়া নয়। সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে অনেক ক্ষেত্রেই সম্পূর্ণ নিরাময় এবং অনিরাময় যোগ্য জটিলতা মুক্ত মোটামুটি স্বাভাবিকভাবে জীবন নির্বাহ করা যায়।
লিভার অকেজো হওয়ার ১০টি প্রধান কারণ
লিভার অকেজো হওয়ার ১০টি প্রধান কারণ এখানে তুলে ধরা হলো:
১) রাতে খুব দেরিতে ঘুমাতে যাওয়া ও সকালে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা;
২) সকালে মূত্রত্যাগ ও পর্যাপ্ত পানি পান না করা;
৩) অতিরিক্ত খাবার খাওয়া;
৪) সকালে নাস্তা না করা;
৫) মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবন করা;
৬) প্রিজারভেটিভ, ফুড কালার ও খাবার মিষ্টি করতে কৃত্রিম সুইটেনার ব্যবহার করা খাবার বেশি খাওয়া;
৭) রান্নায় অস্বাস্থ্যকর তেল ব্যবহার করা;
৮) ভাজা-পোড়া জাতীয় খাবার খাওয়া ও ভাজার সময় অতিরিক্ত তেল ব্যবহার করা;
৯) মাত্রাতিরিক্ত যে কোনো কিছুই ক্ষতিকর। খুব বেশি পরিমাণে কাঁচা খাদ্য খাওয়ার অভ্যাসও লিভারের ওপর চাপ সৃষ্টি করে;
১০) অ্যালকোহল সেবন করা।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft