তথ্য ও প্রযুক্তি
মোবাইল টাওয়ার স্থাপন ও ব্যবহারের নীতিমালা তৈরির নির্দেশ হাইকোর্টের
কাগজ ডেস্ক :
Published : Wednesday, 12 April, 2017 at 6:35 PM
মোবাইল টাওয়ার স্থাপন ও ব্যবহারের নীতিমালা তৈরির নির্দেশ হাইকোর্টেরদেশে মোবাইল কোম্পানির টাওয়ার স্থাপন ও ব্যবহারের একটি নীতিমালা তৈরি করে আট সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। মঙ্গলবার বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. সেলিমের বেঞ্চ বিটিআরসি চেয়ারম্যানকে এই নির্দেশ দেয়। এর আগে আদালত মোবাইল ফোন কোম্পানির টাওয়ার থেকে নিঃসৃত বিকিরণের (রেডিয়েশন) মাত্রা ও স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়ে তিনটি আন্তর্জাতিক সংস্থার মূল্যায়ন প্রতিবেদন নিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেয়। ওই নির্দেশ অনুযায়ী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ তিনটি আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যোগাযোগ করেছে বলে স্বাস্থ্য সচিবের দেওয়া একটি প্রতিবেদন এদিন হলফনামা আকারে উপস্থাপন করা হয়। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক স্বাস্থ্য সচিবের প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করে বলেন, আন্তর্জাতিক তিনটি সংস্থার বিশেষজ্ঞদের মূল্যায়ন প্রতিবেদন পেতে তিন মাস সময় লাগবে। এরপর আদালত মোবাইল টাওয়ার স্থাপন ও ব্যবহারের একটি নীতিমালা তৈরি করে সে বিষয়ে আট সপ্তাহের মধ্যে একটি প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য বিটিআরসির চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেয়। মোবাইল টাওয়ারের বিকিরণ নিঃসরণ নিয়ে ২০১২ সালে হাই কোর্টে রিট করে পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ। তখন হাই কোর্ট বিকিরণের মাত্রা এবং এর স্বাস্থ্য ও পরিবেশগত প্রভাব খতিয়ে দেখতে নির্দেশ দেয়। বাংলাদেশ আণবিক শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যানকে বিভিন্ন মোবাইল ফোন কোম্পানির কয়েকটি টাওয়ার পরীক্ষা করে বিকিরণের বিষয়ে আদালতে একটি প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়। এ ছাড়া সাত দিনের মধ্যে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি করতে স্বাস্থ্য সচিবকে নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গঠন করা বিশেষজ্ঞ কমিটি মোবাইল টাওয়ারের স্বাস্থ্য ও পরিবেশগত প্রভাব নিরীক্ষা করে একটি প্রতিবেদন দেয় মন্ত্রণালয়ে। ওই প্রতিবেদনে নিয়মিত বিকিরণ পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি একটি নীতিমালা তৈরির জন্য বিটিআরসিকে সুপারিশ করা হয়। বিশেষজ্ঞ কমিটির এই প্রতিবেদনের বিষয়টি রাষ্ট্রপক্ষ চলতি বছরের ২২ মার্চ আদালতকে মৌখিকভাবে জানায়। পরে আদালত তা ২৮ মার্চের মধ্যে হলফনামা আকারে জমা দিতে বলে। এছাড়া স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে বিটিআরসি কী পদক্ষেপ নিয়েছে তা এর মধ্যে আদালতকে জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী ২৮ মার্চ প্রতিবেদনটি হলফনামা আকারে জমা দেওয়ার পর তা আদালতকে পড়ে শোনান কাজী জিনাত হক। এরপর আরেকটি সম্পূরক আবেদনের উপর শুনানি নিয়ে মোবাইল ফোন কোম্পানির টাওয়ার থেকে নিঃসৃত বিকিরণের মাত্রা ও স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়ে তিনটি আন্তর্জাতিক সংস্থার মূল্যায়ন প্রতিবেদন নিতে সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়। এই তিন সংস্থা হলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও), আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা (আইএইএ) এবং ইন্টারন্যাশনাল কমিশন অন নন-আইওনাইজিং রেডিয়েশন প্রটেকশন (আইসিএনআইআরপি)।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft