জাতীয়
রক্তঝরা মার্চ
কাগজ সংবাদ :
Published : Sunday, 19 March, 2017 at 12:45 AM
রক্তঝরা মার্চ ১৯৭১-এর ১৯ মার্চ দিনটি ছিল শুক্রবার। লাগাতার চলা অসহযোগ আন্দোলনের সপ্তদশ দিবস। স্বাধিকারকামী অসহযোগ আন্দোলনের ধারাক্রমে প্রবীণ-নবীন নির্বিশেষে সমাজের সর্বস্তরের শ্রেণী-পেশার মানুষের ঢল নেমেছে বঙ্গবন্ধুর ধানমন্ডির ৩২নং বাসভবনে। ভোর থেকে গভীর রাত অবধি শত শত মিছিলের লাখ লাখ লোকের উপস্থিতিতে স্লোগানে মুখরিত নেতার বাসভবনের সম্মুখ প্রাঙ্গন।
বাসভবনে সমাগত লাখ জনতা ও বিদেশী সাংবাদিকদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে আবেগভরা কণ্ঠে বঙ্গবন্ধু বলেন, বিদেশি বন্ধুরা দেখুন। আমার দেশের মানুষ আজ প্রতিজ্ঞায় কী অটল, সংগ্রামে আর ত্যাগের মন্ত্রে কত উজ্জীবিত। কার সাধ্য এদের রোখে? আমার দেশ আজ জেগেছে, জনগণ আজ জেগেছে। জীবন দিতে শিখেছে। স্বাধীনতার জন্য জীবনদানের অগ্নিশপথে দৃপ্ত জাগ্রত জনতার এ জীবন জোয়ারকে, এ গণবিস্ফোরণকে স্তব্ধ করতে পারে এমন শক্তি মেশিনগানেরও আজ আর নেই। ভোর ৫টা হতে রাত পর্যন্ত আপনারা কেবল একই দৃশ্য দেখতে পাবেন।  
বাসভবনে আগত একের পর এক মিছিলে জনতার উদ্দেশে সংক্ষিপ্ত ভাষণে প্রত্যয়দৃপ্তভাবে মুক্তি সংগ্রামের পতাকা আরও ঊর্ধ্বে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে আপামর বাঙালীর স্বাধীনতা আন্দোলনের সর্বাধিনায়ক বঙ্গবন্ধু জলদ গম্ভীর স্বরে বলেন, বাংলার মানুষ তোমরা ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোল। আঘাত যদি আসে, প্রতিহত করো, পাল্টা আঘাত হানো। ৭ কোটি শোষিত-বঞ্চিত বাঙালীর সার্বিক মুক্তি অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। চরম ত্যাগের বিনিময়ে হলেও আমরা লক্ষ্যে পৌঁছাবই। দরকার হলে রক্ত দিয়েই আমরা দাবি প্রতিষ্ঠা করব। তবু শহীদের রক্ত বৃথা  যেতে দেব না।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft