জীবনধারা
দাঁতের ক্ষতি করছেন যেভাবে
কাগজ ডেস্ক :
Published : Sunday, 12 February, 2017 at 10:12 PM
দাঁতের ক্ষতি করছেন যেভাবেদাঁত থাকতেই দাঁতের মর্ম বোঝা দরকার। কারণ এটি নষ্ট হলে ফিরে পাওয়া যায় না। এমনকি ক্যাপ পরাতেও আসল দাঁতের গোড়াটুকু চাই।
দৈনন্দিন যেসব অভ্যাসের কারণে প্রতিনিয়ত দাঁতের ক্ষতি হচ্ছে তার কয়েকটি উল্লেখ করেছে স্বাস্থ্যবিষয়ক এক ওয়বসাইট।
ফ্লস না করা: দিনে দুইবার ব্রাশ করা উচিত। এটা সবার জানা থাকলেও ফ্লস করাটাও যে সমান জরুরি তা অনেকেরই জানা নেই। দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা ব্যাকটেরিয়া ও খাদ্যকণা দূর করতে ফ্লস সবচাইতে বেশি কার্যকর। আর এই ব্যাকটেরিয়া দ্রুত অপসারণ করা না হলে গর্ত হতে পারে যার চিকিৎসা অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক এবং ব্যয়বহুল।
পুরনো ব্রাশ ব্যবহার: দীর্ঘদিন একই ব্রাশ ব্যবহার করা দাঁত পরিষ্কারের বদলে উল্টা আরও ক্ষতি করে। পুরনো ব্রাশে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া দাঁত ও মাঢ়িতে প্রদাহের কারণ হতে পারে। আর দীর্ঘদিন ব্যবহারের কারণে ব্রাশ নষ্ট হয়ে যায়। ফলে দাঁত পরিষ্কার করার ক্ষমতাও কমে।
বেশি চাপ দিয়ে ব্রাশ করা: হয়ত মনে হতে পারে, জোরে কিংবা বেশি চাপ দিয়ে ব্রাশ করলে দাঁতের দাগ ও ফাঁকে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া ভালোভাবে পরিষ্কার হবে। তবে এতে আসলে মাঢ়ি ও দাঁতের এনামেলের আস্তর ক্ষয় হচ্ছে। মাঢ়ি ক্ষয় হওয়ার কারণে দাঁতের গোড়ার সংবেদনশীলতা বেড়ে যায়।
খাওয়ার পরপরই ব্রাশ করা: অনেকের ধারণা খাওয়ার পরপরই দাঁত ব্রাশ করা ভালো। আসলে বিষয়টা উল্টা। খাওয়ার ঠিক পরই ব্রাশ করলে খাবারের অম্লীয় উপাদানগুলো দিয়ে দাঁত ব্রাশ করা হয়, ফলে এনামেলের আস্তর ক্ষয় হয় বেশি। তাই খাওয়ার কমপক্ষে আধা ঘণ্টা পর দাঁত ব্রাশ করা উচিত।
চিনি বেশি খাওয়া: দাঁত ও মাঢ়ির সবচাইতে ক্ষতিকর শত্রুগুলোর মধ্যে চিনি অন্যতম। চিনি এমন কিছু ব্যাকটেরিয়া উৎপন্ন করে যা মুখে অ্যাসিড তৈরি করে। এটি মুখের মধ্যে দীর্ঘসময় থাকলে দাঁতের এনামেলের সঙ্গে বিক্রিয়া করে। এর ফলে মুখের মধ্যে মারাত্বক সমস্যা দেখা দিতে পারে।
তামাক: দাঁতের সবচাইতে বড় শত্রু তামাক। তামাক চাবানো ধূমপানের চাইতেও বেশি ক্ষতিকর। এর কারণে মাঢ়িতে রক্ত সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। মুখের ক্যান্সারের একটি প্রধাণ কারণ তামাক চাবানো।
বরফ: প্রচন্ড গরমে বরফ কামড়ে খাওয়া আরামের হলেও দাঁতের জন্য তা অভিশাপ। দাঁত ও এর উপরের এনামেলের আস্তর নষ্ট করে বরফ। পাশাপাশি মুখের ভেতরের স্বাস্থ্যের জন্য ঠান্ডা ভালো নয়।
বোতল খোলা বা প্যাকেট ছেঁড়া: নতুন কাপড় থেকে ট্যাগ ছেঁড়া, কাচের বোতলের মুখ খোলা, প্যাকেট ছেঁড়া ইত্যাদি কাজে দাঁত ব্যবহার করাকে অনেকেই স্বাভাবিক বিষয় মনে করেন। তবে এতে দাঁত ও মাঢ়ির মারাত্বক ক্ষতি হয়। মনে রাখতে হবে, দাঁত খাবার চাবানোর জন্য, যন্ত্র হিসেবে ব্যবহার করার জন্য নয়।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft