সারাদেশ
২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৩টি স্কুলের একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন
মঙ্গা বলে এখন আর কোন এলাকা নেই : হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি
সাহেব, দিনাজপুর :
Published : Thursday, 16 March, 2017 at 8:06 PM
মঙ্গা বলে এখন আর কোন এলাকা নেই : হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক ও বাস্তবমূখী পরিকল্পনার কারনে মানুষের আজ অর্থনৈতিক ও আর্থ-সামাজিক অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। মঙ্গা এলাকা বলে এখন আর কোন এলাকা নেই। ভিজিএফ-ভিজিডি, বয়স্ক ভাতা, স্বামী পরিত্যক্তা ভাতা, বিধবা ভাতাসহ ১৭৮ প্রকারের বিভিন্ন সামাজিক ভাতা প্রদান করে হত-দরিদ্র মানুষগুলোর ভাগ্যন্নোয়নের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ক্লাস ওয়ান থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত বিনামূল্যে বই বিতরণ, দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রদের বৃত্তি প্রদান, অবৈতনিক শিক্ষা ব্যবস্থা চালুর মধ্য দিয়ে সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করার বাস্তব পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে।
শিক্ষার আলোয় আলোকিত মানুষ বিনির্মানের জন্য সকল ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। কোন শ্রেণী বিন্যাস নয়, সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ এ সমস্ত সামাজিক দায়বদ্ধতার ভাতা গ্রহণ করে উপকৃত হচ্ছেন। দলীয় দৃষ্টিভঙ্গিতে নয়, মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থার পরিবর্তনের জন্য শেখ হাসিনার সরকার সার্বজনীনভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।
১৬ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলার ৮৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে চেরাডাঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ৩য় তলা ভবনের শুভ উদ্বোধন শেষে চেরাডাঙ্গী স্কুল মাঠ প্রাঙ্গণে এক বিশাল সমাবেশে তিনি বক্তব্য রাখছিলেন। চেরাডাঙ্গী স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. মোফাজ্জল হোসেন দুলালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফরিদুল ইসলাম, কোতয়ালী আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ এমদাদ সরকার, সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন, সিনিয়র সহ-সভাপতি জহুরুল আলম প্রমূখ।
হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, আমি নির্বাচনের আগে যতগুলো ওয়াদা আপনাদের কাছে করেছিলাম তা সিংহভাগ বাস্তবায়ন করেছি। আগামী তিন মাসের মধ্যে এই আউলিয়াপুর ইউনিয়ন শুধু নয়, সদর উপজেলার একটি বাড়ীও বাকী থাকবে না বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হতে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে সদর উপজেলার প্রত্যেকটি রাস্তা পাকাকরন করে দেয়া হবে। সদর উপজেলার এমন কোন স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা, মসজিদ-মন্দির, কবরস্থান নেই যেখানে অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়নি। মঙ্গা বলে এখন আর কোন এলাকা নেই : হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি
চেরাডাঙ্গী স্কুলের সার্বিক উন্নয়নের চিত্র ধরে বলেন, এই স্কুলের শুধু একাডেমীক ভবন নয়, কম্পিউটার ল্যাবের সার্বিক উন্নতি সাধন করে ডিজিটাল ক্লাশ রুম চালুর ব্যবস্থা করা হবে। তিনি মেধাবী ও দরিদ্র ছাত্রদের জন্য চেরাডাঙ্গী স্কুলের চালুকৃত শিক্ষা বৃত্তি কার্যক্রম বেগবান করার জন্য নগদ এক লাখ টাকার অনুদান, বিএনসিসি, স্কাউট, গালর্স গাইডের ড্রেস করার জন্য ৫ লাখ টাকার অনুদানের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আগামী প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধকরনের জন্য স্কুল প্রাঙ্গণে চেতনার মিনার শহীদ মিনার নির্মাণ করে দেয়ার আশ্বাস প্রদান করে তিনি বলেন, স্বাধীনতার চেতনাকে লালন করে সৎ ও নিষ্ঠার সঙ্গে দেশের সেবা করতে হবে।
বাংলাদেশ ঐতিহ্যগতভাবে অসা¤প্রদায়িক। সব স¤প্রদায়ের মানুষই এখানে মিলেমিশে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছে। কিন্তু বর্তমানে দেশের অনেক উচ্চ শিক্ষিত যুবক ও তরুণ জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে। তাদের জঙ্গিবাদের সর্বনাশা পথ থেকে ফিরিয়ে আনতে অভিভাবকদের আরো সচেতন হতে হবে। জঙ্গিবাদ এখন সারা বিশ্বের মানুষের জন্য একটি বড় দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সৃজনশীল কাজে আগ্রহী হওয়ার আহ্বান জানান হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। ছাত্রীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শুধু শিক্ষার আলো ছড়ায় না, মানবসম্পদও তৈরি করে। নতুন প্রজন্ম ও শিক্ষিত জনগোষ্ঠীকে শুধু উচ্চশিক্ষা নয়, পড়াশুনার পাশাপাশি সৃজনশীল কাজেও আগ্রহী হতে হবে। সেই সঙ্গে চেরাডাঙ্গী স্কুলের আশপাশের গ্রামের ছাত্রীরা যেন উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে সেই লক্ষ্যে দক্ষিণ কোতয়ালীর এই অঞ্চলে গালর্স কলেজ প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহন করা হবে বলে তিনি ঘোষনা দেন।
তিনি বলেন, রামসাগর উন্নয়নের জন্য ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। সেই সঙ্গে আস্করপুর ইউনিয়নের গৌরীপুরে ৫৬ কোটি টাকা ব্যয়ে রাবার ড্যাম্প নির্মানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এটি সফল হলে এই অঞ্চলের মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থার পরিবর্তন হয়ে যাবে। কৃষি ও মৎস খাতে নব দিগন্তের সুচনা হবে।
তিনি উল্লেখ করেন, দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে  সিটি স্ক্যান, এমআরআইসহ অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতিতে সজ্জিত করে স্বাস্থ্য খাতের আমূল পরিবর্তন করা হয়েছে। ৪০ রকমের ঔষধ বিনামূল্যে প্রদান করা হচ্ছে। দিনাজপুর বড় ময়দানে ঐতিহাসিক ঈদগাহ মিনার নির্মাণ ও স্টেডিয়ামে আধুনিক ক্রীড়া সরঞ্জাম যুক্ত করাসহ অবকাঠামো উন্নয়ন করা হয়েছে। দৃশ্যমান এ সমস্ত উন্নয়ন দেখেও অনেকে বলেন-উন্নয়নই নাকি হয়নি। তিনি বলেন, উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রা অব্যহত রাখতে আবারো নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে।
এর আগে সকালে দিনাজপুর ইকবাল হাইস্কুলে ৭৮ লাখ টাকা ব্যয়ে একাডেমিক ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। বিকালে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি ৯নং আস্করপুর ইউনিয়নের খানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৮ লাখ টাকা ব্যয়ে একাডেমিক ভবন নির্মান কাজের উদ্বোধন করেন। আস্করপুর ইউনিয়নের জামালপুর ছাড়কুড়ি জামে মসজিদের নবনির্মিত ভবনের কাজের উদ্বোধন করেন। সেই সঙ্গে এ মসজিদের জন্য ২ লাখ টাকার অনুদান ঘোষনা করেন।
এরপর আলহাজ্ব মনসুর চৌধুরী দাখিল মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন। আস্করপুর ইউনিয়নে গিয়ে পৌছালে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপিকে ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া, সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন, খানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জিল্লুর রহমান, প্রধান শিক্ষক মোকসেদুল হক, আলহাজ্ব খতিবউদ্দীন আহমেদের নেতৃত্বে ইউনিয়নবাসী নৌকা আকৃতির ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft