তথ্য ও প্রযুক্তি
যশোরে হাইটেক পার্ক পরিদর্শনকালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী পলক
শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক হবে দেশের অর্থনীতি ও আইটি চর্চার প্রাণকেন্দ্র
উজ্জ্বল বিশ্বাস :
Published : Monday, 20 March, 2017 at 12:56 AM
শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক হবে দেশের অর্থনীতি ও আইটি চর্চার প্রাণকেন্দ্রতথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, যশোরের শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক হবে বিশ্বমানের ডেসটিনেশন ও জ্ঞানভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। যা কাজে লাগিয়ে এদেশ আইটি সেক্টরে উন্নয়নের শীর্ষে পৌঁছে যাবে। রোববার বিকেলে সফটওয়্যার পার্কের কাজ পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।
যশোর শহরের শংকরপুর এলাকায় নির্মাণাধীন শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক অডিটোরিয়ামে প্রকল্পের অগ্রগতির আলোচনা শীর্ষক আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আগামী দুই মাসের মধ্যে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের নির্মাণ কাজ শেষ হবে। এরপর উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন দেয়া হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাড়া পেলেই খুব শিগগিরই যশোরে নির্মিত শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক উদ্বোধন করা হবে।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হবে বাংলাদেশ। আইসিটি খাত থেকে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে সরকার। বর্তমানে দেশে ২৮টি হাইটেক পার্ক নির্মাণের কাজ চলছে। যুবসমাজকে আইটি প্রফেশনাল হিসেবে গড়ে তুলতে ৭টি শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণ কাজও শেষের দিকে।
জুনাইদ আহমেদ পলক আরও বলেন, আধুনিক তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি নির্ভর জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনের লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়ন হচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে যশোরে নির্মাণ করা হয়েছে সফটওয়ার টেকনোলজি পার্ক। এটি চালু হলে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আইটি জোন হিসেবে গড়ে উঠবে যশোর।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ৩০৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক আগামী ৩০ জুনের মধ্যে পুরোপুরি আইটি শিল্পের জন্য প্রস্তুত হবে। এই পার্কটিতে ১০ হাজার আইটি প্রফেশনাল তরুণ-তরুণী কাজের সুযোগ পাবেন। এজন্য আইটি প্রফেশনালদের কাজের সুযোগ সৃষ্টি করার লক্ষ্যে লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে।শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক হবে দেশের অর্থনীতি ও আইটি চর্চার প্রাণকেন্দ্র
তিনি জানান, যারা পার্কের জায়গা বরাদ্দ নিয়েছেন তাদের জুনের মধ্যে অফিসের কাজ শেষ করতে হবে। কাজ শুরু না হলে চুক্তি বাতিল করা হবে।
এ সভায় যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.আব্দুস সাত্তার, এটুআই প্রকল্পের উদ্ভাবন পরিচালক যুগ্ম সচিব মোস্তাফিজুর রহমান, শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের প্রকল্প পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন, যশোরের জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে প্রতিমন্ত্রী হাইটেক পার্কে সাজ টেল আইটি কোম্পানির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।
পরে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক যশোর জিলা স্কুল মাঠে প্রধান অতিথি থেকে লানিং এন্ড আর্নিং মেলার উদ্বোধন করেন। আইসিটি ডিভিশন আয়োজিত ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় এ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তৃতা করেন আইসিটি ডিভিশনের প্রকল্প পরিচালক তপন কুমার নাথ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন। সভাপতিত্ব করেন যশোরের জেলা প্রশাসক ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর।
শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক হবে দেশের অর্থনীতি ও আইটি চর্চার প্রাণকেন্দ্রএ সময় অংশ নেন যশোরের সাবেক জেলা প্রশাসক ও এটুআই প্রকল্পের উদ্ভাবন পরিচালক যুগ্ম সচিব মোস্তাফিজুর রহমান, যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) এসএম নাইমুর রহমান প্রমুখ।
পরে তিনি জেলা প্রশাসক সভা কক্ষে জাতীয় ইমাজেন্সী সার্ভিস ৯৯৯ (হট লাইন) নিয়ে প্রশাসন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থীদের সাথে কর্মশালায় বক্তৃতা করেন। দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে জরুরী সেবা প্রদানের জন্য এ সার্ভিসটির পরীক্ষামূলক ভাবে চালু করা হয়েছে।
এ সময় কর্মশালায় অংশ নেন যশোরের সাবেক জেলা প্রশাসক ও এটুআই প্রকল্পের উদ্ভাবন পরিচালক যুগ্ম সচিব মোস্তাফিজুর রহমান, জাতীয় ইমাজেন্সী সার্ভিস ৯৯৯-এর প্রকল্প পরিচালক (উপ-সচিব) মনিরুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক (উপ-সচিব) মাজেদুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইটি) পারভেজ হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আসাদুল হক, সিভিল সার্জন গোপেন্দ্র নাথ আচার্য প্রমুখ। এ আয়োজনে সভাপতিত্ব করেন যশোরের জেলা প্রশাসক ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft